রিয়া নয়, এই অভিনেত্রীর সঙ্গে থাকতে চেয়েছিলেন সুশান্ত, প্রকাশ্যে হাতেলেখা কাগজ

অঙ্কিতার সাথে সম্পর্কচ্ছেদের পর রিয়া নন, বরং অন্য এক অভিনেত্রীর সাথে সময় কাটাতে চেয়েছিলেন সুশান্ত। শুধু তাই নয়, চেয়েছিলেন ধূমপান ছাড়তেও। সম্প্রতি সংবাদমাধ্যম “ইন্ডিয়া টুডে”র হাতে এল ২০১৮ সালের ২৭ এপ্রিল সুশান্তের লেখা “ডেইলি চার্ট”। সেই চার্ট এই মনের অনেক ইচ্ছের কথা লিখেছিলেন তিনি।

চার্ট এর প্রথমে লেখা ছিল, রাত আড়াইটের সময় ঘুম থেকে উঠবেন তিনি। “সুপারম্যান’ চা খেয়ে বেদমন্ত্র জপের পর স্নান করবেন বলেও লেখেন তিনি। কেদারনাথ সিনেমার স্ক্রিপ্ট পড়ার কথাও ছিল সেই লিস্টে। তার সাথেই নীল কালিতে তিনি ৮ নম্বরে লিখেছিলেন, কৃতির সাথে সময় কাটাতে চান তিনি।

কৃতী, অর্থাৎ অভিনেত্রী কৃতী শ্যানন। শুধু তাই নয়, সেখানে লেখা ছিল “নো স্মোকিং’। অর্থাৎ সেই সময় ধূমপান ছাড়তেও চেয়েছিলেন তিনি। এছাড়াও সেখানে ছিল আধ্যাত্মিক প্রসঙ্গ ও সুশান্তের বিজ্ঞানমনস্কতার পরিচয়। নীতি আয়োগ থেকে নাসা, কৈলাস থেকে তপস্যা,সব বিষয়ই লিখেছিলেন তিনি। তিনি লিখেছিলেন, বিজ্ঞানের ভাষায় পিনাল গ্রন্থি এবং পুরাণের ভাষায় তৃতীয় চক্ষু একই।

Source : Indiatoday

তার লেখা থেকেই  তার জ্ঞানের পরিধির বিষয় আন্দাজ লাগানো যায়। মহাকাশের শূন্য থেকে নাসার গবেষণা,আধ্যাত্মিক জগৎ থেকে পদার্থবিদ্যার জ্ঞান, সবদিকেই যে অপরিসীম জ্ঞানের ভান্ডার এবং কৌতুহল ছিল তার, তা আবারও স্পষ্ট।

২০১৭ সালে সুশান্ত এবং কৃতী যখন একসাথে রাবতা ছবিতে অভিনয় করছিলেন তখন বি টাউনে তাদের সম্পর্ক নিয়ে অনেক কানাঘুষো শোনা গেলেও কেউই সেটা স্বীকার করেননি। এই চার্ট ২০১৮ সালে লেখা হয়েছিল, ফলে আবারও উঠছে তাদের সম্পর্কের কথায়।

Source : Indiatoday

প্রসঙ্গত, সুশান্তের অন্তিম যাত্রায় সঙ্গী হন কৃতীও। সুশান্ত এর বাবাও জানান যে সেদিন তার সাথে যেচেই কথা বলেছিলেন তিনি।সুশান্ত এর মৃত্যুর পরের দিনই তাকে নিয়ে লেখা কৃতীর পোস্ট চোখ ভিজিয়েছিল সব অনুরাগীদেরই।তার সেই পোস্টে তার এবং সুশান্তের আত্বিক সম্পর্ক প্রকাশ পায় বলেই মনে করেছেন অনেকেই।

কিন্তু সত্যিই যদি তারা সম্পর্কে ছিল তাহলে সেই সম্পর্কচ্ছেদের কারণ কি ছিল? কোনো তৃতীয় ব্যাক্তি? সে কি সারা আলী খান না রিয়া চক্রবর্তী? আর যদি তা নাই হয় তাহলে কোন কারণে ভেঙে গেল একটা সম্পর্ক?

Source : Indiatoday

এখনও এরকম অনেক প্রশ্নের জালেই জর্জরিত সুশান্তের মৃত্যু রহস্য। তা কি সত্যিই আত্মহত্যা নাকি কোনো গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছিলেন তিনি। এইসব প্রশ্নের উত্তর আগামী দিনে তদন্তের রিপোর্টই বলবে।