ভারতের জাতীয় ক্রাশ এই ১০ সুন্দরীর রুপে পাগল গোটা দেশ

ভারতের সেরা এই ১০ সুন্দরী পেয়েছেন জাতীয় ক্রাশ-এর তকমা

Top 10 Female National Crush of India

ভারতীয় সিনেমার (Indian Cinema) সঙ্গে জড়িত বেশ কয়েকজন সুন্দরী রয়েছেন যাদের দেখলে অনুরাগীদের মন মোচড় দিয়ে ওঠে। দর্শকের বিচারে তারা হলেন জাতীয় ক্রাশ (National Crush)। হাজার হাজার নয়, লক্ষের গণ্ডি পেরিয়ে কোটিতে পৌঁছেছে তাদের অনুরাগী সংখ্যা। আজকের এই প্রতিবেদনে রইল ভারতের জাতীয় ক্রাশ নায়িকাদের তালিকা।

মানুষী চিল্লার (Manushi Chhillar) : প্রাক্তন মিস ওয়ার্ল্ড মানুষী চিল্লারের জনপ্রিয়তা সোশ্যাল মিডিয়াতে দারুণ। এই সুন্দরীর সৌন্দর্য্য মুগ্ধ গোটা দুনিয়া। কাজেই স্বভাবতই ভারতে তার অনুরাগী সংখ্যা আকাশছোঁয়া। তিনিও ন্যাশনাল ক্রাশ।

Manushi Chhillar

মোমিনা মুস্তেহসন (Momina Mustehsan) : পাকিস্তানের জনপ্রিয় গায়িকা মোমিনা। ‘কোক স্টুডিও’তে ‘আফ্রিন’ গানটি গানটি গেয়ে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়াতে তার অনুরাগী সংখ্যা অনেক।

প্রিয়া প্রকাশ ওয়ারিওর (Priya Prakash Varrier) : চোখের অভিব্যক্তিতে গোটা দেশে শোরগোল ফেলে দিয়েছিলেন প্রিয়া প্রকাশ। মালায়লাম ছবি ‘অরু আদর লাভ’ ছবিতে একটি গানের ভিডিওতে তার চোখের ইশারার একটি দৃশ্য ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়াতে। সেই থেকেই তিনি জাতীয় ক্রাশ।

Priya Prakash Varrier

সঞ্জনা সাংঘি (Sanjana Sanghi) : বলিউডের নবীনতম অভিনেত্রী সঞ্জনা। প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের বিপরীতে ‘দিল বেচারা’ ছবির হাত ধরে বলিউডে তার পথ চলা শুরু। দর্শক মহলে তিনি ভীষণ জনপ্রিয়।

দিশা পাটানি (Disha Patani) : বলিউড সুন্দরী দিশা পাটানিও সামাজিক মাধ্যমে দারুণ জনপ্রিয়। অলিখিতভাবেই জাতীয় ক্রাশ তকমা পেয়ে গিয়েছেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়াতে একবার কোনও ছবি পোস্ট করলেই মুহূর্তের মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

সাক্ষী মালিক (Sakshi Malik) : ‘সোনুকে টিটু কী সুইটি’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন সাক্ষী। সোশ্যাল মিডিয়াতে তিনি ভীষণ জনপ্রিয়। তার একটি ছবি লক্ষ লক্ষ লাইক পায়।

শার্লি সেতিয়া (Shirley Setia) : ইউটিউবের সূত্রে জনপ্রিয় হয়েছেন শার্লি। আজ সোশ্যাল মিডিয়াতে তার অনুরাগী সংখ্যা অগণিত।

রশ্মিকা মান্দনা (Rashmika Mandana) : দক্ষিণী অভিনেত্রী রশ্মিকা মান্দনার ভক্তের সংখ্যা পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। এই বছরেই বলিউড ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। খোদ গুগোলের তরফ থেকে তাকে জাতীয় ক্রাশ হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়েছে।