সর্দি জ্বরে কষ্ট পাচ্ছে ‘মিঠাই’, বউকে জোর করে ওষুধ খাইয়ে দিল উচ্ছে বাবু

বাড়িতে পুজো। ঘরভর্তি লোকজন। পুজোর আয়োজনের সব দায়-দায়িত্ব বাড়ির নতুন বৌমা মিঠাইয়ের (Mithai) কাঁধে। এদিকে জ্বর বাঁধিয়ে বসে আছে মিঠাই রানী। তবুও নিজের শরীর খারাপের কথা কারোকেই জানায়নি সে। সর্দি-জ্বরে কাহিল মিঠাই। এমন পরিস্থিতিতে স্ত্রীকে বাড়িতে ফেলে রেখে ট্রেকিংয়ে যায় কিভাবে উচ্ছেবাবু? তাই যাওয়া ক্যান্সেল।

শুধু কি তাই? অবাধ্য মিঠাইকে জোর করে ওষুধও খাইয়ে দিল উচ্ছেবাবু! বিয়ের পর সিদ্ধার্থ এবং মিঠাইয়ের কেমিস্ট্রি আরও জমজমাট। সিদ্ধার্থ-মিঠাইয়ের মধ্যে এমনই দুষ্টু-মিষ্টি সম্পর্ক দেখতে চেয়েছিলেন দর্শক। তাই তো বাড়িতে এত ভিড়ের মাঝেও বউয়ের খেয়াল রাখতে অবহেলা করছে না সিড।

বাড়িতে অতিথি সমাগম হতেই মাথা ধরেছে সিদ্ধার্থের। তাই নিজের ‘স্পেস’ বজায় রাখতে পুজোর আগেই সে বাড়ি ছেড়ে পাহাড়ে ট্রেকিংয়ে বেরিয়ে পড়তে চেয়েছিল। তবে শেষ মুহূর্তে এসে তার প্ল্যান গেল বদলে। ট্রেকিংয়ে যাওয়ার আগের মুহূর্তে যখন সে জানতে পারে মিঠাইয়ের সর্দি-জ্বর হয়েছে, তখন সে আর যেতে পারে না। বাড়ি থেকে বেরোলেও শেষমেষ মিঠাইয়ের কথা ভেবে সে ফিরে আসে।

ফিরে এসেই মিঠাই রানীকে জ্বর বাঁধানোর জন্য বকাবকি করতে শুরু করে উচ্ছে বাবু। তারপর ঘরে গিয়ে তার জন্য ওষুধ নিয়ে আসে নিজেই। তুফান মেল অবশ্য সামান্য সর্দি-জ্বরে কাহিল হওয়ার মেয়ে নয়! তাই মিঠাই বলে, ‘মিঠাই এত দুর্বল নয় যে তাকে সামান্য সর্দি-জ্বর কাবু করে ফেলবে! আমি ওষুধ খাব না’। তখনই অবাধ্য মিঠাইকে জোর করে ওষুধ খাইয়ে দিল সিদ্ধার্থ।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by ZEE5 Bangla (@zee5_bangla)

মিঠাইয়ের প্রতি সিদ্ধার্থের এত যত্ন এবং খেয়াল দেখে নেটিজেনরা তো বেজায় খুশি। মিঠাই নিজেও তার প্রতি উচ্ছেবাবুর চিন্তা দেখে আপ্লুত। পুজোর আগের রাত জেগে কাটানোরই প্ল্যান ছিল মিঠাইয়ের। কিন্তু সিদ্ধার্থ তাকে জোর করে বকে ঘুম পাড়িয়ে দেয়। শুধু তাই নয়, মিঠাইয়ের যাতে ঘুমোতে আর কোনও অসুবিধা না হয় তার জন্য সারারাত মিঠাইয়ের মাথার কাছে জেগে বসেও থাকে সিদ্ধার্থ। মিঠাই-সিদ্ধার্থের প্রেম দেখে নেটিজেনদের মন ভরে উঠছে। ধারাবাহিকের এই অংশ নেট মাধ্যমে তুমুল ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল সেই ভিডিও দেখুন এই প্রতিবেদন মারফত।