পাকিস্তানের টিভি সিরিয়ালে চলছে রবীন্দ্র সঙ্গীত, সম্প্রীতির সুরে মুগ্ধ বাঙালি

জাতি, ধর্ম, দেশ, কাল, পাত্রের ঊর্ধ্বে তাঁর অবস্থান। সারাবিশ্ব তাঁর গুণগ্রাহী। তাঁর রচনা সারা বিশ্বের সমীপে মহামূল্যবান সম্পদ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এই ভারত সন্তানের গর্বে গর্বিত ভারত-বর্ষ। শতবর্ষ পেরিয়েও তাঁর রচিত কবিতা, গান, গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ সাহিত্যের জগতে সমানভাবে সমাদৃত। ভবিষ্যতেও সারা বিশ্বের কবি-সাহিত্যিক, ঔপন্যাসিকদের তালিকায় তার নাম থাকবে সর্বাগ্রে। তিনি বাঙালির কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

বাঙালির রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নির্দিষ্ট কোনও সীমানায় আবদ্ধ করে রাখা যায় না। বাংলা তথা ভারত তথা সারা বিশ্বের কবি তিনি! দেশের সীমানার গণ্ডিতে তাঁকে আবদ্ধ করে রাখবে, এমন সাধ্যি কার? নোবেল পুরস্কারপ্রাপ্ত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নিজের জীবনের শত শত গান বেঁধেছেন। তাকে ছাড়া সঙ্গীতজগত অসম্পূর্ণ। এহেন কবির প্রতি শ্রদ্ধাশীল ভারতের প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলিও। ভারতের সঙ্গে তাই যতই বৈরিতা থাকুক না কেন, রবীন্দ্রনাথের প্রতি অসম্মান প্রদর্শন করার প্রবণতা ভারতের শত্রুরাষ্ট্রেরও নেই।

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ভারতের সঙ্গে পাকিস্তানের মতভেদ সারা বিশ্বের অজানা নয়। তবে এই দুই মেরুর প্রতিবেশী রাষ্ট্রকে একসূত্রে যিনি বেঁধে রেখেছেন, তিনিই রবীন্দ্রনাথ। উভয়ই রাষ্ট্রের সীমানার ঊর্ধ্বে, সাম্প্রদায়িক মতভেদ ভুলে তাই এই একবিংশ শতাব্দীতেও পাকিস্তানের টেলিভিশন সিরিজে বেজে ওঠে রবীন্দ্রনাথের গান!

Dil Kya Karay serial

২০১৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত, জিও টিভিতে সম্প্রচারিত, মেহরীন জব্বর পরিচালিত পাকিস্তানি টেলিভিশন সিরিজ “দিল ক্যায়া করে”তে একাধিকবার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের রচিত “আমার পরাণ যাহা চায়” গানটি ব্যবহার করা হয়েছে! পাকিস্তানের জনপ্রিয় সংগীত তারকা শাদাজ আলি “দিল ক্যায়া করে” সিরিজের সঙ্গীত পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন। পাটারি মিউজিকে শর্বরী দেশপাণ্ডে গেয়েছেন এই গান।

টুইটারের একজন বাঙালি ইউজারের চোখে ধরা পড়েছে সেই দৃশ্য। যা তিনি টুইটারে শেয়ার করেছেন। পাকিস্তানি টেলিভিশন সিরিজে রবীন্দ্র সংগীতের ব্যবহার দেখে স্বভাবতই আপ্লুত ভারতবাসী। ৩০টি এপিসোডের এই টেলিভিশন সিরিজ ভারতীয় ওটিটি প্লাটফর্ম এমএক্স প্লেয়ারে রয়েছে। এক ত্রিকোণ প্রেমের কাহিনীকে কেন্দ্র করে এগিয়ে চলেছে গল্পের গতিপথ।

“আরমান”, “আইমান” এবং “সাদি” ধারাবাহিকের গল্পের প্রধান তিন চরিত্র। গল্পের নায়িকা “আইমান”কে একইসঙ্গে ভালোবেসে ফেলবেন দুই বন্ধু “আরমান” ও “সাদি”। “আইমান”ও প্রথমে “সাদি”কেই পছন্দ করতে শুরু করবেন। একজন প্রকৃত বন্ধু এবং প্রেমিকের মত “আরমান”ও দুজনের সিদ্ধান্তকেই মেনে নেবেন। তার পরেই দর্শকের জন্য অপেক্ষা করে আছে টুইস্ট। ধারাবাহিকে “আরমান” এর চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফেরোজ খান, “আইমান” এর চরিত্রে ইয়ুমনা জায়দি এবং “সাদি”র চরিত্রে অভিনয় করেছেন মির্জা জাইন বাগ।