আগামী ৬০দিনে  SBI বন্ধ করছে ৪টি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা! এড়িয়ে গেলেই বিপদ

ভারতের সবচেয়ে বড় সরকারি ব্যাংক হল স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। এই ব্যাংকের পরিষেবা গ্রহণ করে কোটি কোটি গ্রাহক। তাই এই ব্যাংকের যেসব পরিষেবা বর্তমানে বাজারে চালু আছে, সেসব পরিষেবার মধ্যে কোন একটি পরিষেবা বন্ধ হলেই সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সকল ব্যাংকের গ্রাহকদের নানা অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয়। তাই আগে থেকে জেনে থাকলে সেই সব পরিষেবা বন্ধ হওয়ার আগে আমরা এসব সংক্রান্ত খবর পেয়ে অনেকটাই নিশ্চিন্ত থাকতে পারি ।আজকের প্রতিবেদনে আমরা সাম্প্রতিক এ ব্যাংকের এমন চারটি পরিষেবা নিয়ে কথা বলবো যা আগামী  দুই মাসের মধ্যে বন্ধ হতে চলেছে।

আগামী ৬০দিনে  SBI বন্ধ করছে ৪টি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা! এড়িয়ে গেলেই বিপদ

এটিএম থেকে টাকা তোলার উর্ধ্বসীমা

আগামী ৩১শে অক্টোবর এর মধ্যে ভারতের স্টেট ব্যাংক এটিএম এর মাধ্যমে টাকা তোলা ক্ষেত্রে যে সর্বোচ্চ সীমা ৪০ হাজার টাকা পর্যন্ত ছিল তা কমিয়ে কুড়ি হাজার টাকা করতে চলেছে। অর্থাৎ স্টেট ব্যাংকের সাধারণ ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে পূর্বে দৈনিক যে সর্বোচ্চ ৪০হাজার টাকা তোলা যেত তা পরবর্তী ক্ষেত্রে আর তোলা সম্ভব হবে না।

কেন এই নিয়ম?

কারণ হিসেবে ভারতের স্টেট ব্যাংক থেকে জানানো হয়েছে ,এটিএম কার্ড নিয়ে যেসব ক্ষেত্রে প্রতারণার ঘটনা ঘটেছে তাতে দেখা গিয়েছে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই  সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা তোলা হয়েছে প্রতারিতের অ্যাকাউন্ট থেকে। তাই আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত প্রতারণা কম করার উদ্দেশ্যে এমন এক পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। যদিও যারা কুড়ি হাজার টাকার বেশি একদিনে সর্বোচ্চ তুলতে চান, তারা এই ব্যাংকের অন্যান্য মানের এটিএম কার্ড ব্যবহার করে তুলতে পারবেন। অর্থাৎ সাধারণ এটিএম কার্ড ব্যবহার করে সর্বোচ্চ কুড়ি হাজার টাকার বেশি টাকা তোলা যাবে না আগামী ৩১ শে অক্টোবর এর পর থেকে।

আগামী ৬০দিনে  SBI বন্ধ করছে ৪টি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা! এড়িয়ে গেলেই বিপদ

SBI Buddy পরিষেবা

স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া অ্যাপ নির্ভর যে পরিষেবা বাজারে চালু করেছিল তা হল এসবিআই বাডি পরিষেবা। গত বছরের শেষ পর্যন্ত এই পরিষেবা সংক্রান্ত গ্রাহক ছিল প্রায় ১ কোটি ২০ লক্ষ। তাই যখন ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্ক ঘোষণা করলো এরকম একটি পরিষেবা আগামী দু’মাসের মধ্যে বন্ধ করতে চলেছে তখন যারা এই পরিষেবা গ্রহণ করে তাদের মধ্যে নানারকম আলোচনা শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে কাজে স্টেট ব্যাংক এর তরফ থেকে সকল বাডি পরিষেবা যুক্ত গ্রাহকদের তথ্য জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে তারা আগামী দু’মাসের মধ্যেই পরিষেবা বন্ধ হতে চলেছে। যদিও এখনো নিশ্চিত নয় যাদের এই অ্যাপ নির্ভর পরিষেবায় ব্যালেন্স আছে তাদের পরবর্তী ক্ষেত্রে সে ব্যালেন্স কিভাবে পাবে বা তারা কিভাবে অন্যান্য পরিষেবা পাবে। যদিও ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্কে তরফ থেকে তাদের গ্রাহকদের মোবাইল ওয়ালেট পরিষেবা” YO NO “পরিষেবা গ্রহণ করার কথা বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন : ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ড হারালে কী করবেন এবং কিভাবে উদ্ধার করবেন?

আগামী ৬০দিনে  SBI বন্ধ করছে ৪টি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা! এড়িয়ে গেলেই বিপদ

মোবাইল নাম্বার ছাড়া ইন্টারনেট ব্যাংকিং সুবিধা

ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্কে তরফ থেকে জানানো হয়েছে যেসব গ্রাহক মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যাংকিং করেন এবং যারা তাদের মোবাইল নাম্বার রেজিস্টার করার নি এখনো পর্যন্ত, মোবাইলে বা অন্য কোন ডিভাইসে ইন্টারনেট ব্যাংকিং পরিষেবার জন্য তারা পয়লা ডিসেম্বর ২০১৮ সালের পর থেকে  নেট ব্যাঙ্কিং করার সুবিধা পাবেন না ।অর্থাৎ  ইন্টারনেট ব্যাংকিং করার জন্য মোবাইল এর মাধ্যমে আপনাকে ডিসেম্বর মাসের আগেই আপনার মোবাইল নাম্বার ব্যাংকে রেজিস্টার করতে হবে অবশ্যই। না হলে আপনার নেট ব্যাংকিং পরিষেবা বন্ধ হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন : ঘরে বসেই খুলুন স্টেট ব্যাঙ্কের জিরো ব্যালেন্সের অ্যাকাউন্ট; জেনে নিন কীভাবে?

আগামী ৬০দিনে  SBI বন্ধ করছে ৪টি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা! এড়িয়ে গেলেই বিপদ

ম্যাগনেটিক স্ট্রাইপ যুক্ত এ টি এম কার্ড পরিষেবা

ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্কের তরফ থেকে তাদের সকল এটিএম কার্ড যুক্ত গ্রাহকদের জানানো হয়েছে যে, ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের নির্দেশ অনুযায়ী আগামী ৩১শে ডিসেম্বরের মধ্যে যে সকল গ্রাহকের ম্যাগনেটিক স্ট্রাইভ যুক্ত ডেবিট কার্ড আছে, তারা যেন তা ব্যাংকে পরিবর্তন করে ই এম ভি চিপ যুক্ত নতুন নিরাপত্তাসম্পন্ন ডেবিট কার্ড সংগ্রহ করে।

আরও পড়ুন : কোন ব্যাঙ্কের এটিএম কার্ডে সর্বাধিক কত টাকা তোলা যায়? জেনে নিন

৩১ডিসেম্বরের পর থেকে পুরানো ম্যাগনেটিক স্ট্রাইপ যুক্ত ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে টাকা তোলার বা অন্য কোনো পরিষেবা পাওয়া  যাবে না। আসলে এই পি এম ভি সি যুক্ত ডেবিট কার্ড স্কিমার ব্যবহার করে যে সকল এটিএম প্রতারণা করছে তা রোধ করার ক্ষেত্রে কার্যকরী এটিএম কার্ড তাই ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের তরফ থেকে সকল ব্যাংকে এই ধরনের এটিএম  কার্ড যুক্ত পরিষেবা ব্যবহার করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।