ভিক্ষে করে করোনা মোকাবিলায় ১ লক্ষ টাকা অনুদান দিল এক ভিখারি

ভিক্ষাই জীবিকা। কিন্তু করোনা তহবিলে ৯০,০০০ টাকা দান করলেন তামিলনাড়ুর মাদুরই জেলার এক পথের ভিখারি। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেশের প্রয়োজন বিপুল অর্থের। ভ্যাকসিন তৈরি করে বাজারে আনার জন্যেও প্রয়োজন হবে অর্থের। কিন্তু দেশজুড়ে অর্থনৈতিক মন্দা কাটাতে প্রত্যেক ক্ষেত্রে সরকারকে দিতে হচ্ছে বিপুল অঙ্কের অনুদান।

এই পরিস্থিতিতে সরকারের পাশে এসে দাঁড়াচ্ছেন ধনী শিল্পপতি থেকে বলিউডের নামিদামি অভিনেতারা । এবার সেই তহবিলে ৯০,০০০ টাকার অনুদান দিয়ে চমকে দিলেন তামিলনাডুর মাদুরাই অঞ্চলের এক পথের ভিখারি। ৯০,০০০ টাকা ছাড়াও এর আগে তিনি আরও ১০,০০০ টাকা অনুদান করেছিলেন। সব মিলিয়ে ১ লক্ষ টাকা অনুদান দিলেন তিনি।

এই মহান ব্যক্তির নাম পুলপানডিয়ান। ৬৮ বছরের পুলপানডিয়ান এই অর্থ দান করেছেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর পাবলিক রিলিফ ফান্ডে। এর আগেও তিনি মাদুরাইয়ের ডিস্ট্রিক ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে কোভিড ১৯ মোকাবিলার জন্য তামিলনাড়ু স্টেট ফান্ডে ১০,০০০ টাকা দান করেন।

একই ভাবে গত মঙ্গলবার তিনি ৯০,০০০ টাকা দান করেন একই উদ্দেশ্যে। তিনি জানান, মাদুরাইয়ের ডিস্ট্রিক কালেক্টর তাকে ‘সামজ-কর্মী’ বলায় তিনি গর্বিত। সেই সঙ্গে তিনি জানান, তাঁর অর্থ তিনি শিশুদের শিক্ষার জন্য দিতে চেয়েছিলেন কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতির জন্য এই অর্থ তিনি কোভিড ১৯ তহবিলে দান করলেন।

পুলপানডিয়ান তামিলনাড়ুর তুতিকোরিন জেলার বাসিন্দা। তাঁর পুত্র তাকে দেখাশোনা না করতে চাওয়ায় বাধ্য হয়ে তিনি মাদুরাইয়ের একটি মন্দিরের চাতালে ভিক্ষা করতে শুরু করেন। আর ভিক্ষা করতে গিয়েই অর্জন করেন এই বিপুল পরিমাণ অর্থ। যদিও তা তিনি দান করে দিয়েছেন মানুষের স্বার্থে।

পুলপানডিয়ান জানিয়েছেন, “মানুষের দয়াতেই আমি বেঁচে থাকি। আজ দেশের এই খারাপ সময়ে মানুষের পাশে থাকতে চাই।” ৬৮ বছরের পুলপানডিয়ান সন্তানের দ্বারা ঘর থেকে বিতাড়িত, মাদুরাইয়ের এক মন্দিরের চাতালে ভিক্ষা করে জীবন ধারণ করতেন। কিন্তু তাঁর উপার্জিত সব অর্থ তিনি মানুষকে দান করে দিয়েছেন সবচেয়ে কঠিন সময়ে মানুষের সেবায়।