অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মাকে শারীরিক নিগ্রহ, সহ-অভিনেত্রীর গায়ে হাত তুলে অনুতপ্ত জয়

ঐন্দ্রিলার গায়ে হাত তোলার অপরাধে খেটেছেন জেল, সহ-অভিনেত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করে অনুতপ্ত জয়

টলিউড (Tollywood) অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মাকে (Aindrila Sharma) নিয়ে উদ্বেগ ক্রমশ বাড়ছে। ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে আপাতত হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তিনি। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তাকে নিয়ে দুশ্চিন্তার প্রহর এখনও কাটেনি। এখনও আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভেন্টিলেশনে জীবন-মৃত্যুর মাঝে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন ঐন্দ্রিলা। তাকে নিয়ে উদ্বিগ্ন গোটা টলিউডও। ঐন্দ্রিলার শত্রু-মিত্র নির্বিশেষে সকলেই তার সুস্থতা কামনা করছেন।

এই তালিকাতে রয়েছেন ‘জিওন কাঠি’ ধারাবাহিকে ঐন্দ্রিলার সহ অভিনেতা জয় মুখার্জীও। সান বাংলার এই সিরিয়ালে দুজনে একসঙ্গে এই অভিনয় করেছেন। প্রায় ১০০ টি পর্বের শুটিং করতে পেরেছিলেন তারা। কিন্তু এরপর আর তাদের মধ্যে কাজের সুযোগ হয়নি। তার কারণ শুটিং সেটেই ঐন্দ্রিলার উপর আক্রমণ করে বসেন জয়। কারণে তাকে ধারাবাহিক চলাকালীন মাঝপথেই বাদ দিয়ে দেওয়া হয়।

তবে অতীতে যাই ঘটুক না কেন, অভিনেতা জয় মুখার্জী কিন্তু এখন তার সহ-অভিনেত্রীর অসুস্থতার খবর পেয়ে ভীষণ দুঃখিত। ২০২১ সালে ‘জিওন কাঠি’ ধারাবাহিকে শুটিং চলাকালীন তুমুল গোলমাল বেঁধে গিয়েছিল তাদের মধ্যে। যে কারণে ঐন্দ্রিলার গায়েও হাত তুলেছিলেন জয়। বিষয়টা থানাও অব্দি গড়িয়েছিল। শেষমেষ জয়কে সিরিয়াল থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। এরপর বহুদিন পর্যন্ত অভিনেতাকে আর টেলিভিশনে দেখা যায়নি।

শোনা যায় ওইদিন ঐন্দ্রিলা ফোনে তার মায়ের সঙ্গে কথা বলছিলেন। এদিকে শুটিং সেটে ততক্ষণে পৌঁছে গিয়েছিলেন জয়। ঐন্দ্রিলার কারণে শুটিংয়ে দেরি হচ্ছে দেখে তিনি মেজাজ হারিয়ে ফেলেন। কথা কাটাকাটি থেকে বিষয়টা হাতাহাতি পর্যন্ত গড়িয়ে যায়। ঐন্দ্রিলার গায়ে হাত তুলতে গেলে শুটিং সেটের বাকি সদস্যরা জয়কে আটকান। তবে অতীতের সেই ঘটনার কথা আজ আর মনে রাখতে চান না জয়। তিনি চান তার সহ-অভিনেত্রী দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন।

ঐন্দ্রিলার অসুস্থতার খবর সম্পর্কে আনন্দবাজার অনলাইনকে তিনি একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন, “পুরনো কথা মনে রাখতে চাই না। খুব খারাপ লাগছে খবরটা শোনার পর থেকেই। অনুতাপ হচ্ছে। তবে আমি হাসপাতালে না যেতে পারলেও প্রার্থনা করব যেন সুস্থ হয়ে ওঠে ঐন্দ্রিলা।” তিনি আরও বলেন, “ধারাবাহিকের শুটিং চলাকালীন কঠোর নিয়মের মধ্যে থাকতে হত ওকে। প্রায় ১০০টা পর্বের শুটিং করেছিলাম।”

“হঠাৎ এক দিনের ঘটনায় সব এলোমেলো হয়ে যায়, তা ঠিকই কিন্তু ও তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠুক এটাই আমি চাইব। আমি নিশ্চিত শীঘ্রই সুস্থ হয়ে উঠবে।” ঐন্দ্রিলার সঙ্গে তার যে তথ্য অভিজ্ঞতা রয়েছে সেটা প্রায় এক বছরের পুরনো। সবকিছু ভুলে গিয়ে সকলের মত তিনিও চান ঐন্দ্রিলা যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন। গত মঙ্গলবার রাতে ব্রেনস্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ঐন্দ্রিলা এখনও হাসপাতালে ভর্তি। এখনও তার জ্ঞান ফেরেনি, তাই চিকিৎসকরা তাকে নিয়ে উদ্বিগ্ন রয়েছেন।