‘আমি হলে আমার সন্তানের বাবার নাম প্রকাশ্যে আনতম’ : মধুমিতা

Yash Dasgupta Nusrat Jahan Madhumita Sarcar

টলিউড (Tollywood) অভিনেত্রী নুসরাত জাহান (Nusrat Jahan) এবং অভিনেতা যশ দাশগুপ্তের (Yash Dasgupta) ব্যক্তিগত সম্পর্ককে কেন্দ্র করে নেট মাধ্যমে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি এখনো অব্যাহত। নুসরাতের সন্তানসম্ভাবনা প্রসঙ্গ যবে থেকে উত্থাপিত হয়েছে, তবে থেকেই নেট মাধ্যমে যশকে নিয়ে জল্পনার পারদ চড়ছে। নুসরাতের হবু সন্তানের পিতৃত্বের দায় অবশ্য এখনও প্রকাশ্যে স্বীকার করেননি যশ। তবে নেটিজেনরা কিন্তু সেই বিষয়ে ১০০ ভাগ নিশ্চিত।

সন্তানের পিতৃত্বের দায় কার? হাজার বার এই প্রশ্নের সম্মুখীন হলেও মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছেন অভিনেত্রী। তবে তিনি চুপ করে থাকলেও তার হয়ে মুখ খুললেন টলিউডের আরেক অভিনেত্রী মধুমিতা সরকার (Madhumita Sarcar)। নুসরাত প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মধুমিতা বলেন, “নুসরত সাহসী মেয়ে, এবং মা হওয়ার সিদ্ধান্তটা ওঁর একটা সাহসী পদক্ষেপ। অবশ্যই বলব নুসরতের প্রেগন্যান্সি গ্লো সত্যি ওকে আরও সুন্দরী করে তুলেছে। বেবি বাম্পটাই যা দেখা যাচ্ছে, এর বাইরে শরীরের অন্য কোথাউ একফোঁটা বেবি ফ্যাট চোখে পড়ছে না। শুনছি শ্যুটিং সেটেও একইরকম এনার্জি নিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে… হ্যাটস অফ!”

মধুমিতা এও জানিয়েছেন, তিনি নিজে হলে এমন সাহসী পদক্ষেপ নিতে পারতেন না। কারণ, সমাজের বেড়াজাল তাকে সেই পদক্ষেপ নিতে বাধা দিত। বিয়ে না করে সন্তানের মা হওয়া প্রসঙ্গে মধুমিতার বক্তব্য, “আমি কোনওদিন ওঁর মতো এমন একটা সাহসী পদক্ষেপ নিতে পারব না, কারণ আমাদের সমাজে এই বিষয়টা নিয়ে অনেক ছুঁৎমার্গ রয়েছে”। “ব্যক্তিগতভাবে এটা বলতে পারি, আমি নিজে বিয়ের বাইরে সন্তানের জন্ম দেওয়ার সিদ্ধান্তে বিশ্বাসী নই, কারণ আমার মনে হয় আমাদের দেশে, বিশেষত কলকাতায় মানুষের মানসিকতা এখনও এতটা স্বাধীন হয়েছে যে তাঁরা এই সিদ্ধান্তটা সাদরে গ্রহণ করবে”, বললেন ছোটপর্দার ‘পাখি’।

তবে নুসরাতের ব্যক্তিগত জীবন প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “এই ব্যাপারে নুসরত কোনওরম আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়নি, যে এটা ওর বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কের সন্তান কিনা, অথবা সিঙ্গল মাদার হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েও নুসরত কিছু বলেনি। তাই আমি এই নিয়ে কিছু বলব না, এটা ওর জীবন, এবং আমি কেউ নই ওকে বিচার করবার। তবে তিনি এও বলেছেন, যদি আমি অন্তঃসত্ত্বা হই,তবে আমি চাইব আমার ভাবী সন্তানের বাবার নামটাও সকলে জানুক কারণ সেটা আমাদের দুজনের সন্তান, দুজনের দায়িত্ব। আমার সাহসিকতার জন্য আমার সন্তান কষ্ট পাবে সেটা আমি কোনওদিন চাইব না”।

উল্লেখ্য অভিনেত্রী মধুমিতা সরকারের ব্যক্তিগত জীবনও এই মুহূর্তে দোলাচলে রয়েছে। তার স্বামী সৌরভ চক্রবর্তীর (Sourav Chakraborty) সঙ্গে তার আইনত বিবাহ-বিচ্ছেদের প্রক্রিয়া চলছে। তবে সন্তান এবং গর্ভধারণ প্রসঙ্গে মধুমিতার বক্তব্য, “আমি তখনই মাতৃত্বকে আলিঙ্গন করতে চাইব যখন আমার সন্তান বাবা-মা উভয়ের কাছেই ভালোবাসা পাবে। আমি যদি মা হই,তাহলে যাই হোক না কেন, আমি সেই বিয়ে ছেড়ে কোনওদিন বেরিয়ে আসব না”।

প্রসঙ্গত, মধুমিতা এবং নুসরাতের মধ্যে যশ হলেন কমন লিংক। দুজনেই অন স্ক্রীন যশের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন। অফস্ক্রিনে নুসরাতের সঙ্গে যশের সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন উঠলেও অন-স্ক্রীন ‘অরণ্য-পাখি’ অর্থাৎ মধুমিতা এবং যশের কেমিস্ট্রি দর্শককে প্রভাবিত করেছিল। দর্শক আজও এই জুটিকে একসঙ্গে দেখতে চান। শোনা যাচ্ছে, যশ নাকি আবার ছোট পর্দায় কাজ করতে চলেছেন। মধুমিতা এখনই টেলিভিশনের পর্দায় ফিরতে নারাজ। অন্তত আগামী ১০ বছর তিনি সিনেমার পর্দাতেই কাজ করতে চান।

মাঝে অবশ্য সৌমিক হালদারের ডেবিউ ছবিতে যশ এবং মধুমিতার একসঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করার কথা হয়েছিল। তবে সেই পরিকল্পনা স্থগিত হয়ে যায় কারণ সেই সময় অভিনেত্রী ব্যক্তিগত জীবনে সমস্যায় ছিলেন। “আসলে ওই সময় আমার ব্যক্তিগত জীবনে এতোকিছু চলছিল… আমি খুব স্ট্রেসের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলাম। হিরোইন হয়ে যশের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করবার মতো পরিস্থিতিতে আমি ছিলাম না, তাই সেটা স্থগিত হয়ে যায়” , জানালেন মধুমিতা।