করোনার জেরে বাতিল ট্রেন, জানুন টিকিটের টাকা রিফান্ডের নেওয়ার পদ্ধতি

list-of-prs-counter-over-eastern-railway

ভারতীয় রেলের তরফ থেকে বৃহস্পতিবার ঘোষণা করা হয় পরবর্তী বিজ্ঞপ্তি ছাড়া সমস্ত রকম ট্রেন চলাচল আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। যে কারণে ৩০ শে জুন পর্যন্ত থাকা সমস্ত ট্রেনের টিকিট বাতিল বলে ঘোষণা করা হলো। তবে যে সকল শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ও বিশেষ প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালানো শুরু করা হয়েছে তা বর্তমানে জারি থাকবে।

পাশাপাশি রেলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, বাতিল হওয়া প্রতিটি ট্রেনের টিকিটের পুরো মূল্য ফেরত দেবে ভারতীয় রেল। করোনার কারণে বাতিল হওয়া এই সকল টিকিটের টাকা ফেরত দেওয়ার ক্ষেত্রেও রেল দপ্তর তাদের নির্দেশিকায় বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে। পিআরএস (PRS) অথবা ই-টিকিট (Online) সমস্ত ক্ষেত্রেই ফেরত পাওয়া যাবে সম্পূর্ণ টিকিটের মূল্য। সম্পূর্ণ টিকিটের মূল্য ফেরত পাবেন যারা আগেই টিকিট কেটে রেখেছিলেন অথচ যাত্রা করতে পারেননি ২১ শে মার্চের পর থেকে।

ট্রেনের টিকিটের টাকা রিফাণ্ড নেওয়ার পদ্ধতি

১) পিআরএস (PRS) অর্থাৎ অফলাইনে করা বাতিল টিকিটের টাকা ফেরতের জন্য যাত্রীরা ভ্রমণের তারিখ থেকে ছয় মাসের মধ্যে টাকা ফেরতের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

২) যেসকল যাত্রীরা অনলাইনে টিকিট করেছিলেন অর্থাৎ যাদের ই-টিকিট রয়েছে তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে টাকা ফেরত পেয়ে যাবেন।

৩) যদি ট্রেন বাতিল করা হয়নি অথচ যাত্রীরা করোনাভাইরাসের আবহে যাত্রীরা তাদের যাত্রা বন্ধ করে দিতে চাইছেন সেক্ষেত্রেও বিশেষ ক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত করে টিকিটের সম্পূর্ণ মূল্য ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল দপ্তর। সে ক্ষেত্রে অনলাইন অথবা অফলাইন দুই ক্ষেত্রেই যাত্রীরা সম্পূর্ণ টাকা ফেরত পাবেন।

৪) সে ক্ষেত্রে যারা অফলাইনে টিকিট করেছিলেন তারা যাত্রার দিনের ছয় মাসের মধ্যে কাউন্টারে গিয়ে আবেদন করতে পারবেন টিকিটের মূল্য ফেরতের জন্য। সেখানে কাউন্টারে গিয়ে TDR (Ticket Deposit Receipt) করতে হবে। আর TDR (Ticket Deposit Receipt) তথ্য সহ জমা করার জন্য সময় পাওয়া যাবে আরও ৬০ দিন। তারপর ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে সম্পূর্ণ টাকা ফেরত দেওয়া হবে।

list-of-prs-counter-over-eastern-railway

৫) ট্রেন বাতিল হয়নি অথচ করোনা ভাইরাসের কারণে যাত্রীরা যাত্রা করতে চাইছেন না সে ক্ষেত্রে অনলাইনে কাটা টিকিটের মূল্য ফেরতের বন্দোবস্ত রয়েছে অনলাইনেই।

৬) এছাড়াও যেসকল যাত্রীরা পিআরএস কাউন্টার থেকে টিকিট কেটেছেন অর্থাৎ অফলাইনে টিকিট করেছেন তারা ১৩৯ নম্বরে কল করে অথবা আইআরসিটিসি (IRCTC)-র অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে যাত্রা দিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে টিকিট বাতিল করার আবেদন করতে পারবেন। সেক্ষেত্রেও তাদের সম্পূর্ণ টাকা ফেরত দেওয়া হবে।

এছাড়াও যারা ইতিমধ্যেই টিকিট বাতিল করে নিয়েছেন অথচ তাদের টিকিট বাতিল করার চার্জ কাটা হয়েছে তারাও সেই চার্জ ফেরতের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

সেক্ষেত্রে যাত্রীদের একটি আবেদন করতে হবে রেলের জোনাল হেডকোয়ার্টারের chief claim officers (CCO) or chief commercial manager/ refund (CCM-Refund) ঠিকানাই বাতিল হওয়া টিকিটের চার্জ মূল্য ফেরতের জন্য। এক্ষেত্রেও সময় পাওয়া যাবে যাত্রার দিন থেকে ৬ মাস।

যেসকল যাত্রীরা অনলাইনে টিকিট করেছিলেন এবং তারা পরে নিজে থেকেই টিকিট বাতিল করেছিলেন। সেই সকল যাত্রীদের টিকিট বাতিল করার জন্য যে চার্জ কাটা হয়েছিল সেই চার্জ স্বয়ংক্রিয়ভাবে আইআরসিটিসি (IRCTC) তাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ফেরত দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে।