ভারতকে যে ৫ সেরা ক্রিকেটার উপহার দিয়ে গেলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি

Mahendra Singh DHoni and Suresh Raina

আচমকাই ১৫ আগস্ট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। মন ভেঙে গেল হাজার হাজার ক্রিকেটপ্রেমীর। দীর্ঘদিন ধরে চলা নানান জল্পনার অবসান ঘটালেন এক নিমেষে। এক মুহূর্তেই যেন বিশ্বের শ্রেষ্ট ফিনিশার একেবারে ‘ফিনিশ’ করে দিলেন সমস্ত বাদানুবাদ। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে চিরবিদায় ঘোষণা করলেন ভারতীয় প্রাক্তন অধিনায়ক।

অবশ্য ধোনি বরাবরই এরকম। ২০১৪ সালে টেস্ট থেকে অবসরের ঘোষণাও তিনি করেছিলেন এভাবেই। আগে থেকে কাউকে কিছু জানতে বা বুঝতে দেননি। এবারও তাই। তাঁর মন মুগ্ধময় ব্যাটিং এবং অতুলনীয় অধিনায়কত্বর জন্য গোটা বিশ্বে লক্ষ লক্ষ ক্রিকেটপ্রেমীর মন বার বার জয় করেছেন তিনি।

ভারতকে ২০০৭-র টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়নশিপ ও ২০১১-র ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ দেওয়া মহেন্দ্র সিং ধোনিকে এ দেশ তথা বিশ্বের সফলতম অধিনায়কের মর্যাদা দেওয়া হয়। ২০০৭ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। এই সময়ে ক্রিকেটের সবকটি ফর্ম্যাটে ৮২৯ জন ব্যাটসম্যানকে আউট করার পাশাপাশি ওয়ান ডে-তে ১০ হাজারেরও বেশি রান করেছেন। ভারতের হয়ে ৯৮টি ওয়ান ডে ম্যাচও খেলেছেন এমএস। যা দেশের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বাধিক।

শুধু তাই নয়, মাহি না থাকলে আমরা হয়তো ইন্ডিয়ান টিমের অনেক তাবড় তাবড় ক্রিকেটারদের নামও জানতে পারতাম না। আসুন দেখে নিন এমন ৫ জন দুর্দান্ত ক্রিকেটার যারা কেবলমাত্র এমএস ধোনির কারণে ক্রিকেটের দুনিয়ার নিজের জায়েগা তৈরি করতে পেরেছেন।

১. সুরেশ রায়না :-

ধোনির সঙ্গে সঙ্গে সুরেশ রায়নাও নিজের অবসর ঘোষণা করেছেন। ক্রিকেট ক্যারিয়ারে তাঁর এতো সাফল্যের জন্য তিনি মাহিকেই সবথেকে বেশি কৃতিত্ব দিয়েছেন। রায়না অসাধারণ ক্রিকেটার হলেও ধোনির ক্যাপ্টেনসির অধীনে তাঁর পারফরম্যান্স শিখরে ওঠে। শীঘ্রই দুজনে খুব ভালো বন্ধু হন এবং আইপিএলে একসঙ্গে খেলেন তাঁরা। ধোনি সব সময় রায়নার পাশে ছিলেন। এমনকি যখন রায়না বোর্ডে রান তুলতে পারছিলেন না তখন ধোনি তাঁকে সাহায্য করেন এবং বিপরীতে রায়না টিমের মান অফ দ্যা ম্যাচ হন। ভারতীয় ক্রিকেট অবশ্যই এদের দুজনের ডুও মিস করবে।

২. ইশান্ত শর্মা :-

ইশান্ত শর্মা কেরিয়ারের শুরু থেকেই ঝড় তুলেছিলেন, তাঁর অসাধারণ পারফরম্যান্স ও তাঁর লম্বা দেহের গঠনের জন্য। কিন্তু বারবার ব্যর্থতা  সত্বেও বহুবার তাঁর পাশে দাঁড়ান ধোনি। তিনি ইশান্তকে বহু সুযোগ দিয়েছিলেন নিজেকে প্রমাণ করার জন্য।  ধোনির অধীনে থেকে তাঁর পারফরম্যান্স বহু গুণ বেড়ে যায়। লং ফরম্যাট ক্রিকেটে তিনি আচ্ছা আচ্ছা বড় ব্যাটসম্যানদের ঘাম ঝরিয়েছেন।

আরও পড়ুন :- ঠিক সন্ধে ৭:২৯ মিনিটেই কেন অবসর নিলেন ধোনি, জানুন আসল কারণ

৩.  রবীন্দ্র জাদেজা :-

রবীন্দ্র জাদেজা বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডারদের মধ্যে একজন। তবে এটাও সবাই এক বাক্যে স্বীকার করে নেবে যে, ভারতীয় দলে ধোনি না থাকলে জাদেজাকে আজ আমরা পেতাম না। নির্বাচকদের প্রত্যাশা অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারায় জাদেজা অনেক সমালোচনার শিকার হয়েচিলেন এবং তাকে ২০১১ বিশ্বকাপের টিম থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল। একমাত্র ধোনি তাঁর ওপরে ভরসা রেখে তাকে আবার টিমে ফিরিয়ে আনেন, হরভজন সিংয়ের জায়গায়। তবে জাদেজা হতাশ করেননি।  জাদেজা ও ধোনি মিলে বিশ্বকাপ ফাইনালে শ্রীলংকাকে ধুয়ে ফেলেন।

আরও পড়ুন :- ক্রিকেটের ৫ অধিনায়ক যারা আইসিসি ট্রফি জিততে পারেননি

৪. বিরাট কোহলি :-

কোহলি এবং মাহি দুজনের মধ্যে খুবই গভীর বন্ধুত্বের সম্পর্ক। যখনই ভারতের বর্তমান অধিনায়ক কে “ক্যাপ্টেন কুল” এর সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হয় তখনই তিনি মাহির প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে ওঠেন। আর হওয়াটাই স্বাভাবিক কারণ ধোনি না থাকলে হয়তো বিরাট কোহলি আজকে ভারতের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার হয়ে উঠতে পারতেন না। একটা সময় টেস্ট ক্রিকেটে কোহলির বার বার ব্যর্থতা সত্বেও  ধোনি কোনদিনও কোহলির উপর হাল ছাড়েননি। ধোনির নেতৃত্বে বিরাট তাঁর কেরিয়ারের শীর্ষে পৌঁছান এবং বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান হয়ে ওঠেন।

আরও পড়ুন :- ৩ ভারতীয় ক্রিকেটার যাদের নামে গিনিস রেকর্ড আছে

৫. রোহিত শর্মা:-

বিরাট কোহলি এবং বর্তমান দলের অন্যান্য মেম্বারদের অনেক আগে থেকেই রোহিত শর্মা ভারতীয় দলের অংশ ছিলেন। তিনি বর্তমান ভারতীয় দলের সব থেকে বেশি অভিজ্ঞ প্লেয়ার। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা ও অনুরাগীরা তাকে ভারতের ‘নেক্সট বিগ থিং’ হিসাবে চিহ্নিত করেছেন। তাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা দেওয়া মাত্রই ভক্তদের কাছে তাঁর প্রতি বহু প্রত্যাশা বহুগুন বেড়ে যায়। কিন্তু রোহিত তাঁর প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে খুবই খারাপ পারফরম করে। কিন্তু মাহি শর্মার প্রতি সম্পূর্ণ বিশ্বাস ছিল। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে এই ডানহাতি ব্যাটসম্যানকে তিনি ম্যাচ ওপেনার করেন। ধোনির এই সিদ্ধান্ত ভারতকে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিততে সাহায্য করেছিল। তারপর থেকেই প্রতিটা ম্যাচে তিনি ভারতের ওপেনার হিসেবে স্কোর বোর্ডে ঝড় তুলেছেন।