করোনা ভাইরাস ছড়াল কীভাবে, প্রকাশ্যে এল নতুন তথ্য

করোনা ভাইরাস ছড়াল কীভাবে, প্রকাশ্যে এল নতুন তথ্য

পুরো বিশ্বে মহামারীর মতন ছড়িয়ে পড়া কোরোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কে বিশ্ববাসী। এর মধ্যেই এই ভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে একেক মুনির একেক মত। কারুর মতে চীনের ইউহাণ প্রদেশের স্ট্রিট মার্কেট, কারুর মতে চীনের ল্যাবরেটরি তো কারুর মতে বাদুড় স্যুপ। সম্প্রতি এই ভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে এক নতুন সম্ভাবনা দেখা গেছে। তাহলে চলে হওয়া যাক বেশ কিছুদিন আগে, যখন এই সংক্রমণ শুরু হয় নি। সেই সময় চীন এবং আমেরিকার মধ্যে চলছিল বানিজ্য যুদ্ধ। দুই রাষ্ট্র প্রধান ট্রাম্প এবং চিনফিং এর মধ্যে চলছিল এই সংঘাত। কিন্তু এর ফলে শুধু দুই দেশই নয়, ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছিল দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোও।

তারপর আগমন হলো এই করোনাভাইরাসের যার ফলে যেকোনো একটি দেশ নয় বরং বিশ্বের সব দেশেরই অর্থনীতি ধ্বংসের মুখে। তবে এদের মধ্যে সবথেকে বেশী যে দেশ ক্ষতিগ্রস্থ হয় তা হলো চীন। চীনেই প্রথম সংক্রমন ছড়াতে শুরু করে এই ভাইরাস এবং বর্তমানে সবদিক থেকেই প্রায় শেষ হতে চলেছে এই শক্তিশালী রাষ্ট্র, চলছে মৃত্যু মিছিল। ইতিমধ্যেই আক্রান্ত প্রায় লক্ষ, মৃত তিন হাজারেরও বেশী মানুষ।এতদিন মনে করা হয় এর উৎপত্তিস্থল চীনের সি ফুড মার্কেট। সেখানে বিক্রি হওয়া সাপ ও বাদুড়ের মাংস থেকেই এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু এখন নতুন এক গবেষণা উল্টে দিচ্ছে সব হিসেব।

জাপানের একটি সংবাদ মাধ্যম এর মতে এই ভাইরাস যে চীনে তৈরি হয় সেরকম কোনো প্রমাণ এখনও কথাও পাওয়া যায়নি বরং, ৪টি মহাদেশের ১২টি দেশ থেকে ১০০-র বেশি জেনম সংগ্রহ করে গবেষণা করার পর দেখা যায় চীন এই ভাইরাসের উৎপত্তি স্থল নয়! গবেষণার মতে এই ভাইরাস মানুষের মধ্যে ছড়ানো শুরু করেছে গত বছর নভেম্বর থেকে, তার অনেক পরে, ডিসেম্বরের শেষ দিকে ইউহানে এই ভাইরাস দেখা যায়।

এবার আসা যাক গ্লোবাল টাইমসের রিপোর্ট এ।এই রিপোর্ট অনুযায়ী যে সময় থেকে চীনে কোরোনা ভাইরাস ছড়ায় সেই সময় ইউহানে চলছিল মিলিটারি গেমস যেখানে অংশ নিয়েছিলেন পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মিলিটারি প্রতিনিধিরা যার মধ্যে মার্কিন সেনার প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন। মার্কিন সেনা প্রতিনিধিও অতিথি হিসাবে আসে।

এবার আসা যাক আরেকটি প্রসঙ্গে। সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য আধিকারিক সংবাদ মাধ্যমের সামনে একটি স্বীকারোক্তি করেন যেখানে তিনি বলেন ৩.৪ কোটি মানুষ আক্রান্ত ইনফ্লুয়েঞ্জা এ এবং ২০,০০০ এরও বেশী মানুষের মৃত্যু হয়।

এই ঘটনার পরই লাগে খটকা। তাহলে কি এই ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীন নয়? মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র? ব্যর্থতা কি তাহলে মার্কিন প্রশাসনের? কারন মনে রাখতে হবে মিলিটারি গেমস এর পরই ইউহানে ছড়িয়েছিল কোরোনা ভাইরাস। তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট যেটিকে ইনফ্লুয়েঞ্জা বলছে সেটিই কোরোনা ভাইরাস না তো?!

আরও পড়ুন :- করোনা রুখতে দেশে লাগু হচ্ছে আইন, জানুন কি কি রয়েছে এই আইনে

জাপানের সংবাদ মাধ্যমের দাবিও কিছুটা এরকমই।যদিও এইসবের কোনো উত্তর আসেনি যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকে, তবে ইউএস সেন্টার্স ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক , লস অ্যাঞ্জেলস, সান ফ্রান্সিসকো, সিয়াটেলে ইনফ্লুয়েঞ্জা আক্রান্তদের মধ্যে কোরোনা ভাইরাসের জীবাণু আছে নাকি তা পরীক্ষা করা হবে।