‘আমি কলকাতার রসগোল্লা’, গেয়ে মঞ্চ মাতালেন ‘মিঠাই’, প্রশংসায় পঞ্চমুখ শ্রোতারা

শুধু অভিনয় নয়, আসাধারন গানও গায় ‘মিঠাই’, সৌমিতৃষার গানে মুগ্ধ শ্রোতারা

বেঙ্গল টপার মিঠাইরানী (Mithai) দর্শকের একেবারে যেন ঘরের মেয়ে। মিঠাই অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু (Soumitrisha Kundu)তার দুষ্টু-মিষ্টি প্রাণোচ্ছল অভিনয় দিয়ে সকলের মন জয় করে নিয়েছেন। যদিও গত সপ্তাহের টিআরপি তালিকাতে মিঠাইয়ের আসন খানিক টালমাটাল হয়ে গিয়েছে, তবে এই মুহূর্তে দর্শকের কাছে এখনও সেরা রয়েছে মিঠাই-ই। মিঠাই ওরফে সৌমিতৃষার মধ্যে একাধারে একাধিক প্রতিভা রয়েছে। তিনি শুধু অভিনয়ই নয়, নাচ-গানেও বিশেষ পারদর্শী।

‘মিঠাই’ এর নায়ক ‘সিদ্ধার্থ’ ওরফে আদৃত রায় যে ভাল গান গাইতে পারেন তা দর্শকরা জানেন। অভিনয়ের পাশাপাশি তার নিজস্ব একটি গানের ব্যান্ড রয়েছে। তার গাওয়া বেশ কিছু গানের অ্যালবামও রয়েছে। তবে অভিনেত্রী সৌমিতৃষাও যে এই বিষয়ে কিছু কম যান না সে কথা আগে জানা ছিল কি? হ্যাঁ, অভিনেত্রীকে এবার খোলা মঞ্চে গান গাইতে শোনা গেল।

Soumitrisha Kundu aka Mithai Stage Performance Viral

মিঠাইয়ের নাচ দেখতে অভ্যস্ত নেটিজেনরা। শুটিং ফ্লোর থেকে মাঝেমধ্যেই সময় বের করে নিয়ে ইনস্টাগ্রাম রিল ভিডিওতে বিভিন্ন ট্রেন্ডিং গানে মিঠাইয়ের নাচ ভাইরাল হয়। ধারাবাহিকের সোম এবং তোর্সা অর্থাৎ ধ্রুব সরকার এবং তন্বী লাহা রায়ের সঙ্গে তার বহু নাচের ভিডিও রয়েছে। তবে এবার একটি ভিডিওতে মিঠাইকে গান গাইতে শোনা গেল। একটি স্টেজ শো’য়ের অংশ হয়ে তিনি গাইলেন ‘আমি কলকাতার রসগোল্লা’।

এই ভিডিও স্বভাবতই সোশ্যাল মিডিয়াতে হু হু করে ভাইরাল হচ্ছে। কারণ অভিনেত্রীর নাচ দেখলেও এর আগে কখনও তাকে গান গাইতে শোনেননি ভক্তরা। এই প্রথমবার স্টেজে গান গেয়ে শোনালেন সৌমিতৃষা। সুর, তাল, লয় সঠিক রেখেই তিনি গানটি গেয়েছেন। তাই নেটিজেনরা তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। অভিনেত্রীর কন্ঠে এমন অসাধারণ গান শুনে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছেন শ্রোতারা। তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলে।

মিঠাইকে ধারাবাহিকে যেমন দেখা যায়, বাস্তবেও সৌমিতৃষা ঠিক ততটাই প্রাণোচ্ছল। তারকাদের সঙ্গে পর্দার বাইরেও সংযোগ বজায় রাখার ইচ্ছে থাকে ভক্তদের মনে। সেই ইচ্ছা পূরণ করে এই স্টেজ শোগুলি। ইতিপূর্বেও বহু তারকাকে স্টেজ শো মঞ্চে নেচে-গেয়ে পারফর্ম করতে দেখা গিয়েছে। তারকাদের মধ্যে অনেকেই ট্রোলের সম্মুখীন হয়েছেন। তবে মিঠাই তো ‘অনিন্দিতা’! নাচ গান হোক বা অভিনয়, কোনওখানেই তাকে মাত দেওয়া যায় না।