‘বয়কট রাধে’ ক্ষোভ উগরে সলমানের ছবি না দেখার অনুরোধ সুশান্ত অনুগামীদের

সম্প্রতি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেল বলিউড অভিনেতা সালমান খান অভিনীত বহুপ্রতীক্ষিত ছবি “রাধে: ইউর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই”। করোনাকালে যে গুটিকতক ছবি দর্শককে  উপহার দিয়েছে বলিউড, তার মধ্যে অন্যতম হলো এই “রাধে” সিনেমাটি। এই ছবিটিকে কেন্দ্র করে দর্শকদের প্রত্যাশা অনেক বেশি। বিশেষত সালমান খানের অনুরাগীদের। আর হবে নাই বা কেন? করোনাকালে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যখন লকডাউন চলছে যখন বাড়িতে বসে “ভাইজান” অভিনীত ছবি দেখতে অবশ্যই পছন্দ করবেন তার অনুরাগীরা।

সালমান খানের সিনেমা মানেই মারকাটারি অ্যাকশন! তার উপর আবার অনস্ক্রিন হাঁটুর বয়সী নায়িকাদের সঙ্গে ৫০ ঊর্ধ্ব সালমানের ডান্স-রোমান্সেরও কোনও তুলনা নেই। “রাধে” ছবিতে সালমানের বিপরীতে অভিনয় করছেন বলিউড অভিনেত্রী দিশা পাটানি। এই বলিউড সুন্দরীর পাশেও সালমান একেবারে নব্য যুবক। তার উপর আবার পর্দায় নায়িকাকে চুমুও খেয়েছেন ভাইজান!

এই দৃশ্যটি দেখে নেটদুনিয়ায় মুহূর্তের মধ্যেই শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। সালমান খান, যিনি কিনা জীবনে কখনোও অন স্ক্রীন রোমান্সের সময় কোনও নায়িকাকে চুম্বন করেননি! তিনি কি তাহলে “রাধে”র জন্য তার রেকর্ড ভেঙে ফেললেন? নেটিজেনদের মনে উঠেছিল এই প্রশ্ন। পরে অবশ্য জানা গেল সালমানের রেকর্ড অটুটই রয়ে গিয়েছে। সরাসরি দিশা পাটানিকে চুম্বন করেননি তিনি। দিশার ঠোঁটে সেইসময় সেলোটেপ আটকানো ছিল!

সব মিলিয়ে সিনেমার ট্রেলার এবং প্রোমো দেখে সিনেমাটিকে নিয়ে দর্শকের প্রত্যাশা ক্রমশ বেড়েছে। তবে তাল কাটলো যেদিন সিনেমাটি সত্য সত্যই অনস্ক্রিন মুক্তি পেল। “রাধে” সিনেমাটি যারা ইতিমধ্যেই দেখে ফেলেছেন তারা সকলেই একবাক্যে বলছেন, সিনেমাটি সর্বৈব ফ্লপ! প্রোমো এবং ট্রেলার দেখে যতটা আশা করা হয়েছিল, সেই আশা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে “রাধে”।

প্রসঙ্গত, ট্রেলার দেখে অনেকেই মনে করেছিলেন “রাধে: ইউর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই” আসলে সালমান খান অভিনীত ব্লকবাস্টার ছবি “ওয়ান্টেড” এর সিক্যুয়াল হলেও হতে পারে। তবে দর্শকদের এই ধারণা ছিল ভুল। “ওয়ান্টেড” এর ধারে কাছেও যেতে পারেনি “রাধে”। দর্শক থেকে সমালোচক, সকলেই এই একটি কথাই বলছেন।

তার উপর আবার বলিউডের প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের অনুরাগীরা “রাধে” বিরোধী প্রচার চালাচ্ছেন। “জাস্টিস ফর সুশান্ত” দাবির পরিপ্রেক্ষিতে যারা এক সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় “বয়কট বলিউড” এর ট্রেন্ড তুলেছিলেন, আজ তারা একইভাবে “বয়কট রাধে”র ট্রেন্ড তুলছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে “বয়কট রাধে” হ্যাশট্যাগ ট্রেন্ডিং। একইসঙ্গে “রাধে”কে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল-মিমের বন্যা বয়ে যাচ্ছে।

সুশান্ত অনুরাগীরা তো “রাধে” দেখবেনই না। সুশান্তের এক অনুরাগী তো বলেই দিয়েছেন, তার দেখা শেষ বলিউড ছবিটি ছিল সুশান্ত সিং রাজপুত অভিনীত “দিল বেচারা”। অর্থাৎ  “বয়কট বলিউড”য়ের ট্রেন্ড সত্য সত্যই বাস্তবায়িত হচ্ছে। অন্যদিকে অন্যান্য দর্শক যারা সিনেমাটি দেখছেন তারাও “রাধে” দেখে সন্তুষ্ট নন। সিনেমা রিভিউ ওয়েবসাইট IMDBতে মাত্র ২.১ স্কোর তুলতে পেরেছে “রাধে”। অর্থাৎ “রাধে”কে নিয়ে সালমান খানের সময়টা এই মুহূর্তে খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণ করতে এইবার রীতিমতো ব্যর্থ হয়েছেন সালমান।