৫০ বছর পর হারানো প্রেম ফিরে এলো ৮২ বছরের বৃদ্ধের জীবনে

প্রেমের কাছে বয়স কখনো কোনো ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়াতে পারে না। এই কথাটি আরও একবার প্রমাণ করলেন ভারতের ৮২ বছর বয়সী এক যুবক। আজ থেকে প্রায় ৫০ বছর আগে তার জীবনে বসন্ত এনেছিলেন এক বিদেশিনী। তখন তার বয়স ছিল ৩০ এর কোঠায়। নবযৌবনের নব উন্মাদনায় মেতে উঠেছিল দুটি মন। দেশকাল সীমানার গণ্ডি তাদের মাঝে কোনো বাধা সৃষ্টি করতে পারেনি।

আমাদের এই গল্পের নায়ক রাজস্থানের এক ভুতুড়ে গ্রামের বাসিন্দা। পেশায় তিনি ছিলেন গ্রামের দারোয়ান। অপরপক্ষে গল্পের নায়িকা অস্ট্রেলিয়া থেকে উড়ে এসেছিলেন ভারতে, রাজস্থানের মরু সাগরের সৌন্দর্য উপভোগ করতে। ভারতের মাটিতেই তাই তাদের প্রথম দেখা। মরুসাগরের বুকে তখন প্রেমের জোয়ার বইছে। একে অপরের প্রেমে মশগুল হয়ে পড়েছিলেন তারা প্রথম দেখাতেই।

আজ থেকে প্রায় ৫০ বছর আগে রাজস্থানের জয়সলমীরে ভ্রমণে এসেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার মেরিনা। তবে ফিরে যাওয়ার আগে ভারতের মাটিতে গ্রামের সাধারণ এক দারোয়ানের কাছে তিনি তার মন বন্ধক রেখে গিয়েছিলেন। প্রেমের জোয়ারে ভেসে গিয়েছিল একুলও। তাই তো মেরিনা অস্ট্রেলিয়া ফিরে যাওয়ার পরে তার টানে ভারতের এই যুবকও বিদেশে পাড়ি দেন।

বাড়িতে কাউকে কিছু না জানিয়ে, তৎকালীন সময়ে ৩০ হাজার টাকা ধার করে অস্ট্রেলিয়ায় উড়ে গিয়েছিলেন সেই যুবক। তারপর তিন মাস একে অপরের সান্নিধ্যে কাটানোর সুযোগ পেয়েছিলেন তারা। মেরিনার থেকে বিয়ের প্রস্তাবও পেয়েছিলেন। তবে বাধা হয়ে দাঁড়ায় দেশের মাটির টান। সেই টানেই প্রেমিকাকে ছেড়ে দেশে ফিরে আসতে বাধ্য হন সেদিনের যুবক।

দেশে ফিরে আসার পর পারিবারিক চাপে পড়ে বিয়েও করেন তিনি। এরপর স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বেশ সুখেই দিন কাটছিল। তবে মনের কোণে মেরিনা নামটা চিরদিনের জন্য গেঁথে গিয়েছিল। তিনি হয়তো কখনো স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি আবার তাদের দেখা হতে পারে। তবে ৫০ বছর পর ফিরে এসেছেন মেরিনা। সুদূর অস্ট্রেলিয়া থেকে এসেছে মেরিনার চিঠি। এই চিঠি পেয়ে পুনরায় স্বপ্নের দিনগুলিতে ফিরে গিয়েছেন ৮২ বছরের ওই বৃদ্ধ।