কম তেল ও মশলায় রাঁধুন মাছের দোপেঁয়াজা, চিকেন-মাটন ফেলে সবাই খাবে আঙ্গুল চেটে

ভুলে যাবেন চিকেন-মাটনের স্বাদ, রুই মাছের দোপেঁয়াজা এইভাবে রাঁধলে মুখে লেগে থাকবে আজীবন

বাঙালির ভুরিভোজ মাছ ছাড়া কি আর চলে? কেউ মাছের কালিয়া পেলে খুশি, তো কারও পছন্দ আলু-বেগুন দিয়ে মাছের পাতলা ঝোল। তবে কেমন হবে যদি মাছের মধ্যে আসে মাংসের স্বাদ? চেনা রান্নায় একটু স্বাদবদল হলে খাওয়াটা আরও জমে যায়। আজ এই প্রতিবেদনে রইল চিকেনের দোপেঁয়াজা স্টাইলে রুই মাছের দোপেঁয়াজার (Rui Macher Dopeaza) একটি অভিনব রেসিপি।

রুই মাছের দোপেঁয়াজা তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ ‍: বাড়িতে এই রান্নাটার জন্য প্রয়োজন হবে রুই মাছ, পেঁয়াজকুচি, রসুন কুচি, কাঁচা লঙ্কা, আদা বাটা, রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কার গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, নুন, চিনি, রান্নার জন্য তেল।

রুই মাছের দোপেঁয়াজা বানানোর পদ্ধতি : প্রথমে রুই মাছের টুকরাগুলো ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। এবার জল ঝরিয়ে শুকনো করে নিয়ে এর মধ্যে নুন, হলুদ এবং লঙ্কার গুঁড়ো মাখিয়ে ম্যারিনেট করে রেখে দিন কিছুক্ষণের জন্য। তারপর কড়াইতে তেল গরম করে প্রথমে লালচে করে মাছ ভেজে নিতে হবে। মাছ ভাজা হয়ে গেলে আলাদা একটি পাত্রে তুলে রাখুন।

এবার এই ভাজা তেলের মধ্যে পেঁয়াজকুচি, রসুন কুচি, লঙ্কা কুচি এবং চেরা কাঁচা লঙ্কা দিয়ে কিছুক্ষণ ভেজে নিতে হবে। তারপর কড়াইতে একে একে পরিমাণ অনুসারী হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কার গুঁড়ো, জিরেগুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো এবং নুন দিয়ে মশলা ভাল করে কষিয়ে নিন। মশলা কষানো হয়ে গেলে সামান্য জল দিয়ে মিডিয়াম আঁচে আরও কিছুক্ষণ নেড়েচেড়ে তেল ছেড়ে আসা পর্যন্ত কষিয়ে নিয়ে। মশলা যেন পুড়ে না যায় সেদিকে নজর রাখতে হবে।

এবার মশলা থেকে তেল ছাড়তে শুরু করলে ভেজে রাখা মাছের টুকরাগুলো কড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে দিন। ভাল করে নেড়েচেড়ে নিয়ে একটা পরিমাণ উষ্ণ গরম জল রান্নার মধ্যে দিন এবং সমস্ত উপকরণ ভাল করে ফুটতে দিন। মোটামুটি ৫ থেকে ৭ মিনিট মিডিয়াম আঁচে রান্না করলেই রান্না প্রায় হয়ে আসবে।

রান্না যখন প্রায় শেষের দিকে তখন গ্যাস বন্ধ করার আগে শুধু উপর থেকে গরম মশলা গুঁড়োর ছড়িয়ে নিতে হবে। এবার ২ মিনিট মিডিয়াম আঁচে রেখে নামিয়ে নিলেই রেডি দারুণ স্বাদের রুই মাছের দোপেঁয়াজা। এই রান্নাটা চিকেনের দোপেঁয়াজার স্বাদকেও হার মানায়। তাই বাড়িতে মাঝেমধ্যে চিকেনের বদলে এইভাবে বানিয়ে ফেলুন মাছের দোপেঁয়াজা। প্রশংসা রাখার জায়গা পাবেন না।