ঋদ্ধিমান ও সিংহরায় বাড়ির গোপন সত্যি ফাঁস করে দিল ‘ডি’, গাঁটছড়াতে আসছে জব্বর টুইস্ট

উড়ো চিঠিতে সিংহরায় বাড়ির গোপন কীর্তি ফাঁস করে দিল ডি, গাঁটছড়ায় এল মহাধামাকা টুইস্ট

জগদ্ধাত্রীর বিপরীতে ময়দানে টিকে থাকতে হলে স্টার জলসার (Star Jalsha) গাঁটছড়া (Gantchhora) সিরিয়ালের গল্প জমজমাট হতেই হবে। ধারাবাহিকের গল্পের কিছু দুর্বলতার কারণে ফাঁকা মাঠে এতদিন গোল দিয়ে আসছিল জি বাংলার জগদ্ধাত্রী। কিন্তু গাঁটছড়া এত সহজে টিআরপির ময়দান ছেড়ে দেবে না তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। ধারাবাহিক এখন একের পর এক যে টুইস্ট আসছে তাতে কার্যত দর্শকদের নজর ফেরানোর জো নেই।

ঋদ্ধিমান-খড়ি, কুণাল-বনি এবং রাহুল-দ্যুতি, ধারাবাহিকের তিন জুটিকে নিয়েই সমানতালে এগোচ্ছে গল্প। একদিকে বউয়ের কাছাকাছি থাকতে কুণাল রাজমিস্ত্রির ছদ্মবেশে এসে উঠেছে ভট্টাচার্য বাড়িতে। তাকে নিয়ে সিরিয়ালে বেশ মজার টুইস্ট চলছে। কুণালকে কেউ চিনতে পারছে না, ঋদ্ধিমান তো তাকে পুলিশের হাতে ধরিয়েই দিতে যাচ্ছিল। যদিও খড়ি সব সামলে নেয়।

gantchhora

এদিকে আবার রাহুলকেও জেল থেকে ছাড়িয়ে এনেছে দ্যুতি। আপাতত সকলের সঙ্গে সে ভাল ব্যবহার করছে। দ্যুতির মন আবার ফিরে পাওয়ার চেষ্টা করছে। এদিকে ঋদ্ধি-খড়িও এখন দুর্গাপূজোর আয়োজন নিয়ে ব্যস্ত। তাদের প্রেমের কাহিনীও তরতর করে এগোচ্ছে। এর উপর আবার এসে জুটেছে ’ডি’। সিংহরায় বাড়ি থেকে গয়নার বাক্স চুরি করাই তার লক্ষ্য। সেই সঙ্গে এই পরিবারটাকে তছনছ করে দিতে চায় সে।

‘ডি’ এর ষড়যন্ত্র আন্দাজ করতে পেরে বনি আগেই খড়িকে সাবধান করে দিয়েছে তার সম্পর্কে। এরই মধ্যে আবার খড়ির হাতে এসে পৌঁছেছে একটি উড়ো চিঠি। যেখানে লেখা ছিল খড়ির জেঠুর মৃত্যুর জন্য তারই কাছের কেউ দায়ী। এই চিঠি হাতে আসতেই ভট্টাচার্য বাড়ির পুরনো ক্ষত আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠলো।

খড়ির জেঠুর মৃত্যু হয়েছিল গাড়ি দুর্ঘটনায়। যদিও সেই মৃত্যুর পেছনে হাত ছিল ঋদ্ধিমানের কাকার। ঋদ্ধিমান নিজেও সেই দুর্ঘটনার সাক্ষী। সব মিলিয়ে পুরনো এই মামলার যদি আবার তদন্ত শুরু হয় তাহলে ঋদ্ধিমানের কাকার পাশাপাশি ঋদ্ধি নিজেও ফেঁসে যেতে পারে। অর্থাৎ খড়ির জেঠুর মৃত্যু মামলা ঋদ্ধি-খড়ির মাঝে সম্পর্ক আবার বিষিয়ে তুলতে পারে।

Here is Why Gantchhora Continuously gaining Top Position on TRP List

এদিকে চিঠি হাতে পেয়ে খড়ি আবার জেঠুর মৃত্যুর তদন্তের কেস রিওপেনের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে। অর্থাৎ এত বছর বাদে আবার সেই পুরনো মামলা নিয়ে সিংহ রায় পরিবারে একটা বড় ঝড় আসার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এটাই তো চেয়েছিল ‘ডি’। দর্শকরা অনুমান করছেন ‘ডি’ নিজেও এই পরিবারেরই সদস্য। সম্ভবত ‘দাদু-ঠাম্মি’র মেজ সন্তান এই ‘ডি’ যাকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল।