কোয়েলকে প্রেমের প্রস্তাব দেন গৃহশিক্ষক, এরপর যা হয়েছিল মল্লিকবাড়িতে

প্রাইভেট টিউটরের থেকে প্রেমের প্রস্তাব পেয়ে কী করেছিলেন কোয়েল

বাংলা সিনেমা (Bengali cinema) ইন্ডাস্ট্রিতে রঞ্জিত মল্লিক (Ranjit Mallick) এবং তার কন্যা কোয়েল মল্লিক (Koel Mallick) দুজনেই সুপারস্টার। রঞ্জিত মল্লিকের কন্যা হিসেবে নয়, কোয়েল মল্লিক ইন্ডাস্ট্রিতে তার জায়গা করে নিতে পেরেছেন পুরোটাই নিজের প্রতিভার জেরে। ছোট থেকেই বাবা-মায়ের কড়া অনুশাসনে বড় হয়েছেন কোয়েল। কলকাতার মল্লিক পরিবারের মেয়ে কখনও পরিবারের ঐতিহ্যের গায়ে আঁচড় লাগতে দেননি। বরং উজ্জ্বল করেছেন পরিবারের মুখ।

সম্প্রতি কোয়েল বনি সেনগুপ্তের সঙ্গে আড্ডায় বসেছিলেন। সেখানে জীবনের অনেক অজানা কথা তিনি তুলে ধরেন। কোয়েল মল্লিক আসলে তার ব্যক্তিগত জীবন বরাবর প্রচারের বাইরে রেখেছেন। কিন্তু আড্ডার ছলে তিনি এমন বেশ কিছু অজানা কথা তুলে ধরেন যা জেনে বেশ মজা পেয়েছেন ভক্তরা। কোয়েল আড্ডার সময় ছোটবেলায় গৃহ শিক্ষকের থেকে পাওয়া প্রেম প্রস্তাবের গল্পও শুনিয়েছেন বনিকে।

আসলে বনিই তাকে প্রশ্ন করেছিলেন, “তোমাকে নাকি প্রাইভেট টিউটর প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিল?” এই প্রশ্নে বেশ অবাক হয়ে গিয়েছিলেন কোয়েল। তিনি পাল্টা জিজ্ঞেস করেন, “তোমার সোর্স এটাও জানে?” তারপর নিজে থেকেই বলেন সেই সময় ঠিক কী ঘটেছিল। কোয়েল জানিয়েছেন তখন তিনি ক্লাস সেভেনে পড়েন। তার সায়েন্স টিচার তখন সবে কলেজ থেকে পাশ করেছেন এবং চাকরি খুঁজছেন।

এই সময় একদিন তার সেই শিক্ষক তাকে পড়াতে এসে বলেন, “তোমাকে আজকে একটা কথা বলব। আগে আজকের পড়া শেষ করে নাও তারপর।” কোয়েল তার মনের কথা বুঝতে পারেননি। তিনি ভেবেছিলেন হয়তো মাস্টারমশাই নতুন কোনও চাকরি পেয়েছেন। সেই সুখবর তিনি শোনাতে চান। তাই তিনি জোরাজুরি করতে থাকেন। কিন্তু শিক্ষক বলেন তিনি পড়ানোর শেষেই সবকিছু বলবেন। নয়তো সেদিনের পড়াটা এতে নষ্ট হয়ে যাবে।

কোয়েলের কথায়, ‘‘যথারীতি পড়া শেষ হল। আর উনিও বললেন সেই থ্রি ম্যাজিকাল ওয়ার্ডস। শুনে তো আমার মুখ সাদা। ভয় করতে শুরু করেছিল। উনি আমাকে সেকথা বলে নীচে নেমে গেলেন। রোজ আমি ওঁর সাথেই নামতাম। মা খবর নিত কতটা পড়া হল, কী পেরেছি, কী পারিনি। সেদিন আর আমার নামার সাহস হয়নি। পরে শিক্ষক চলে যেতে মাকে সবটা বললাম।’’

এরপর যা করার সেটা কোয়েলের মা দীপাই করেছিলেন। তিনি সেই শিক্ষককে আর কখনও পাড়াতে ঢুকতেও দেননি। তবে এই ব্যাপারে বাবা রঞ্জিত মল্লিকের সঙ্গে মেয়ের কোনও কথা হয়নি। তবে তার মা হয়ত বলে থাকতে পারেন, এমনটাই মনে করেন কোয়েল। একথা শুনে বনি মজা করে বলে ওঠেন, ‘‘হ্যাঁ শুনলেই চাবকে চামড়া তুলে নিত”!