কখন করোনামুক্ত হবে বিশ্ব, কী বলছে WHO

করোনা অতিমারির দাপটে এখন আতঙ্কিত সবাই। এখনো পর্যন্ত করোনাতে প্রাণ হারিয়েছেন ৮ লক্ষ মানুষ। গোটা বিশ্বে করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ২ কোটি ৩০ লক্ষ। দিনকে দিন এই সংখ্যা বেড়েই চলেছে। কবে আমরা এই করোনা থেকে মুক্ত হতে পারবো? এই প্রশ্ন জাগছে সকলের মনেই। এই প্রশ্নের উত্তর দিলেন WHO প্রধান।

আগামী দু’বছরের আগেই করোনামুক্ত হবে বিশ্ব। শুক্রবার এমনই আশা প্রকাশ করলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-র (হু) প্রধান টেড্রস অ্যাডানম গেব্রেয়েসাস। তিনি বলেন, “আশা করছি দু’বছরেরও কম সময়ে এই অতিমারি থেকে নিষ্কৃতি পাবে গোটা বিশ্ব।”

 

করোনার কথা বলতে গিয়ে হু এর প্রধান ১৯১৮ সালের স্প্যানিশ ফ্লু র কথা বলেন। তার কথায়- “সেই মহামারীর সময় আমাদের এত উন্নত প্রযুক্তি ছিল না। এত অত্যাধুনিক ব্যবস্থাও ছিল না। ফলে দ্রুত হারে ছড়িয়ে পড়ে স্প্যানিশ ফ্লু। কিন্তু আধুনিক বিশ্বের উন্নত প্রযুক্তির দ্বারা করোনাকে খুব শীঘ্রই নিয়ন্ত্রণ করা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।”

করোনা কেন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ল তার একটা ব্যাখ্যাও দিয়েছেন হু এর প্রধান। এই প্রসঙ্গে টেড্রস বললেন যে-“বর্তমান যুগে বিশ্বায়ন,পারস্পরিক সান্নিধ্যের কারণে করোনা পুরো বিশ্বে খুব দ্রুত হারে ছড়িয়ে পড়েছে।ত বে করোনাকে ঠেকিয়ে  রাখবার জন্য আমাদের হাতে যে উপায়গুলো রয়েছে সেগুলো কেই এখন প্রয়োগ করতে হবে। এছাড়া প্রতিষেধক ও আনা হচ্ছে। আশা করছি সবকিছু ঠিক থাকলে ১৯১৮ র ফ্লুর থেকে কম সময়ে করোনামুক্ত হবে বিশ্ব।’

হু এর আপৎকালীন প্রধান মাইকেল রায়ানের মতে-“আধুনিক বিশ্বের ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ ছিল ১৯১৮ র অতিমারি স্প্যানিশ ফ্লু। এই ফ্লু তিনটি ধাপে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছিল‌। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ঠিক যতজন প্রাণ হারিয়েছিলেন, তার চাইতে পাঁচ গুণ বেশি মৃত্যু হয়েছিল এই ফ্লুর ফলে। করোনা এখনো স্প্যানিশ ফ্লু এর মত ভয়ানক আকারে দেখা যায় নি।

আরও পড়ুন :- করোনার ভ্যাকসিন ঠিক কখন আসবে জানিয়ে দিল WHO

তবে এই ভাইরাসকে নিয়ন্ত্রণ করা না হলে তা ভয়ানক পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে। হু প্রধান এর কথা অনুযায়ী আগামী দুই বছর এখনো করোনাভাইরাস থাকছে। আর এর জন্য আমাদেরকে সতর্ক থাকতে হবে। করোনাভাইরাস থেকে বাঁচার জন্য যা যা সতর্কতার প্রয়োজন সেগুলি আমাদেরকে অবলম্বন করতে হবে। এই ভাইরাসকে কোনমতেই হেলাফেলা করা যাবে না বা অবজ্ঞা করা যাবে না তাহলে তার পরিণতি ভয়ঙ্কর হতে পারে।