ফের সুশান্তের ছায়া বলিউডে, জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ফ্ল্যাট থেকে

বলিউডে ফের শোকের ছায়া, জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হল ফ্ল্যাট থেকে

বলিউড এবং টলিউডজুড়ে একের পর এক অভিনেতা এবং অভিনেত্রীদের আত্মহত্যার সংখ্যাটা যেন মাত্রা ছাড়াচ্ছে। সেই লকডাউনের সময়কালে সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছিল তার ফ্ল্যাটে। কোনও কারণ ছাড়াই অভিনেতা কেন আত্মহত্যা করবেন তা আজও এক রহস্য। এবার সুশান্তের ছায়া আবার ফিরলো বলিউডে। এবার ঠিক একইভাবে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হল এক জনপ্রিয় অভিনেত্রীর (Hindi Television actress committed suicide)।

হিন্দি টেলিভিশনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বৈশালী ঠক্করের (Vaishali Takkar) ঝুলন্ত দেহ আজ উদ্ধার করা হয়েছে তার বাড়ি থেকে। ‘সসুরাল সিমার কা’, ‘ইয়ে রিস্তা কেয়া কেহলাতা হে’, ‘বিষ ইয়া অমৃত’ এর মত একাধিক সুপার হিট ধারাবাহিকে অভিনয় করেছিলেন তিনি। এই বছরই তার বিয়ে হওয়ারও কথা ছিল। তবে আচমকাই মর্মান্তিক পরিণতি হল অভিনেত্রীর।

২০১৫ সালে ‘ইয়ে রিস্তা কেয়া কেহেলাতা হে’ ধারাবাহিকের হাত ধরে টেলি দুনিয়াতে পা রেখেছিলেন বৈশালী। সেখানে তার অভিনীত চরিত্রের নাম ছিল ‘সঞ্জনা’। ২০১৬ সাল পর্যন্ত তিনি সেই ধারাবাহিকে অভিনয় করেন। ইতিমধ্যেই ইন্ডাস্ট্রিতে তার নাম-পরিচয় বাড়ছিল। আরও বেশ কিছু সিরিয়ালের প্রস্তাব আসতে শুরু করে তার হাতে।

এরপর গত ৭ বছর ধরে অনেক জনপ্রিয় ধারাবাহিকে তিনি অভিনয় করেন। শেষবার ‘রক্ষা বন্ধন’ টিভি শো-তে তাকে দেখা গিয়েছিল। গত বছরের এপ্রিল মাসে সোশ্যাল মিডিয়াতে বাগদানের খবর জানিয়েছিলেন বৈশালী। অভিনন্দন সিং নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে বাগদানের ছবি শেয়ার করেছিলেন তিনি। অভিনন্দন পেশায় কেনিয়ার একজন দাঁতের চিকিৎসক।

কিন্তু এক মাসের মধ্যেই আচমকা বৈশালী জানান তিনি অভিনন্দনকে বিয়ে করছেন না। তাদের বিয়েও ভেঙে যায়। যদিও তারপরেও সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশ সক্রিয় ছিলেন অভিনেত্রী। তিনি যে আত্মহত্যা করতে পারেন এমনটা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি তার ভক্তরা। শোনা যাচ্ছে তার মৃতদেহের কাছ থেকে নাকি একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়েছে। কিন্তু তাতে কী লেখা আছে জানা যায়নি।

আজ সকালে তার বাড়ি থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে তিনি আত্মহত্যা করেছেন কিনা বা আত্মহত্যা করলেও কেন করেছেন এ পর্যন্ত সে খবর মেলেনি। পুলিশ আপাতত তার মৃত্যুর তদন্ত চালাচ্ছে। বৈশালীর এমন পরিণতির কথা জেনে শোকের আবহাওয়া তৈরি হয়েছে হিন্দি টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রিতে।