শিমুলকে জব্দ করতে ঘরে মেয়ে নিয়ে এলো পরাগ! টিভির আগেই ফাঁস ধুন্ধুমার পর্ব

বেডরুমের দরজা বন্ধ করে ছাত্রীর সঙ্গে নোংরামি! কার কাছে কই মনের কথা গল্পে এলো নতুন টুইস্ট

কোন কুট কাচালি নয় বরং একেবারে আপনার এবং আমাদের বাড়ির দৃশ্য যেন তুলে ধরা হয়েছে জি বাংলা (Zee Bangla) -র ‘কার কাছে কই মনের কথা’ (Kar Kache Koi Moner Kotha) ধারাবাহিক (Mega Serial) -র মাধ্যমে। শিমুলের উপর এখন অত্যাচার করতে পারছে না পরাগ এবং পলাশ বরং উল্টে শিমুলের হাতের পুতুল হয়ে গেছে তারা। শিমুলকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলার অপরাধে ৫ লক্ষ টাকা মাশুল গুনতে হয়েছে পরাগকে। কিন্তু যতই শাস্তিই হোক না কেন পরাগের স্বভাব পাল্টানোর নয়। এবার বাড়িতে ছাত্রী পড়ানোর নাম করে লীলাখেলা শুরু করে দিল পরাগ।

সম্প্রতি ধারাবাহিকে আমরা দেখতে পেয়েছি, শিমুলকে দুর্গাপূজার সময় বিষ খাওয়ানোর চেষ্টা করেছে পরাগ, পলাশ এবং প্রতীক্ষা। শিমুলকে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হলে সে প্রাণে বেঁচে যায় ঠিকই, কিন্তু ততক্ষণে সে বুঝতে পারে তার এই অবস্থার জন্য কে বা কারা দায়ী। বাড়িতে এসে সে ঠিক করে অপরাধীদের সাজা দেবে কিন্তু একেবারেই অন্যভাবে।

Kar Kache Koi Moner Kotha

পরাগ এবং পলাশের থেকে ৫ লক্ষ টাকা দাবি করে শিমুল। শুধু তাই নয়, এবার থেকে পরাগকে তার মাইনের অর্ধেকটা তুলে দিতে হবে শিমুলের হাতে। প্রথমদিকে অবশ্য এই সিদ্ধান্তে একেবারেই বিরক্ত হয়েছিলেন শিমুলের শাশুড়ি মধুবালাদেবী। অসন্তুষ্ট হয়েছিলেন শিমুলের পাড়ার বন্ধুরাও। কিন্তু যখন সকলে শুনতে পায় শিমুল এই টাকাটি তার একমাত্র ননদের জন্য পোস্ট অফিসে জমা করেছে তখন সবার ভুল ভেঙ্গে যায় এবং হাতজোড় করে সবাই শিমুলের থেকে ক্ষমা চেয়ে নেয়।

কিন্তু এর মধ্যেই চলে এলো গল্পে নতুন মোড়। পাড়ার তরফ থেকে দুর্গা পুরস্কারে ভূষিত হয়ে শিমুল যখন বাড়িতে আসে তখন শিমুল এবং তার শাশুড়ি জানতে পারে,পরাগের কাছে পড়াশোনা করতে এসেছে তার নতুন ছাত্রী। পরাগের এই নতুন ছাত্রীকে দেখে একেবারেই সুবিধের মনে হয়নি শিমুলের, তাই শিমুল প্রথমেই জিজ্ঞাসা করেছে, পরাগ তো অনেক আগেই বিএসসি পাস করেছে। সে কি করে পড়াতে পারবে?

Kar Kache Koi Moner Kotha

আরও পড়ুন : মোটা মাইনের চাকরি ছেড়ে অভিনয়! প্রসেনজিতের সিরিয়ালের নায়িকা হয়ে ফিরছেন ‘মেয়েবেলা’র মৌ

শিমুলের এই কথার উত্তরে মেয়েটি তখন জানায়, পরাগ তাকে শুধুমাত্র অংক করাবে। এরমধ্যেই পরাগ সেখানে চলে আসে এবং ছাত্রীকে নিয়ে নিজের ঘরে চলে যায়। বেডরুমে ছাত্রীকে নিয়ে পড়ানোর ব্যাপারটি নিয়ে শিমুল এবং মধুবালা দেবী আপত্তি করলেও পরাগ কোন কথা কানে দেয় না। দাদার পক্ষ নিয়ে কথা বলতে শোনা যায় পলাশকেও। এর মধ্যেই দেখা যায় পরাগ এবং তার নতুন ছাত্রীর মধ্যে বেশ ভালই বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছে।

আরও পড়ুন : বাস্তবেও মাথাগরম! অত্যাচার করেন স্ত্রীকে? স্বামীর কীর্তি ফাঁস করলেন পর্দার ‘পরাগে’র স্ত্রী

Kar Kache Koi Moner Kotha

আরও পড়ুন : চোখের সামনে অত্যাচারিত হতে দেখেছেন মাকে! ‘অলকা’ পিয়ালির জীবন সিনেমার থেকে কম নয়

পড়াতে পড়াতেই ছাত্রীর পছন্দ এবং অপছন্দের কথা জানতে চেষ্টা করে পরাগ। শুধু তাই নয়, ছাত্রীর সহানুভূতি পাওয়ার জন্য নিজের জীবনের দুঃখের মিথ্যা কাহিনী বলতে শুরু করে দেয় পরাগ। পরাগের কথার মধ্যেই জানা যায় এই নতুন ছাত্রীটি আসলে প্রতীক্ষার আমদানি। বোঝাই যাচ্ছে কোন একটি বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে সে এই বাড়িতে এসেছে। শিমুল কি পারবে নিজের পরিবারকে রক্ষা করতে? পরাগ কি নিজের ভুল বুঝতে পারবে? গল্পের মোড় এবার কোন দিকে বয়ে যাবে তা দেখার জন্য আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে আমাদের।

আরও পড়ুন : ‘ইচ্ছেপুতুল’ সিরিয়ালের নায়িকা মেঘ আসলে কে? রইল অভিনেত্রীর আসল পরিচয়