বারবার ভেঙ্গেছে বিয়ে, জীবনে এসেছে একাধিক পুরুষ, স্বামীর সুখ পাননি স্বস্তিকা

টলিউডের (Tollywood) মোস্ট হট এন্ড বিউটিফুল অভিনেত্রী হলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় (Swastika Mukherjee)। রূপে-গুণে, অভিনয়ে স্বস্তিকাকে টেক্কা দেবে, এমন জোর টলিউডের অধিকাংশ অষ্টাদশীরই নেই। দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে ইন্ডাস্ট্রিতে রাজত্ব করছেন এই অভিনেত্রী। টেলিভিশন, সিনেমা, ওটিটি প্ল্যাটফর্মজুড়ে দাপিয়ে কাজ করে চলেছেন স্বস্তিকা। টলিউড ছাপিয়ে বলিউডও আজ তার গুণগ্রাহী।

কেরিয়ারে বরাবর নিজের পজিশন ধরে রেখেছেন অভিনেত্রী। ভিন্ন স্বাদের একাধিক চরিত্রে অভিনয় করে নিজের জাত চিনিয়েছেন তিনি। আজ টলিউডের এক নম্বর ভার্সেটাইল অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জি। তবে কেরিয়ারে নিজের সাফল্য ধরে রাখতে পারলেও ব্যক্তিগত জীবনে কিন্তু বারংবার চড়াই-উৎরাইয়ের সম্মুখীন হতে হয়েছে অভিনেত্রীকে।

স্বস্তিকার জীবনে প্রেম এসেছে বারবার। তবে বসন্ত তার জীবনে বরাবর ক্ষণস্থায়ী। টলিউডে যখন সবে কাজ করতে শুরু করেছেন, তখনই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন অভিনেত্রী। ১৯৯৮ সালে মাত্র ১৮ বছর বয়সেই বিখ্যাত রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী প্রমিত সেন এর পুত্র সাগর সেনকে বিয়ে করে নেন স্বস্তিকা। তবে বিয়ের পরপরই সংসারে শুরু হয় অশান্তি। এমনকি গর্ভাবস্থাতেও অত্যাচারের সম্মুখীন হতে হয় স্বস্তিকাকে।

স্বস্তিকার প্রথম বিয়ের মেয়াদ ছিল মাত্র ২ বছর। প্রথম বিয়ে ভেঙে যাওয়ার পর কিছুদিনের মধ্যেই অভিনেতা দিব্যেন্দু মুখোপাধ্যায় আসেন তার জীবনে। নন্দিনী ছবির শুটিং করতে গিয়েই দিব্যেন্দুর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। তবে সেই সম্পর্কও দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। এরপর স্বস্তিকার জীবনে আসেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। তাদের সম্পর্ক বহুদূর পর্যন্ত গড়িয়েছিল। টলিউডে গুঞ্জন ছিল, সৃজিত মুখোপাধ্যায় এই সম্পর্ক নিয়ে বেশ সিরিয়াস ছিলেন। তবুও শেষ রক্ষা হলো না।

‘জাতিস্মর’ ছবির শুটিং চলাকালীনই নাকি দুই তারকার মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে। এরপর শোনা যায় বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সুমন মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়েছেন স্বস্তিকা। এই সম্পর্ককে সরাসরি সর্বসমক্ষে স্বীকারও করে নিয়েছিলেন তারা। তবে স্বস্তিকার অন্যান্য সম্পর্কের মতো এই সম্পর্কের মেয়াদও ছিল ক্ষণিকের।

স্বস্তিকার জীবনে প্রেম নিয়ে যে গুঞ্জন রটেছিল, তার মধ্যে অন্যতম ছিল টলিউড সুপারস্টার জিতের সঙ্গে তার প্রেমের গুঞ্জন। জিৎ-স্বস্তিকার জুটি পর্দায় বেশ পছন্দ করতেন দর্শক। তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ক পর্দার কেমিস্ট্রিকেও ছাপিয়ে গিয়েছিল। শোনা যায়, ‘মস্তান’ ছবির শুটিং ফ্লোর থেকেই নাকি তাদের সম্পর্ক নতুন মাত্রা পায়। কিন্তু কেরিয়ার নিয়ে ‘স্যাক্রিফাইস’ করতে রাজি ছিলেন না স্বস্তিকা। তাই তাদের সম্পর্ক ভেঙে যায়। এদিকে মোহনাকে বিয়ে করে নেন জিৎ।

টলিউডে শুধু জিৎ একা নন, চলচ্চিত্র পরিচালক পরমব্রতর সাথেও স্বস্তিকার সম্পর্ক নিয়ে মুখর হয়ে ওঠে টলিউড। তাদের একত্রে হ্যাংআউট করতেও দেখা গিয়েছে বহুবার। তবে স্বস্তিকা বরাবর ব্যক্তিগত জীবন এবং কেরিয়ারের মধ্যে কেরিয়ারকেই অগ্রাধিকার দিয়েছেন। কাজের সঙ্গে কোনও আপস নয়, এই নীতিই কার্যত টলিউডের হট এন্ড সেক্সি অভিনেত্রীকে আজ পর্যন্ত সিঙ্গেল করেই রেখেছে।