বঙ্গোপসাগরে নতুন নিম্নচাপ, আগামী ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যজুড়ে তুমুল বৃষ্টির পূর্বাভাস

সুপার সাইক্লোন আমফানের ক্ষত এখনো শুকায়নি। এরই মাঝে বঙ্গোপসাগরে নতুন করে আরও একটি নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। আর এই নিম্নচাপ থেকে ফের ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কা দেখা দিচ্ছে। যদিও মৌসম ভবন এখনো পর্যন্ত স্পষ্ট করে জানায়নি এই নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে কিনা। তবে মৌসম ভবনও ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনাকে একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছে না। তাদের দাবি ১০ই জুনের মধ্যে স্পষ্ট হয়ে যাবে এই নিম্নচাপের ভবিষ্যৎ নিয়ে।

সদ্য পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশার উপর দিয়ে বয়ে গেছে সুপার সাইক্লোন আমফান, এরপর আবার ঠিক ১৫ দিনের মাথায় আরব সাগর থেকে আরও একটি ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ আছড়ে পড়েছে ভারত ভূখণ্ডের মুম্বই ও গুজরাট উপকূলে। আমফানের প্রকোপে তছনছ হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের সাত জেলার বিভিন্ন অংশ। বিশেষ করে দুই ২৪ পরগনা বিপুল ক্ষতির সম্মুখিন। আর এই আমফান ও নিসর্গের রেশ কাটতে না কাটতেই ফের বঙ্গোপসাগরে হাজির নতুন করে একটি নিম্নচাপের ভ্রুকুটি।

নতুন করে বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের ভ্রুকুটি শুরু হওয়ায় মাত্র ২০ দিনের মধ্যে দেশে তৃতীয় ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাবনা উঁকি দিচ্ছে। তবে IMD বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়া নিয়ে এখনো কোনো স্পষ্ট বার্তা না দিলেও কেউই এই সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিচ্ছে না। যে কারণে আমফানের পর আবার নতুন করে এমন নিম্নচাপের সম্ভাবনায় সিঁদুরে মেঘ দেখছে বাংলার মানুষ।

আর এই নিম্নচাপ নিয়ে IMD জানিয়েছে, আগামী ১০ই জুনের মধ্যে এই নিম্নচাপ ভালোভাবে গঠন হয়ে যাবে। হালকা বৃষ্টি, মেঘলা আবহাওয়ার কারণে ১৫ই জুন পর্যন্ত তাপপ্রবাহের মতো ঘটনা কোথাও দেখা যাবে না বলেই মনে করা হচ্ছে। তবে আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই দেশের বিভিন্ন অংশে ২ থেকে ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রা বাড়বে। তাপমাত্রা পৌঁছে যাবে ৩৯ থেকে ৪০ ডিগ্রিতে।

আলিপুর হাওয়া অফিস সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার থেকে টানা চার দিন বৃহস্পতিবার পর্যন্ত কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় তুমুল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যদিকে শ্রীনিকেতন হাওয়া অফিস জানিয়েছে, রবিবার বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকার পাশাপাশি সোমবার বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকলেও মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি দেখা মিলতে পারে।

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে বেশ কিছু এলাকায় ঢুকে পড়েছে মৌসুমী বায়ু। আগামী দু – দিনে উত্তর পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে ঢুকে পড়বে বর্ষা। বাতাসে জলীয়বাষ্প বেশি থাকায় আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি ভোগাবে। অন্যদিকে নিম্নচাপের জেরে প্রচুর পরিমাণে জলীয়বাষ্প প্রবেশ করবে মধ্য ভারত ও উত্তর ভারতে। আর তার জেরে হবে বৃষ্টিপাত পাশাপাশি উত্তর ভারতে বইবে ঝড়ো হওয়া।উত্তরবঙ্গে দার্জিলিং ,কালিম্পং জলপাইগুড়ি জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা। ভারী বৃষ্টি হতে পারে কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে। বিক্ষিপ্তভাবে বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে।

বুধবার রাজ্যজুড়ে বৃষ্টির সম্ভাবনা। সপ্তাহান্তে বৃষ্টি বাড়বে। বিহার উত্তরপ্রদেশের উপর রয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে। এই ঘূর্ণাবর্ত নিম্নচাপে পরিণত হবে সোমবার। বুধবার থেকে এর প্রভাবেই ওড়িশা বাংলায় বৃষ্টি বাড়বে।