নেহা কক্করের গান গেয়ে নেটদুনিয়া কাঁপালেন সাঁওতালি মেয়ে চাঁদমনি

রবীন্দ্র সঙ্গীত থেকে নেহা কক্করের আধুনিক হিন্দি গান গেয়ে নেটদুনিয়া মাতাচ্ছে এই খুদে সাঁওতালি মেয়ে চাঁদমণি হেমব্রম। কেবল ১৫ বছর বয়সী চাঁদমণি হয়ে উঠেছে বাংলার গৌরব। গান ছিল ভালোবাসা। তবে গান শিখতেও অর্থের প্রয়োজন। তাই অর্থের অভাবে গান শেখা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। তবে তাতে কি?

একাই নিজের গানের চর্চা বজায় রাখেন। নিজের গানের মধ্য দিয়ে নেটিজেনদের মুগ্ধ করে তুলেছে এই খুদে গায়িকা। সম্প্রতি নেট দুনিয়ায় তাঁর জনপ্রিয়তা দেখে পাঞ্জাবি সুরকার আইসন আদ্রী এই লকডাউনের মধ্যেই কলকাতা এসে গান রেকর্ড করলেন চাঁদমনির সঙ্গে।

রানাঘাটের স্টেশনে লতা মঙ্গেশকরের গান গেয়েই ভাইরাল হয়েছিলেন বাংলার রানু মন্ডল। টিক তেমনি মে মাসে নেহা কক্করের “হাম সফর” গান থেকে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে পান্ডুয়ার সাঁওতালি মেয়ে চাঁদমনি। আম্ফানের পর ত্রাণ বিতরণ করার সময়ে এক ব্যক্তি চাঁদমনির গান রেকর্ড করেছিলেন। সেখান থেকেই গানটি এসে পৌঁছায় দুর্গাপুরের শিক্ষক চিরঞ্জিত ধীবরের হাতে।

chandmani hembram : The rising star of india

#viral হওয়া নেহা কক্কর এর গান গাওয়া ১৫বছর বয়সী চাঁদমনি হেমব্রম এর প্রথম গাওয়া গান শুনুন । হুগলির আদিবাসী ছাত্রী চাঁদমনি হেমব্রমের কণ্ঠে শুনুন গান ‘‌কালো জলে কুচলা তলে ডুবল সনাতন’। হুগলীর চূচূড়া মহকুমা অন্তর্গত ইটাচুনা গ্রামের "সারদেশ্বরী কন্যা বিদ্যাপীঠের দশম শ্রেনীর ছাত্রী চাঁদমনি।আমি ওকে সবরকম ভাবে সাহায্য করবো বলে ঠিক করেছি । সবাই সহযোগিতার বাড়িয়ে দেবেন আশা রাখি । to help her plz watsapp me only : 8016636442https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=944355952665849&id=233401543761297https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=947951502306294&id=233401543761297

Posted by Chiranjit Dhibar Durgapur on Tuesday, May 12, 2020

বেশ কিছুদিনের মধ্যেই দেখতে দেখতে চাঁদমনির গলায় গাওয়া গান ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়াতে। হুগলি জেলার পান্ডুয়া অঞ্চলের এক প্রত্যন্ত গ্রামের মেয়ে চাঁদমনি। ছোটবেলায় বাবাকে হারিয়েছেন এবং মা দিন মজুর খেটে কোনমতে নিজের ও নিজের তিন সন্তানের মুখে দুমুঠো খাবার তুলে দেন। এই ভাবেই জীবন কেটেছে চাঁদমনির।

তাঁর গানের জাদু কেবল নেট দুনিয়ায় সীমাবদ্ধ থাকে না। আইসন যখন তাঁর গলায় গান শোনেন, মুগ্ধ হয়ে যান তিনি। গোটা দেশজুড়ে লকডাউন চললেও নিজেই পাঞ্জাব থেকে কলকাতা এসে চাঁদমনির সঙ্গে তাঁর নতুন হিন্দি গান “জুদাই যাবে” রেকর্ড করেন তিনি। হাম সফরের মত এই গানটিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পরে শীঘ্রই।

বাঙলার "নেহা কক্কর " চাঁদমনি হেমব্রম । ছোটো বয়সে বাবাকে হারিয়ে এখন মায়ের সাথে মাঠে কাজ করতে যায়….আর্থিক অনটনের জন্যই ।হুগলী চুচুড়া মহকুমার দশম শ্রেণীর এই আদিবাসী ছাত্রী বড় শিল্পী হতে চায়।পাশের বাড়ির দাদুর সাউন্ড box এ গান শুনে শুনে নিজের অজান্তেই গায়িকা হয়ে ওঠে । আমরা তার স্বপ্ন পূরণের সিঁড়ি হতে কি পারি ?https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=947951502306294&id=233401543761297

Posted by Chiranjit Dhibar Durgapur on Wednesday, May 13, 2020

গানটি রেকর্ড করার ভিডিওতে ইতিমধ্যেই লক্ষ লক্ষ ভিউ আর লাইক পড়েছে। চাঁদমনিকে খুদে নেহা কক্কর বলে অভিহিত করেছেন নেটিজেনেরা। কিন্তু তিনি জানিয়েছেন, তাঁর এতো জনপ্রিয়তার থেকেও বেশি যা দরকার তা হল অর্থ। মা ও ভাই-বোনদের মুখে দুমুঠো ভাত তুলে দেওয়াই এখন তাঁর একমাত্র লক্ষ্য। গান গেয়ে অর্থ উপার্জন করে যদি সে তাঁর মায়ের কষ্ট একটু হলেও কমাতে পারে, এটাই তাঁর স্বপ্ন।