কোথায় হারিয়ে গেলেন রানী রাসমণির রাজচন্দ্র, কেন বাংলা সিরিয়াল ছেড়ে দিলেন অভিনেতা

রানী রাসমণির রাজচন্দ্র আজ কোথায়, কোথায় ও কীভাবে কাটছে অভিনেতার দিন

ভারতীয় বিনোদনের দুনিয়ায় প্রতিবেশী রাষ্ট্রের অভিনেতা এবং অভিনেত্রীরাও সামিল রয়েছেন। যেমন প্রতিবেশী বাংলাদেশ (Bangladesh) থেকে ভারতে এসে একের পর এক কাজ করে যাচ্ছেন বাংলাদেশের তারকারা। এদের মধ্যেই একজন হলেন গাজী আবদুন নুর (Gazi Abdun Noor)। তিনি ‘করুণাময়ী রানী রাসমণি’ (Korunamoyee Rani Rashmoni) ধারাবাহিকে ভূমিকায় জমিদার রাজচন্দ্রের ভূমিকায় অভিনয় করেন। কিন্তু তারপর পেরিয়েছে অনেকগুলো দিন, বাংলা ধারাবাহিকে আর দেখা যায় না তাকে।

গাজী আবদুন নুর আসলে বাংলাদেশ থেকে বাংলাতে এসেছিলেন। তিনি দীর্ঘদিন এখানেই থেকেছেন। পড়াশোনা করেছিলেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে। তারপর কাজের সূত্রে প্রবেশ করেন বাংলা টেলিভিশনের দুনিয়ায়। রাজ চন্দ্রের ভূমিকায় দর্শকদের থেকে দারুণ প্রশংসাও পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ২০১৯ সালে তাকে ভারত ছেড়ে আবার ফিরে যেতে হয় বাংলাদেশে।

Gazi Abdun Noor

বাংলাদেশের ফিরে গিয়ে একের পর এক কাজের সুযোগ পেয়েছেন গাজী। এখন তিনি ঢালিউডের অন্যতম জনপ্রিয় মুখ। ওখানে গিয়ে বড় পর্দার জন্য ছবিতে কাজ করছেন তিনি। ইতিমধ্যেই পাঁচটি ফিচার ফিল্মের কাজ হয়ে গিয়েছে তার। সামনে আরও দুটো ছবি রিলিজের সম্ভাবনা রয়েছে বলে এই সময় ডিজিটালকে জানিয়েছেন অভিনেতা।

গাজীর কথায়, “আমি দেশে ফিরে আসার পর কাজ শুরু হল। তারপর করোনা হল। দেড় বছর সেইভাবে কাজ করতে পারিনি। তবে বর্তমানে আবারও বাংলাদেশের ছবির বেশ ভালো অবস্থা।” এখন তাই নিজেকে কাজের মধ্যেই ডুবিয়ে ফেলেছেন গাজী। তার অভিনীত ছবিগুলি বেশ ভালই ব্যবসা করছে।

তিনি সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, “দুটো ছবি খুব ভাল চলছে। ছয় সপ্তাহ ধরে চলছে ওই সিনেমাগুলি। বিগত ১০ বছরে দর্শকের এত উন্মাদনা দেখা যায়নি। এখন বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে এক নতুন ধারা তৈরি হয়েছে। যা খুবই ইতিবাচক।” এছাড়া বাংলার চ্যানেলগুলো থেকেও তিনি ডাক পাচ্ছেন। তবে পারিবারিক কারণে তিনি ভারতে আসতে পারছেন না।

তবে ভবিষ্যতে কলকাতায় তাকে আসতেই হবে। কলকাতা তার ভালোবাসার জায়গা। এখানে থেকেই তিনি পড়াশোনা করেছেন, থিয়েটার করেছেন। এখনও পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মার্কশিট তোলা হয়ে ওঠেনি তার। তাই কিছুদিনের জন্য তিনি ঘুরতে আসবেন কলকাতায়। কলকাতায় এসে কাজের সুযোগ পেলে সাগ্রহে করবেন, জানিয়েছেন গাজী।