শরীরে বিরল রোগ, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে বেঁচে আছে এই ৯ বলিউড সুপারস্টার

শরীরে কঠিন অসুখ, প্রতিদিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন এই ৯ বলিউড সুপারস্টার

সম্প্রতি দক্ষিণী সুপারস্টার অভিনেত্রী সামান্থা রূথ প্রভু (Samantha Ruth Prabhu) সোশ্যাল মিডিয়াতে হসপিটালের বেডে শুয়ে একটি ছবি শেয়ার করে জানান তার শরীরে বাসা বেঁধেছে মায়োসাইটিস নামের একটি বিরল রোগ। হাতে সেলাইনের নল গোঁজা সামান্থার সেই ছবি দেখে তার স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন ভক্তরা। তবে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতেও কিন্তু এমন অনেক তারকা রয়েছেন যারা শরীরের মধ্যে এমন ভয়ংকর সমস্ত অসুখ বয়ে নিয়ে বেড়াচ্ছেন। দেখে নিন এক নজরে বলিউডের কোন কোন তারকা গুরুতর রোগে (Bollywood superstars health disorders) আক্রান্ত।

অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bachchan) : অমিতাভ বচ্চন ‘কুলি’ ছবির শুটিংয়ের সময় দুর্ঘটনার সম্মুখীন হয়েছিলেন। প্লিহাতে চোট পেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল তাকে। অপারেশনের সময় তিনি কোমায় চলে যান। সেযাত্রা কোনওমতে রক্ষা পেলেও এর বেশ কিছুদিন পর মায়োস্থেনিয়া গ্রাভিস রোগে তার পেশি কাজ করা বন্ধ করে দেয়। তবে মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে জরুরি অস্ত্রপচারের পর যেন দ্বিতীয় জন্ম হয়েছিল অমিতাভের‌।

হৃত্বিক রোশন (Hrithik Roshan) : অমিতাভের মত হৃত্বিকও শুটিং চলাকালীন গুরুতর আঘাত পেয়েছিলেন। ‘ব্যাং ব্যাং’ ছবির সময়ে স্টান্ট করতে গিয়ে পড়ে গিয়ে তার মাথায় আঘাত লাগে। দিনের পর দিন তার জন্য তিনি ব্যথা নাশক ওষুধ খেতেন। কিন্তু এতে লাভ কিছুই হয়নি। উপরন্ত তার মাথার ভিতরে রক্ত জমাট বেঁধে যায়। দুই ঘন্টার দীর্ঘ অপারেশনের পর ৩ দিনের মধ্যে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর তিনি কিছুদিন বেড রেস্টে ছিলেন।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া (Priyanka Chopra) : মাত্র পাঁচ বছর বয়স থেকে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছেন প্রিয়াঙ্কা। তবে এই রোগ কখনও তার কেরিয়ারের উন্নতির পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। ছোটবেলা থেকেই এই অসুবিধাকে সঙ্গী বানিয়েই প্রিয়াঙ্কা পথ চলছেন। শুধু বলিউড নয়, হলিউডেও রাজত্ব করছেন দেশি গার্ল।

সালমান খান (Salman Khan) : ২০০৭ সালে নিউরোপ্যাথিক ডিসঅর্ডার এবং ট্রাইজেমিনাল নিউরালজিয়া নামের নার্ভের রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন সালমান। একে বলা হয় আত্মহত্যা রোগ। এই রোগে মুখ, চোয়াল এবং গালে তীব্র যন্ত্রণা অনুভূত হয়। ২০১১ সালে এই রোগের চিকিৎসার জন্য তাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি নার্ভ সার্জারি করাতে হয়েছিল। অপারেশনের পর তিনি সুস্থ হন এবং সুস্থ হতেই ‘এক থা টাইগারে’র শুটিং শুরু করে দেন।

সোনম কাপুর (Sonam Kapoor) : মাত্র ১৭ বছর বয়স থেকেই ডায়াবেটিসের সমস্যায় ভুগছেন অনিল কাপুরের কন্যা। ১৮ বছর না পেরোতেই টাইপ ওয়ান ডায়াবেটিস ধরা পড়ে তার শরীরে। সোনমের পরিবারের কারও শরীরে এই রোগ ছিল। যে কারণে বংশানুক্রমিকভাবে রোগটি তার শরীরেও সঞ্চারিত হয়েছে।

ইলিয়ানা ডি ক্রুজ (Ileana D’Cruz) : এই জনপ্রিয় দক্ষিণী এবং বলিউড অভিনেত্রীও মারাত্মক মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। বডি ডিসমরফিক ডিসঅর্ডার নামের একটি রোগে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। এটি এমন একটি রোগ যে রোগে ব্যক্তি তার চেহারার ত্রুটি নিয়ে সবসময় উদ্বিগ্ন থাকে। এই রোগের জেরে অনেক সময় আত্মহত্যার প্রবণতাও দেখা দেয় রোগীর মধ্যে। তবে এখন অবশ্য থেরাপিস্টের পরামর্শ নিয়ে তিনি ভাল আছেন।

নয়নতারা (Nayanthara) : নয়ন তারা দীর্ঘদিন ধরে ত্বকের সমস্যায় ভুগছেন। ত্বকের এই সমস্যা দূর করতে তিনি কেরালার আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা করাচ্ছেন এবং সেই সঙ্গে এলোপ্যাথি ওষুধ সেবন করছেন। আসলে তার শরীরে এলার্জির সমস্যা রয়েছে। তিনি যখনই ননভেজ খাবার খান তখনই তার সারা শরীর জুড়ে ফুসকুড়ি এবং ফোঁড়া বেরোয়।

ইয়ামি গৌতম (Yami Gautam) : ইয়ামি কেরাটোসিস পিলারিস নামের একটি ত্বকের সংক্রমণে আক্রান্ত। দীর্ঘদিন ধরেই এই সমস্যা রয়েছে তার শরীরে। তিনি এর আগেও সোশ্যাল মিডিয়াতে বহুবার তার চর্মরোগের ব্যাপারে উল্লেখ করেছেন। নিজের শরীরের আক্রান্ত স্থানের অনাবৃত ছবি পোস্ট করেও সতর্ক করেছেন নেটিজেনদের।