প্রয়াত বিখ্যাত বলিউড অভিনেতা, শোকের ছায়া ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে

নক্ষত্র পতন ঘটলো ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির। চলে গেলেন জনপ্রিয় অভিনেতা ইরফান খান। মুম্বাই এর কোকিলাবেন হাসপাতালে বুধবার সকালে মাত্র ৫৪ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। বলিউড অভিনেতা  ইরফান খান মঙ্গলবার শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যার কারণে ভর্তি হন হাসপাতালে। কোলনে সংক্রমণের কারণে আইসিইউ তে পর্যবেক্ষণে ছিলেন তিনি।

অনেক দিন ধরেই নিউরোএনডোকট্রিন টিউমারের সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি।২০১৯ এই সেই কথা ভক্তদের জানান অভিনেতা। সেই চিকিৎসা করাতে লন্ডনেও যান তিনি। পরবর্তীকালে ভারতে ফিরে আসেন। তার শেষ জনপ্রিয় সিনেমা ছিল আংরেজি মিডিয়াম।

সম্প্রতি তার মা মারা যাওয়ার পর দেশ জুড়ে চলা লক ডাউনের ফলে তাকে দেখতে যেতে পারেন নি ইরফান খান। সেই কারণে অবসাদগ্রস্তও হয়ে পড়েছিলেন। বুধবার সকালে অভিনেতার মৃত্যুর খবর জানান পরিচালক সুজিত সরকার তার ট্যুইটার হ্যান্ডেল এর মাধ্যমে।

প্রিয় বন্ধু ইরফানের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন যে তিনি নিজের জীবনে লড়ে গিয়েছেন। ইরফান কে নিয়ে সবসময় গর্বিত পরিচালক।তিনি বলেন যে অভিনেতার সাথে আবারও দেখা হবে তার।ইরফান কে স্যালুট জানিয়ে তার পরিবার সুতপা ও বাবিলের জন্য সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি।

ইরফান খানের জন্ম রাজস্থানের জয়পুরে। তিনি জন্মগ্রহণ করেছিলেন ১৯৬৭ সালের ৭ই জানুয়ারি। তাঁর পরিবার এখনও সেখানেই থাকেন। আর সেখান থেকেই তিনি এসেছিলেন দিল্লির ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামায় পড়াশোনা করতে। এর পরেই পাকাপাকিভাবে যোগ বলিউডে। কিন্তু সেই যুগের অবসান ঘটল মাত্র কয়েক বছরে। মাত্র ৫৩ বছর বয়সে তিনি এই পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেন। আর এত অল্প বয়সে এমন একজন তারকাকে হারিয়ে শোকের ছায়া বলিউডে।

১৯৮৮ সালে ” সালাম বোম্বে” ছবির মধ্যে দিয়ে আত্মপ্রকাশ করেন অভিনেতা ইরফান খান। ” পান সিং তোমার ” ছবির জন্য তিনি পান জাতীয় পুরষ্কার। শিল্প জগতে তার অবদানের জন্য ২০১১ সালে পদ্মশ্রী পান তিনি। পিকু, হিন্দি মিডিয়াম, লাঞ্চ বক্স, ব্ল্যাক মেল, বিল্লু বারবার, মাদারি, গিলটি, লাইফ ইন অা মেট্রো, হাইদার সহ একাধিক বলিউড সিনেমার পাশাপাশি লাইফ অফ পাই, জুরাসিক ওয়ার্ল্ড সহ একাধিক হলিউড সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন তিনি। জীবনের কিছু বছরে ভারতের সিনেমা জগৎকে সমৃদ্ধ করে অবশেষে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন তিনি।