স্টিল-অ্যালুমিনিয়ামের বাসন ছেড়ে মাটির হাঁড়িতে রাঁধুন মাটন কষা, স্বাদ লেগে থাকবে মুখে

মাটির হাঁড়িতে সাবেকি স্টাইলে রাঁধুন মাটন কষা, এই স্বাদের ভাগ হবে না

দেশি-বিদেশি রান্নার ভিড়ে কোথাও যেন হারিয়ে যাচ্ছে বাঙালির সাবেকি রান্না। মা, ঠাকুমা, দিদিমাদের হাতের রান্না স্বাদ আজও যেন মুখে লেগে আছে। অথচ সেই স্বাদ এখন যেন হাজার চেষ্টা করলেও রান্নাতে আসে না। কারণ তারা যে স্টাইলে রান্না করতেন আধুনিক প্রজন্ম তার ধারেকাছেও ঘেঁষে না। আজকের এই প্রতিবেদনে রইল মাটির হাঁড়িতে মাটন কষার (Mutton Kosha In Handi) অসাধারণ এক রান্নার রেসিপি। এই রেসিপি বাড়িতে একবার ট্রাই করেই দেখুন, স্বাদ মুখে লেগে থেকে যাবে।

মাটির হাড়িতে মাটন কষা রান্নার উপকরণ : ৭০০ গ্রাম মাটন, ২ কাপ পেঁয়াজ কুচি, ১ টা গোটা রসুন, ১ টা টমেটো, তেজপাতা, ৩-৪ টে কাঁচা লঙ্কা, ২ টি শুকনো লঙ্কা, ১ চামচ আদা বাটা, ১ চামচ রসুন বাটা, ১ চামচ জিরে বাটা, ৩-৪টে ছোট এলাচ, দারচিনি, লবণ, সরষের তেল, ১ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, ১ চা চামচ লঙ্কাগুঁড়ো, ১ চা চামচ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো, ১ চা চামচ ধনে গুঁড়ো, ১ চা চামচ সানরাইজ মিট মশলা, চিনি, ঘি, ময়দা, একটা মাটির হাড়ি,

রান্নার পদ্ধতি : প্রথমে একটা পাত্রে পেঁয়াজ কুচি, তেজপাতা, কাঁচালঙ্কা, শুকনো লঙ্কা, একটা গোটা রসুন, হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কার গুঁড়ো, কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, আদা বাটা, রসুন বাটা, টমেটো কুচি, জিরে বাটা, ছোট এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ ও স্বাদ অনুযায়ী লবণ নিয়ে নিতে হবে। এবার অন্য একটি পাত্রে সরষের তেল গরম করে এই মশলার মিশ্রণের সঙ্গে মিশিয়ে খুব ভালো করে মেখে নিতে হবে।

এবার এই মশলার সঙ্গে ১ চা চামচ সানরাইজ মিট মশলা ও সামান্য চিনি মিশিয়ে নিন। এবার মাটন ভালো করে জলে ধুয়ে নিয়ে এই মশলার সঙ্গে ভালো করে মাখিয়ে নিন। এবার মাংসটা এই ভাবে ম্যারিনেট করা অবস্থায় ১০ মিনিটের জন্য ঢাকা দিয়ে রেখে দিন।

বাজার থেকে একটা মাটির হাঁড়ি কিনে এনে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিয়ে তার মধ্যে দুই চামচ ঘি গরম করে হাঁড়ির মধ্যে ভালো করে মাখিয়ে নিন। তারপর ম্যারিনেট করা মাংস থেকে প্রথমে কিছু পেঁয়াজ বেছে নিয়ে সবার আগে মাটির হাঁড়িতে দিন। এবার মশলাসহ বাকি মাংসটাও দিয়ে দিন হাঁড়িতে।

এবার কিছুটা ময়দা ভালো করে মেখে একটা ডো বানিয়ে নিন। তারপর হাঁড়ির মুখ ঢাকনা দিয়ে এঁটে ময়দা দিয়ে ভালো করে হাঁড়ির মুখ আটকে দিতে হবে যাতে ভেতর থেকে একটুও বাষ্প বাইরে বের হতে না পারে।

এবার গ্যাস অন করে লো ফ্লেমে হাঁড়িটা বসিয়ে ৩০ মিনিটের জন্য রেখে দিতে হবে। ৩০ মিনিট পর গ্যাসের উপর একটা তাওয়া বসিয়ে তার উপর আবার ২০ মিনিটের জন্য হাঁড়িটা বসিয়ে রেখে দিতে হবে। গ্যাসের আঁচ কম রাখতে হবে।

এবার গ্যাস অফ করে একটা ছুরির সাহায্যে হাঁড়ির মুখ থেকে ময়দার আস্তরণ ছাড়িয়ে নিন। তারপর একটা চামচ বা হাতার সাহায্যে মাংসটা ভাল করে নেড়েচেড়ে নিন। তারপর ভাত কিংবা পোলাওয়ের সঙ্গে জমিয়ে খান এই সাবেকি রান্না।