৫ রাজ্যে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ, ফের লকডাউনের জল্পনা

মাঝে কিছুদিন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে ছিল করোনা পরিস্থিতি। ক্রমশ কমছিল আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। যখন মনে হতে শুরু করল, সবকিছু হয়তো এবার ঠিক হয়ে যাবে ঠিক তখনই আবার উদ্বেগ বাড়াতে শুরু করছে করোনা। আবার দেশের ৫ জেলায় লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কয়েক দফা গাইডলাইন চালু করা হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফ থেকে। দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিল থেকে নতুন রূপের বিস্তার বাড়ার আশঙ্কার মধ্যে কেরালা, মহারাষ্ট্র, পাঞ্জাব, ছত্তিশগড় ও মধ্য প্রদেশ – পাঁচটি রাজ্যে প্রতিদিনের ক্ষেত্রে উত্থান দেখা গেছে, যার প্রথম কেস ১৬ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত হয়েছিল।

এই ৫ রাজ্যের অন্যতম হলো মহারাষ্ট্র (Maharastra)।মনে করা হচ্ছে আবারও লকডাউন হতে পারে এই রাজ্যে।তবে এখনও পর্যন্ত কিছু জানায়নি রাজ্য সরকার। আজ সন্ধ্যে ৭টায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরে রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবে, তখনই জানা যাবে নতুন করে রাজ্য আবার লকডাউন হবে কিনা।

মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী বিজয় ওয়াদেট্টিবার জানিয়েছেন নাগপুর, পুনে, অমরাবতী সহ বিভিন্ন জেলায় করোনা সংক্রমণে বাড়তে থাকার ফলে চালু হচ্ছে নাইট কার্ফু। সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে আজকে বৈঠক আছে এবং বৈঠকেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে নতুন করে আবার রাজ্য জুড়ে লকডাউন জারি হবে কিনা। পাশাপাশি মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কমিশনার ইকবাল সিং চাহাল রাজ্যবাসীকে সতর্ক করেছেন,যারা এই সময় হোম আইসোলেশনের নিয়ম ভঙ্গ করে বিয়ে বাড়ি বা অন্য কোথাও জমায়েত করবেন তাদের কড়া শাস্তির মুখে পড়তে হবে। পাশাপাশি ট্রেনে মাস্ক ছাড়া উঠলে সেই যাত্রীর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওরয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রে জানা যাচ্ছে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে কেরল, মহারাষ্ট্র, ছত্রিশগড়, মধ্যপ্রদেশ এবং পাঞ্জাবে।পাশাপাশি জম্বু কাশ্মীরেও বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।জানা যাচ্ছে দেশজুড়ে মোট করোনা সংক্রমনের ৭৪ শতাংশের বেশি ঘটেছে মহারাষ্ট্র এবং কেরলে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য টেস্ট বাড়ানো, আক্রান্তের সংখ্যা উপর ভিত্তি করে জেলা গুলিকে চিহ্নিতকরন,RT-PCR টেস্ট এর সংখ্যা বাড়ানো ইত্যাদি বিষয়ে জোর দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার।