মিঠাইয়ের জন্য ধূলোকণাকে অপমান! প্রকাশ্যেই ফ্যানদের তুলোধোনা করলেন সৌমিতৃষা

মিঠাইকে ভালোবাসা জানাতে গিয়ে ধূলোকণার অপমান, মেনে নিলেন না সৌমিতৃষা

বিগত বেশ কয়েক মাস ধরেই টিআরপি তালিকায় প্রথম স্থান ধরে রেখেছে মিঠাই (Mithai)। মিঠাইয়ের অবস্থান থেকে কিছুতেই সরানো যাচ্ছে না তাকে। মিঠাইয়ের টাইম স্লটের অন্যান্য ধারাবাহিক তো দূরের কথা, তিন তিনটে বাংলা ধারাবাহিকের চ্যানেলের একটিও ধারাবাহিক মিঠাইয়ের সমকক্ষ নয়। মিঠাইয়ের স্লটে স্টার জলসায় শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক ‘ধূলোকণা’ (Dhulokona)। মিঠাইকে টেক্কা দিতে না পারলেও ধূলোকণার টিআরপিও নেহাত মন্দ নয়।

মিঠাই ফ্যানেরা মিঠাইকে নিয়ে কিন্তু বেশ অবসেসড। পছন্দের ধারাবাহিকের সমর্থনে তারা ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ফ্যান পেজ খুলে ফেলেছেন। ফ্যান পেজের তরফ থেকে হামেশাই মিঠাইয়ের সমর্থনে বিভিন্ন পোস্ট করা হয়ে থাকে। তাতে অংশ নেন বাকিরাও। কিন্তু এভাবে চলতে চলতে যখন ফ্যানেদের অবসেশন সৌজন্যতার মাত্রা ছাড়িয়ে যায় তখন তো তার প্রতিবাদ করতেই হয়! তেমনটাই করলেন খোদ মিঠাই ওরফে সৌমিতৃষা কুন্ডু (Soumitrisha Kundu)।

জি বাংলার মিঠাই আর স্টার জলসার ধূলোকণা। ফ্যানেদের বিচারে এগিয়ে কে? জানার জন্য জনৈক মিঠাই ফ্যান পেজের তরফ থেকে একটি পোস্ট করা হয়েছিল। সেখানে মিঠাই-সিদ্ধার্থ এবং লালন-ফুলঝুরির ছবি দিয়ে মিঠাই জুটির জন্য লাভ রিয়্যাক্ট দিতে এবং লালন-ফুলঝুরির জুটির জন্য হাহা রিয়্যাক্ট দেওয়ার কথা বলা হয়। মিঠাই ফ্যানেরা এই খেলাতে অংশগ্রহণও করছিলেন। এই সম্পূর্ণ বিষয়টি সৌমিতৃষার দৃষ্টি এড়ায়নি।

মিঠাইরানী ওরফে সৌমিতৃষার কিন্তু এই ভোটাভুটি মোটেই পছন্দ নয়। তাই তিনি ওই পোস্টের নিচে কমেন্ট করে দেন, “একই স্লটের হলেও কেউ হাহা রিয়াক্ট দেবেন না! সবাই কষ্ট করে কাজ করে তাই না! সৌমিতৃষা ফ্যান ক্লাবের থেকে এমনটা আশা করা যায় না।” মিঠাইয়ের তরফ থেকে বকুনি খেয়েও কার্যত তা মোটেও খারাপ লাগেনি ভক্তদের। বরং এমন প্রতিক্রিয়া পেয়ে তার প্রতি সম্মানের ভাব তাদের আরও বেড়েছে।

সৌমিতৃষার এমন উত্তরে দর্শক কার্যত মুগ্ধ। বিশেষত মিঠাই ফ্যানদের মিঠাইকে নিয়ে গর্বে বুক ভরছে। সহকর্মীদের প্রতি তিনি যে তার মনে কতটা শ্রদ্ধা এবং সম্মান পোষণ করেন তা এভাবেই সকলের কাছে স্পষ্ট হয়ে গেল। লালন এবং ফুলঝুরি, অর্থাৎ ইন্দ্রাশিষ রায় এবং মানালি দে সৌমিতৃষার সহকর্মী। উপরন্তু তারা তার সিনিয়র অভিনেতা এবং অভিনেত্রীও বটে। অতএব তার ফ্যান পেজের তরফ থেকে তাদের কোনও রকম অসম্মান হোক, এমনটা চান না তিনি। তাই মিষ্টি মিঠাইয়ের মিষ্টি বকুনিতে মন ভরছে দর্শকের।