নতুন ট্রাফিক আইন ভাঙায় ১৫০০০ টাকার স্কুটারে ২৩০০০ টাকা জরিমানা

পাস হয়েছে মোটর ভিকেলস আইন 2019 সংশোধনী বিল। এক ধাক্কায় বেড়ে গেছে জরিমানার পরিমাণ। আর এই নয়া ট্রাফিক আইন ভেঙ্গেই 23 হাজার টাকা জরিমানা দিলেন দিল্লির এক স্কুটার চালক। এমন ঘটনায় শোরগোল পড়েছে দেশজুড়ে। স্কুটি চালকের মাথায় জরিমানার বজ্রাঘাত, এমন কাণ্ডে দেশবাসী হতবাক।

দীনেশ মদন নামে এক ব্যক্তি দিল্লির গুরুগ্রামের রাস্তায় হেলমেট ছাড়া স্কুটি চালিয়ে যাচ্ছিলেন। তারপর কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ ওই ব্যক্তিকে আটকে তার কাছ থেকে স্কুটির সমস্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখতে চান। কিন্তু ওই স্কুটি চালক কোন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে পারেননি এমনকি ড্রাইভিং লাইসেন্সও ছিল না তার কাছে। তারপর কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ নতুন ট্রাফিক আইন অনুসারে ২৩০০০ টাকার জরিমানা করে। সেই জরিমানার অর্থ জমা করতে না পারায় ওই স্কুটিটি থানায় জমা করে নেওয়া হয়।

ট্রাফিক পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই চালকের কাছে ছিলনা হেলমেট, রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট, গাড়ির বীমা, দূষণের কাগজ, এমনকি ড্রাইভিং লাইসেন্স। যার ফলে সবকিছু মিলিয়ে নতুন নিয়ম অনুসারে তাকে ২৩০০০ টাকা জরিমানার কাগজ দেওয়া হয়। কিন্তু স্কুটি চালকের দাবি, ওই পরিমাণ জরিমানার টাকা কমিয়ে দেওয়া হোক কারণ ওই স্কুটির বর্তমান বাজারমূল্য ১৫০০০ টাকার বেশী হবেনা।

কি কি অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে?

হেলমেট ছাড়া স্কুটার চালানোর পাশাপাশি তার কাছে লাইসেন্স গাড়ির রেজিস্ট্রেশন বীমার কাগজ এবং দূষণ সার্টিফিকেট ছিল না।

ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে দীনেশ মদন জানিয়েছেন, ট্রাফিক পুলিশ ২৩০০০ টাকার জরিমানা চালান কেটেছে। তিনি স্বীকারও করে নিয়েছেন, তার কাছে গাড়ি রেজিস্ট্রেশন পত্র, হেলমেট ছিল না। পুলিশ তার কাছ থেকে গাড়ির চাবি চাইলে তিনি দিতে অস্বীকার করেন। তারপর তাকে চালানোর প্রিন্ট আউট বের করে হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয় এবং স্কুটিটি থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

কিভাবে ২৩০০০ টাকা জরিমানা হল?

হেলমেট ছাড়া গাড়ি চালানোর জন্য ফাইন ১০০০ টাকা

দূষণের মাত্রা ভাঙার জন্য ফাইন ১০০০০  টাকা

বীমার কাগজ ছাড়া গাড়ি চালালে ২০০০  টাকা

রেজিস্ট্রেশন কাগজ ছাড়া গাড়ি চালালে ৫০০০  টাকা

ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালানোর জন্য ৫০০০ টাকা

মোট ২৩০০০ টাকা জরিমানা

দীনেশ মদন আরও দাবি করেন, স্কুটিটির বর্তমান মূল্য হয়তো ১৫০০০ টাকা হবে। স্কুটিটি পুলিশ ধরার পর তার বাড়ি থেকে হোয়াটসঅ্যাপে আরসি’র কপি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু ততক্ষণে পুলিশ চালান কেটে দিয়েছে।

আরও পড়ুন :- ট্রাফিক আইন ভাঙলে কোন ধারায় জরিমানা কত?

দীনেশ মদন পুলিশের কাছে আর্জি করেছেন, জরিমানার অঙ্ক কমিয়ে দেওয়ার জন্য এবং তিনি আরও জানিয়েছেন, এবার থেকে তিনি সমস্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং হেলমেট পড়েই স্কুটি চালাবেন।