বাস্তবেও এমন শাশুড়ি হয়! জি বাংলার সিরিয়াল লেখিকার ‘সাহস’কে কুর্নিশ মহিলাদের

বাস্তবেও শাশুড়িরা এমনই হয়! ‘কার কাছে কই মনের কথা’র লেখিকার প্রশংসায় পঞ্চমুখ মহিলারা

Avatar

Published on:

Kar Kache Koi Moner Kotha Serial Update : জি বাংলা (Zee Bangla) -য় কয়েক সপ্তাহ হল শুরু হয়েছে ‘কার কাছে কই মনের কথা’ (Kar Kachhe Koi Moner Kotha) সিরিয়াল। পাড়ার বৌ-দের বন্ধুত্বের গল্প নিয়েই সিরিয়াল। আর এই মেগাতে বর্তমানে দেখানো হয়েছে মানালি দে (Manali Dey) অর্থাৎ পর্দার শিমূলের বিয়ে হয়েছে। আর এই বিয়ের আবহেই পরাগ এবং শিমূলের ফুলশয্যার রাত। আর সেখানেই যত গন্ডগোল। ছেলের ফুলশয্যার খাটে মা এসে শুয়ে রইলেন, আর তাই নিয়ে চরম ট্রোল নেটিজেনদের।

এই সিরিয়ালের মাধ্যমেই ছোটপর্দায় কামব্যাক করেছেন মানালি দে। এই সিরিয়ালের মুখ্য শিমুল চরিত্রে দেখা যাচ্ছে তাকেই। এই মুহূর্তে সিরিয়ালে তার বিয়ে এবং তার শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে শিমুলকে কোন কোন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে সে নিয়েই চলছে একের পর এক পর্ব। সিরিয়ালে শাশুড়ির চরিত্রে অভিনয় করছেন  রীতা দত্ত চক্রবর্তী (Rita Dutta Chakraborty)। যিনি শিমুল বিয়ে হয়ে আসার পর থেকেই নানানভাবে তাকে জ্বালাতন করছেন।

KAR KACHE KOI MONER KOTHA

আর এর মধ্যেই চ্যানেলের পক্ষ থেকে এই সিরিয়ালে শিমুলের ফুলশয্যার দিনের কিছু ঘটনার ছবি শেয়ার করা হয়েছিল আগেই। যেখানে দেখা যাচ্ছে, ফুলশয্যার দিনে শাশুড়ি এসে তার ছেলের সঙ্গে খাটে শুয়ে পড়েন কোনও কারণে। আর নায়িকা শিমুলকে শুতে হয় সোফায়। আর এই ফুলশয্যার দিনের পর্ব দেখানো হয় মঙ্গলবার। এই ছবি আর সিরিয়ালের দৃশ্য সামনে আসতেই অনুরাগীরা প্রশ্ন তুলেছেন ধারাবাহিকের রুচি নিয়ে।

২০২৩ সালে সিরিয়ালের এমন প্রেক্ষাপট গল্প নিয়ে স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন তুলেছে দর্শকের মনে। এমনকি এরকম গল্প লেখার জন্য তুমুল সমালোচনা শুরু হয় লেখিকার রুচি এবং মানসিকতা নিয়েও। যদিও বিতর্কের মুখে পড়ে মুখ খুলে ছিলেন সিরিয়ালের নায়িকা শিমুলের অনস্ক্রিন শ্বাশুড়ি চরিত্রের অভিনেত্রী রিতা দত্ত  চক্রবর্তীও। সকলেই দাবি করছেন এই সিরিয়াল অবিলম্বে বন্ধ করা হোক।

KAR KACHE KOI MONER KOTHA

এক অনুরাগী লিখেছেন, ‘ফুলসজ্জার খাটে মায়ের সঙ্গে ছেলে! সমাজ কোন দিকে যাচ্ছে? কেন এমন জঘন্য রুচির ধারাবাহিক প্রচার করা হচ্ছে! অনেকে আবার বলেছেন, ‘এই ধরনের ধারাবাহিকের সম্প্রচার বন্ধ করা উচিত। এত নেতিবাচক ভাবনা, কাজ সমাজে ছড়িয়ে দেওয়ার পরিণতি কখনও ভাল হতে পারে না। ধারাবাহিক একটা নোংরামির আঁতুড়ঘর হয়ে দাঁড়িয়েছে।’ অনেক অনুরাগী আবার লিখেছেন, ‘মা ও ছেলের পবিত্র সম্পর্ককে নোংরামিতে পরিণত করা হচ্ছে।’

Kar Kache Koi Moner Katha

আরও পড়ুন : বর্তমানে বাংলা সিরিয়ালের ৪ বিখ্যাত লেখক, যাদের গল্প ছাড়া টিভি ইন্ডাস্ট্রি চলবে না

তবে ধারাবাহিকের পক্ষেও কেও কেও মুখ খুলেছেন। একজন বলেছেন,’ সিরিয়ালের ভুল কিছুই দেখানো হয়নি, যা দেখানো হয়েছে সবই সত্যি’। আবার একজন নেটিজেন দাবি করেছেন,’এই ঘটনাগুলো যে একদম হয় না তা নয়। অনেক বান্ধবীদের মুখে শুনি এই ঘটনা।কিন্তু কাউকে বলতে গেলে উল্টে বৌমাকেই দোষী ভাববে নোংরা ভাবে তাই কেউ বলতে সাহস করে না। ধন্যবাদ লেখিকাকে মেয়েদের এই না বলা কথা তুলে ধরার জন্য। লেখিকার সাহস আছে।’

আরও পড়ুন : রাজ চক্রবর্তীর কাছের মানুষ! ‘সন্ধ্যাতারা’র নায়ক নীল আসলে কে জানেন?