উঠে যাচ্ছে লকডাউন, আনলক ৩-এ কি কি খোলা হচ্ছে দেখুন তালিকা

করোনাভাইরাসের গ্রাফ ক্রমশ উর্ধ্বমুখী। তারমধ্যে আনলকের তৃতীয় পর্যায়ের পথে হাঁটলেও বড়সড় বিধিনিষেধ শিথিলের ঝুঁকি নিল না কেন্দ্র।

দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর মার্চ মাস থেকে জারি হয় লকডাউন। এরপর জুন মাস থেকে শুরু হয় আনলকের পালা। ধীরে ধীরে আনলকের দুটি পর্যায় পেরিয়ে আগস্টে দেশ পা রাখতে চলেছে আনলকের তৃতীয় পর্যায়ে, আনলক-৩ তে। আর এই পর্যায়ে খুলে দেওয়া হচ্ছে আরো বেশ কিছু ক্ষেত্রের দরজা। তবে বিধি-নিষেধ থাকছে দেশের আরও একাধিক ক্ষেত্রেও। চলুন দেখে নেওয়া যাক আনলক-৩ পর্যায়ে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে কি কি বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে।

আনলক-৩ তে তুলে দেওয়া হচ্ছে নাইট কারফিউ। অর্থাৎ রাতে (রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা) চলাফেরার ক্ষেত্রে আর কোনো বিধি-নিষেধ থাকছে না। আগস্ট মাসের ৫ তারিখ থেকে খুলে দেওয়া হবে যোগা কেন্দ্রগুলি এবং জিম সেন্টারগুলি। তবে এগুলির ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফ থেকে দেওয়া বিধি-নিষেধ মেনে চলতে হবে।

স্বাধীনতা দিবস পালনের ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। আগস্ট মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে স্কুল কলেজ কোচিং সেন্টার সহ সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন্দ্র। আন্তর্জাতিক বিমান পরিসেবার ক্ষেত্রে বন্দে ভারত মিশনের আওতায় নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে পরিচালনা করা হবে।

মেট্রো, সিনেমা হল, সুইমিংপুল, বিনোদন পার্ক, থিয়েটার, পানশালা, অডিটোরিয়াম, অ্যাসেম্বলি হলে বিধিনিষিধ থাকছে। সেগুলি ছাড়া বাকি সব ক্ষেত্রের গতিবিধিতে ছাড় যাওয়া হয়েছে। তবে তা কনটেনমেন্ট জোনের বাইরেই। সামাজিক রাজনৈতিক খেলাধুলা বিনোদন ধর্মীয় সহ অন্যান্য বৃহৎ জামায়াতের ক্ষেত্রে থাকছে নিষেধাজ্ঞা।

নির্দিষ্ট ‘স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর’ (এসওপি) অনুযায়ী যাত্রীবাহী ট্রেন, ‘শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন’, ঘরোয়া উড়ান পরিষেবা, বিদেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের যাতায়াত এবং নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের বিদেশযাত্রা চালু থাকবে।

আনলক ৩: যা যা বন্ধ থাকবে

মেট্রো রেল, সিনেমা হল, সুইমিং পুল, বিনোদন পার্ক, থিয়েটার, বার, অডিটোরিয়াম, অনুষ্ঠান বাড়ি, সামাজিক/রাজনৈতিক/ খেলাধুলো/বিনোদন/শিক্ষাকেন্দ্রিক/সাংস্কৃতিক/ধর্মীয় জমায়েত।

স্কুল-কলেজ কতদিন বন্ধ থাকবে?

স্কুল-কলেজ এবং অন্য়ান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত। ‘আনলক ৩’ চালু হলেও রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সিদ্ধান্ত মতোই কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে লকডাউন জারি থাকবে। কেন্দ্র জানায়, সে ক্ষেত্রে কড়াকড়ি শিথিলের সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট রাজ্য অথবা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিই নিতে পারবে।

এর আগে স্বাধীনতা দিসব উদ্‌যাপন নিয়ে বিশেষ নির্দেশ জারি করেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, সরকারি ভাবে স্বাধীনতা দিবস উদ্‌যাপনে কোনো বড়োসড়ো জমায়েত এড়িয়ে চলতে হবে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে প্রযুক্তির ব্যবহার করে বিশেষ এই দিনটি উদ্‌যাপন করতে হবে।