চুল পড়ে যাচ্ছে? টাক নিয়ে চিন্তিত? ট্রাই করুন ৫টি অব্যর্থ উপায়

মানসিক চিন্তা ,কাজের চাপ ও নানা রকম কারণ এর ফলে আমাদের মাথার চুল ঝরে যায়। চুল ঝরার জন্য এখন বয়সটা কোন ফ্যাক্টরই নয়। আর চুল ঝরতে শুরু করলে চিন্তার শেষ থাকেনা। কারণ পুরুষ হোক অথবা নারী প্রতিটি মানুষের সুন্দর দেখার পেছনে চুলের অবদান অপরিসীম। আপনি কি চান আপনার সঙ্গেও এমনটা হোক? তাহলে আজ থেকেই রামদেব বাবার দেখানো কিছু আসন করা শুরু করুন। প্রতিদিন এই ব্যামায়গুলো করলে দেখবেন চুল পরা তো কমবেই, সেই সঙ্গে চুলের সৌন্দর্যও বৃদ্ধি পাবে।

ছেলেদের চুল পড়াটা অ্যান্ড্রোজেনেটিক বা বংশগত। চুলে জেল দেওয়া, আয়রণ করা, কারলিং, পারলিং এসব করলে ছেলেদের চুল পড়ে যায়। পুষ্টি এটা বিরাট ফ্যাক্টর এ যুগের ছেলেদের জন্য। আগে ২৫ বছর বা তার বেশি বয়সে চুল পড়া নিয়ে আসতো। কিন্তু এখন টিনেজ ছেলেরা চুল পড়া নিয়ে আসছে। এর মূল কারণ হচ্ছে তারা অনেক বেশি ফাস্টফুড খায়। ফাস্টফুডে প্রচুর ফ্যাট আছে, সুগার আছে। তারা কায়িক পরিশ্রম একেবারেই করে না। ধুমপান বড় বড় রক্তনালীকে বন্ধ করে দেয়। আর চুলের গোড়ায় অতি সূক্ষ সূক্ষ রক্তনালী। ধুমপান করলে এই সূক্ষ রক্তনালীগুলো বন্ধ হয়ে যায়। চুলের পুষ্টি আসে রক্তের মাধ্যমে তাই রক্তনালী বন্ধ হয়ে গেলে চুল পড়ে যাবে।

১) বজ্রাসন :- বজ্রাসন করলে শরীরের উপরের অংশে যেমন রক্ত চলাচল বাড়ে তেমনি হজম ক্ষমতা উন্নতি ঘটে ফলে চুল পড়া একদম কমে যায়।

আসন পদ্ধতি :- হাটুর উপর বসুন। গোড়ালির উপর বসবেন। এরপর হাতটা সোজা করে থাইয়ের উপর রাখুন। শিরদাঁড়া সোজা থাকবে। জোরে জোরে শ্বাস প্রশ্বাস নিন।৬০-১২০ সেকেন্ড অবধি টানা এই আসনটি করতে হবে।

২) অধো মুখ শবাসন :- এই আসনটি করলে মানসিক চিন্তা কমে যায়। এই আসন করলে মাথায় রক্তপ্রবাহ বেড়ে যায় ফলে শরীরে পুষ্টির অভাব দূর হয়।এর ফলে চুল পড়া যেমন কমে যায় তেমনই চুলের সৌন্দর্য ও বৃদ্ধি পায়।

আসন পদ্ধতি :- একটা ম্যাটের উপর সোজা হয়ে দাঁড়ান। হাত দুটো শরীর এর পাশে রাখুন। শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক থাকবে। আপনি সামনের দিকে ঝুঁকে পড়ুন। শরীরের অবয়ব অনেকটা পিরামিডের মতো হবে এই আসনটি করার সময়। এই আসনটি করার সময় শ্বাস প্রশ্বাস স্বাভাবিক ভাবেই নেবেন। আসনটি শেষ করার পর শ্বাস আস্তে আস্তে ছাড়বেন। একটানা ৬০ থেকে ৯০ সেকেণ্ড আসনটি করতে হবে।

৩) সর্ভাঙ্গাসন :- এই আসনটি করলে আপনি তফাৎ নিজেই বুঝতে পারবেন।রক্তকে বিশুদ্ধ করার পাশাপাশি এই আসনটি করলে রোগ সেরে যায় এবং চুল পড়া ও কমে যায়।

আসন পদ্ধতি : মাটির উপর একটি ম্যাট পেতে শুয়ে পড়ুন। শ্বাস নিতে থাকুন। এরপর দুটি পা উপরের দিকে তুলুন। ততক্ষণ পা তুলতে থাকুন যতক্ষণ না পা ৯০ ডিগ্রি তে আসে। ৩০ থেকে ৬০ সেকেন্ড এইভাবে আসনটি করুন।

৪) উট্টানাসন :- এই আসনের ফলে শরীরের রক্ত প্রবাহের উন্নতি ঘটে, যারা চুল পড়া সমস্যায় দীর্ঘদিন ধরে ভুগছেন তারা এই আসন করতে পারেন তাতে ভালো ফল লাভ করবেন।

আসন পদ্ধতি :- এই আসনটি করতে গেলে সোজা হয়ে দাঁড়ান। দুটি শরীরের দুপাশে রাখুন। শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক ভাবে নিতে থাকুন।এবার হাতটা উপরে তুলুন এবং সামনের দিকে ঝুঁকে পায়ের পিছন দিকটা ধরবার চেষ্টা করুন।এই আসনটি একটানা ৩০থেকে ৬০ সেকেন্ড অবধি করবেন।

৫) উষ্ট্রাসন :- এ আসনটি করলেন আমাদের মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি পায় ও ব্রেন পাওয়ার বৃদ্ধি পায়। ফলস্বরূপ চুলের সৌন্দর্য ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে।কারণ রক্তে থাকা পুষ্টিকর উপাদান ও অক্সিজেনের সমৃদ্ধি ই চুলের বৃদ্ধিতে বিশেষ ভূমিকা নেয়।

আসন পদ্ধতি :- একটি ম্যাটের উপর বসুন। এরপর আপনি গোড়ালির উপর বসে সোজা হতে চেষ্টা করুন। থাই এবং পায়ের বাকি অংশ ৯০ ডিগ্রী অ্যাঙ্গেলে থাকবে। অর্থাৎ এই আসনটি করতে গেলে আপনাকে হাঁটুর উপর ভর দিয়ে দাঁড়াতে হবে।এরপর হাত দুটোকে শরীরের পিছনের দিকে নিয়ে যান এবং আপনার পায়ের গোড়ালি টি ধরার চেষ্টা করুন। আপনার চোখ থাকবে ওপরের দিকে। এই আসনটি একটানা ৩০-৬০ সেকেন্ড অবধি করুন। এরপর স্বাভাবিক অবস্থায় আসার সময় শ্বাস প্রশ্বাস ধীরে ধীরে ছাড়তে থাকুন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে এই আসনটি ৩০ সেকেন্ড গ্যাপ দিয়ে দিয়ে তিনবার করতে হবে।