The Kashmir Files-এর এই ৭টি দৃশ্য নিয়ে চরম আপত্তি, কেটে বাদ দিতে বাধ্য হন পরিচালক

The Kashmir Files-এর এই ৭টি ‘খুঁত’ দেখতে পায়নি কেউই, চরম আপত্তিতে দেওয়া হয় বাদ

বিবেক অগ্নিহোত্রী (Vivek Agnihotri) পরিচালিত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ (The Kashmir Files) ছবি ঘিরে বলিউডের বক্স অফিস ফুলেফেঁপে উঠছে। এই ছবি কাশ্মীরি পণ্ডিতদের উপর হওয়া নির্যাতনের উপর ভিত্তি করে বানানো যায় আসমুদ্র হিমাচলের দর্শকদের শিউরে উঠতে বাধ্য করে। এই ছবি নিয়ে সমালোচকদের মধ্যে চলছে জোর চর্চা। ছবিটি সেন্সর বোর্ডের কড়া পর্যবেক্ষণেও ছিল। সেন্সর বোর্ড (Sensor Board) কাঁচি চালিয়ে ছবি থেকে ৭ টি ‘খুঁত’ ছেঁটে ফেলে। দেখুন ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ থেকে কোন কোন দৃশ্য (The Kashmir Files DELETED Scene) বাদ দেওয়া হয়েছিল এবং কেন?

হিন্দু, সাধু শব্দ : ছবিতে একাধিক জায়গাতে ‘হিন্দু’, ‘পন্ডিত’, ‘সাধু’ শব্দগুলো ব্যবহার করা হয়েছিল। এই শব্দগুলো বাদ পড়েছে। কারণ ছবিতে যেখানে শব্দগুলিকে ব্যবহার করা হয়েছে সেখানে কোনও না কোনও অশালীন শব্দও তার সঙ্গে ব্যবহৃত হয়েছে। তাই সেই ডায়লগগুলো বাদ দেওয়া হয়েছে।

ডিস্কো সিএম : ছবির একটি দৃশ্যে ‘ডিস্কো সিএম’ লেখা ছিল। সেন্সর বোর্ডের নজরদারিতে ‌সেটি ধরা পড়ে এবং সেটিকে তুলে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। কাজেই দর্শকরা ডিস্কো সিএম লেখাটি ছবিতে কোথাও খুঁজে পাবেন না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম : এই ছবিতে জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম প্রকাশ করেছিলেন পরিচালক। সেন্সর বোর্ডের নিয়ম অনুযায়ী ‌ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে দেওয়া হয়। JNU এর বদলে নাম দেওয়া হয় ATU।

সংবাদমাধ্যমের লোগো : ছবির একাধিক দৃশ্যে একটি জাতীয় সংবাদ মাধ্যমের লোগো ব্যবহার করা হয়। এভাবে যাতে কোনও বিজ্ঞাপন না হয় তার জন্য সেন্সর বোর্ডের নির্দেশে লোগো ডিলিট করা হয়েছে।

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর ছবি : ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ এ সন্ত্রাসবাদী দলের এক নেতার বাড়িতে ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর ছবি দেখা গিয়েছিল। পরবর্তী দিনে বিতর্ক এড়াতে এই ছবি বাদ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের দৃশ্য : বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে বিক্ষোভ তুলে ধরার জন্য বেশ কিছু দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করেছিলেন পরিচালক। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের পোস্টারে ‘ধর্ষণ’ কথাটি লেখা ছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের এই পোস্টারগুলোকে ব্লার করে দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় পতাকা : পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রীর ছবিতে খুব বেশি কাটছাঁট করতে পারেনি সেন্সর বোর্ড। কারণ তিনি নিজেই সেন্সর বোর্ডের সদস্য। তবুও জাতীয় পতাকার একটি দৃশ্য ছবি থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। কারণ এই ছবিতে দেখানো হয় ভারতের জাতীয় পতাকা মাটিতে লুটিয়ে পড়ছে।