স্বামীর সৌভাগ্য আনেন এই মহিলারা, বিভিন্ন লক্ষণে চিনে নিন মহিলাদের স্বভাব

Lucky And Unlucky Women According To Chanakya : চরিত্রবতী ও চরিত্রহীন নারী চিনবেন কীভাবে? রইল চাণক্য মত

আচার্য চাণক্য (Acharya Chanakya) একজন দক্ষ রাজনীতিবিদ, চতুর কূটনীতিক এবং সফল অর্থনীতিবিদ ছিলেন। তিনি চাণক্য নীতি (Chanakya Niti) -র আকারে তার জীবনের অভিজ্ঞতার পুরো সংগ্রহটি বিশ্বের সামনে তুলে ধরেছেন। সেরকমই আচার্য চাণক্য তার নীতিশাস্ত্র চাণক্য নীতিতে স্ত্রীদের এমন চারটি গুণের কথা বলেছে যা থাকলে স্বামীর জীবন সুখী ও সমৃদ্ধ হয়ে ওঠে। চলুন জেনে নিই সেই চারটি গুণের সম্পর্কে।

ধৈর্য্যের থেকে বড় গুণ নেই : কথায় আছে, ‘যে সয় , সে রয়’। সেই নীতিতেই চাণক্যের দিকদর্শন বলছে, যে মহিলারা শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ধৈর্য রাখেন, তাঁরাই সংসারের যুদ্ধে জয়ী হন। ফলে তার সুফল পেতে দেরি হয়না তাঁদের স্বামীদের। কঠিন সময়েও মহিলারা সংসারের হাল ধরে পরিস্থিতিকে আরও সুন্দর করে তোলেন। আর এর দ্বারাই এঁদের স্বামীরা ভাগ্যবান হয়ে ওঠেন।

Chanakya Niti

ধার্মিক মন যার : চাণক্য নীতি অনুসারে, একজন মহিলার সর্বদা তার ধর্ম অনুসরণ করা উচিত। যে নারী ধর্ম অনুসরণ করেন তিনি সর্বদা ভালো কাজের প্রতি অনুপ্রাণিত হন। এই ধরনের মহিলারা তাদের সন্তানদেরকে সংস্কৃতিবান করে তোলে, ভাল গুণের শিক্ষা দেয়। এই ধরনের মহিলা সর্বদা তার দায়িত্ব পালন করে। এমন মহিলা কেবল পরিবারেরই নয়, বহু প্রজন্মের কল্যাণ করেন।

শান্ত মহিলা : আচার্য চাণক্য তার নীতিশাস্ত্র চাণক্য নীতিতে উল্লেখ করেছেন যে একজন মহিলা অত্যন্ত শান্ত ভদ্র হওয়া উচিত। যে নারীর আচার-আচরণ ধীর স্থির ও ভদ্র ও তার পরিবার সবসময় সুখী থাকে। এমন আচরণের মহিলা সর্বদা পরিবারকে ঐক্যবদ্ধ রাখে ও কেবল পরিবারের কল্যাণের কথা চিন্তা করে। এমন স্ত্রীর স্বামীদের জীবনও থাকে সুখের।

Chanakya Niti

মিষ্টিভাষী মহিলা : আচার্য চাণক্যের মতে, একজন পুরুষের স্ত্রী যদি মিষ্টিভাষী হন, তাহলে পৃথিবীতে তার চেয়ে ভাগ্যবান আর কেউ নেই। যে পুরুষ এই ধরনের গুণাবলী সম্পন্ন নারীদের বিয়ে করেন তিনি অবশ্যই সুখী জীবনযাপন করেন। পাশাপাশি, এই গুণের অধিকারী মহিলারা আত্মীয় বা প্রতিবেশী সকলের সাথেই সুসম্পর্ক বজায় রাখেন।

Chanakya Niti

আরও পড়ুন : বিবাহিত পুরুষদের প্রেমে পড়েছেন বারবার! উত্তমকুমার ছাড়াও আর কার সঙ্গে প্রেম ছিল সাবিত্রীর?

চরিত্রহীণ মহিলা থেকে দূরে থাকুন : চরিত্রহীন মহিলা বোঝার কিছু উপায় বাতলে দিয়েছেন চাণক্য। তার মতে শরীরের একাধিক অংশ দেখে তার চরিত্র নিয়ে ধারণা করা সম্ভব৷ চাণক্য নীতিতে বলা আছে যে মহিলার পা নিচের দিক সরু হয় আর উরু খুব মোটা হয় তারা পরিাবরের জন্য খুব অশুভ হয়৷ এছাড়াও পায়ের নিচের দিন সরু মানে তাদের জীবনে বিপদের শেষ নেই।