দীপান্বিতার সঙ্গে চূড়ান্ত খারাপ ব্যবহার, ‘অহংকারী’ গুনগুনকে ধুয়ে দিল নেটিজেনরা

প্রকাশ্য মঞ্চে দীপান্বিতাকে চূড়ান্ত অপমান, ‘অহংকারী গুনগুনের আচরণে বিরক্ত দর্শকরা

জমে উঠেছে স্টার জলসার (Star Jalsha) নতুন নাচের শো ডান্স ডান্স জুনিয়র (Dance Dance Junior)। খুদে প্রতিযোগীরা প্রত্যেকটি এপিসোডে এমন এমন দুর্ধর্ষ পারফরমেন্স রাখছে যে ক্রমে এই রিয়েলিটি শো থেকে চোখ ফেরানোই মুশকিল হয়ে যাচ্ছে দর্শকের জন্য। খুদে প্রতিযোগীদের নাচে মুগ্ধ দর্শকরা। কিন্তু বিচারক থেকে শুরু করে মেন্টরদের নিয়ে মাঝেমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয় সমালোচনা। এবার যেমন বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এলেন তৃণা সাহা (Trina Saha)।

স্টার জলসার এই রিয়েলিটি শোয়ের মঞ্চের ৩ জন মেন্টর হলেন অভিষেক বসু, তৃণা সাহা এবং দীপান্বিতা রক্ষিত (Dipanwita Rakshit)। এরা তিনজনই টেলিভিশনের চেনা মুখ। এদের মধ্যে একটা অলিখিত লড়াই শুরু হয়েছে। ক্যাপ্টেন বনাম ক্যাপ্টেনের প্রতিযোগিতা তো আছেই, তবে দুই মহিলা ক্যাপ্টেন সম্প্রতি প্রকাশ্য মঞ্চেই বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ায় অবাক হলেন দর্শকরা।

সম্প্রতি একটি পর্বে দেখানো হয় অনুষ্ঠান চলাকালীন দীপান্বিতা আচমকাই তৃণাকে ‘দিদি’ বলে সম্বোধন করে বসেন। এটা মোটেই পছন্দ হয়নি ‘খড়কুটো’র গুনগুনের। তাই পাল্টা তিনি রীতিমত অপমান করে বসেন দীপান্বিতাকে। তৃণা বলেন তিনি এখানে কারও দিদি নন। এই প্রতিযোগিতায় সকলেই সকলের প্রতিদ্বন্দ্বী। তার এই কথার মধ্যেই অপমানের ভঙ্গিমা খুঁজে পাচ্ছেন দর্শকরা।

দর্শকদের দাবী দীপান্বিতার প্রতি তৃণার এই আচরণ অনেকটাই দৃষ্টিকটু। বিষয়টিকে নিয়ে অনেকেই দীপান্বিতার পাশে দাঁড়াচ্ছেন। তৃণা যে তাকে সাধারণ একটি কথার জন্য এভাবে দুর্ব্যবহার করলেন তা দর্শকদের চোখে ভাল ঠেকেনি। দর্শকদের দাবি দীপান্বিতা সবেমাত্র টেলিভিশনের পর্দায় এসেছেন। ‘খুকুমণি হোম ডেলিভারি’র হাত ধরে মাত্র এক বছর আগেই তার এন্ট্রি হয়েছে পর্দায়।

Trina Saha Opens About Khorkuto and Dwindling TRP

অন্যদিকে তৃণার অভিনয়ে আসা বেশ কয়েক বছর হয়ে গেল। খোকাবাবু, কলের বউ থেকে খড়কুটো, বেশ কয়েকটি সিরিয়ালেও অভিনয় করে ফেলেছেন তিনি। তাই দীপান্বিতা যদি তাকে ‘দিদি’ বলেই থাকেন, তাহলে তাতে অন্যায় কিছু দেখছেন না দর্শকরা। উল্টে দীপান্বিতার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করার জন্য তৃণাকেই পাল্টা ধুয়ে দিচ্ছেন তারা।

তৃণাকে সোশ্যাল মিডিয়াতে আবার তর্কাতর্কি শুরু হয়ে গিয়েছে। তাকে ‘অহংকারী’, ‘বেয়াদপ’, ‘দাম্ভিক’ও বলা হচ্ছে। যদিও কেউ কেউ মনে করছেন রিয়েলিটি শোয়ের সবই তো স্ক্রিপ্টেড। দুই ক্যাপ্টেনের মধ্যে অহেতুক এই ঝামেলাটাও আসলে টিআরপি বাড়ানোর কৌশল। এর কোনও বাস্তব ভিত্তি নেই। আদতে তৃণা এবং দীপান্বিতা দুজনেই একে অপরের খুব ভাল বান্ধবী। স্রেফ টিআরপির জন্যই তাদের এখানে শত্রু হিসেবে উপস্থাপন করা হচ্ছে।