করোনা সেরে ওঠা রোগীরা ভুগছেন মানসিক রোগে, অক্সফোর্ডের গবেষণায় চাঞ্চল্যকর তথ্য

Corona Symptom

বিশ্বজুড়ে কোরোনা (Corona) মহামারী।ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কার পাশাপাশি অর্থনৈতিক সংকট,লক ডাউনে ঘরবন্দী প্রভৃতি বিভিন্ন পরিস্থিতির সন্মুখীন হতে হয়েছে মানুষকে এই কিছু মাসে।প্রতিনিয়ত বিশ্ব জুড়ে মৃত ও আক্রান্তের অঙ্কটা বেড়েই চলেছে।

অন্যদিকে এখনও সঠিক ভ্যাকসিন কবে বেরোবে, তা পরিষ্কার পরিষ্কার করে বলতে পারছেন না কেউই।ফলে কোরোনা ভাইরাস (Corona Virus) এবং তার আতঙ্ককে সঙ্গী করেই New Normal জীবনে ফিরতে চেষ্টা করছে মানব সভ্যতা।

এমন পরিস্থিতিতে ব্রিটেনের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির (Oxford University) গবেষণার রিপোর্টে প্রকাশ পেয়েছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য।এও রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, প্রতি ৫ জনের ১জন কোরোনা আক্রান্ত মানুষ শিকার হচ্ছেন মানসিক অসুখের (Mental desease)।

এই বিষয় বিশেষজ্ঞদের দাবি, মোট কোরোনা (Corona) আক্রান্ত ব্যাক্তিদের ২০ শতাংশই সেরে ওঠার ৩ মাসের মধ্যেই Anxiety, Depression,Insomnia এমনকি Dementia এর মতন মানসিক বিকারের শিকার হচ্ছেন।

এই গবেষণার সাথে যুক্ত অধ্যাপক পল হ্যারিসন (Paul Harrison) জানান,অক্সফোর্ডের তরফ থেকে আমেরিকায় ৭কোটি আক্রান্ত মানুষের ওপর এই সমীক্ষা করা হয়েছে।বিশেষজ্ঞদের কথায়, অসুস্থ শরীর যে মনের ওপর প্রভাব ফেলবে সেটাই স্বাভাবিক।

আবার ব্যাক্তি যদি কোনও মহামারীর শিকার হন, সেক্ষেত্রে নানারকম খেয়ালে ব্যাক্তি ভয় পেতে থাকে এবং মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর এর ভীষন নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।

অন্যদিকে আগে কোনওরকম অসুস্থতা কাটিয়ে ওঠার পরে সমাজের অন্যান্য মানুষদের সাথে মেলামেশা মানুষকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে সাহায্য করতো,কিন্তু এই মহামারী অসুস্থতার পরে মানুষকে সম্পূর্ণ একা করে দিচ্ছে।এরফলে অসুস্থ্যতা কালীন মানসিক উদ্বেগ কাটাতে অসুবিধা হচ্ছে মানুষের। ফল, বিভিন্ন মানসিক অসুস্থ্যতা।

গবেষকদের মতে, সংক্রমন ব্যাধির জেরে মানুষের জীবনযাত্রা বিপন্ন হওয়ার ঘটনা নতুন নয়। আধুনিক চিকিৎসাব্যবস্থার পূর্ববর্তী যুগে এই সংক্রমন ব্যধিগুলোই মানবসভ্যতার সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল।এর ফলে দীর্ঘদিন তৎকালীন মানুষেরা শিকার করা,চাষ করা, মাছ ধরার মতন দৈনন্দিন কাজ সঠিকভাবে করতে পারতেন না।

এর ফলে সমাজের সামগ্রিক ক্ষতি হতো।এই সংক্রমন ব্যধিগুলো যেমন একদিকে মানুষের শরীর দূর্বল করে তোলে তেমনই মানসিক ভাবেও মানুষকে বিপর্যস্ত করে তোলে যার ফলে সমগ্র সমাজব্যবস্থার ভীত নড়ে যায়।

এই কারণে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন কোরোনা (Corona) শুধুমাত্র শারীরিক মহামারী নয়, বরং মানসিক মহামারীতেও পরিণত হচ্ছে। কোরোনা থেকে সুস্থ্য হওয়ার পরবর্তী সময় কাউন্সিলিং এর পরামর্শও দিচ্ছেন অনেকেই।