নেটিজেনদের প্রবল আক্রোশের ফল, অবশেষে ‘ঔদ্ধত্য’ মেনে বিবৃতি দিলেন রূপঙ্কর

Riya Chatterjee

Updated on:

একের পর এক ট্রোলিং, নেটিজেনদের কটু মন্তব্য, মেয়ে-বউকে হুমকি, ছাড় পাচ্ছেন না বৃদ্ধা মাও। বলিউড গায়ক কে কে (K K) সম্পর্কে রূপঙ্কর বাগচীর (Rupankar Bagchi) একটা বিতর্কিত মন্তব্য কার্যত তোলপাড় করে দিয়েছে তার গোটা দুনিয়া। ভক্তরা নিমেষেই যেন মারমুখী হয়ে উঠেছেন রূপঙ্করকে নিয়ে। এমতাবস্থায় সাংবাদিক বৈঠকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়ে নিয়েও সুরাহা হল না। নেটিজেনদের আক্রোশ যেন কিছুতে কমতেই চাইছে না।

নেটিজেনরা রূপঙ্করের সাংবাদিক বৈঠকে হাতে লিখে আনা বিবৃতি পড়ে শোনানোতে বেজায় রেগে গিয়েছিলেন। এমনকি তিনি মন থেকে ক্ষমা চাননি বলে উঠেছিল গুরুতর অভিযোগ! অবশেষে ফের একবার নিজের ভুল স্বীকার করে নিলেন গায়ক। এবিপি আনন্দের কাছে একান্ত সাক্ষাৎকারে নিজের ভুলকে নিজের ‘ঔদ্ধত্যের প্রকাশ’ বলে মেনে নিলেন তিনি।

এই সাক্ষাৎকারে নিজের সেই বিতর্কিত লাইভ প্রসঙ্গে রূপঙ্কর বাগচী বললেন, “সোশাল মিডিয়ায় সেদিনের মন্তব্যের মধ্যে রূপঙ্কর বাগচী ছিল না”। “পরে নিজেই নিজের বক্তব্যের মধ্যে নিজেকে খুঁজে পাইনি, পেয়েছিলাম ঔদ্ধত্যকে”! বলেছেন রূপঙ্কর। বিগত কয়েকদিন যাবত যারা তাকে উদ্দেশ্য করে ক্রমাগত আক্রমণ শানাচ্ছেন তাদের প্রসঙ্গে রূপংঙ্করের বক্তব্য, “যাঁরা এই আক্রমণগুলি করছেন, তাঁরা কোনও না কোনও সময় আমার গান শুনেছেন, আমায় ভালওবাসেন”।

রূপঙ্কর মনে করেন যারা কটু কথা বলছেন, তারা আদতে কখনও স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি রূপঙ্করের মুখ থেকে তারা এমন কথা শুনবেন। তাই তারা প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। উল্লেখ্য সংবাদমাধ্যমের কাছে বিবৃতি প্রকাশের সময় রূপঙ্কর বাগচীকে প্রথমেই বলতে শোনা গিয়েছিল, “প্রথমেই কেকে’র পরিবারের কাছে নিঃশর্ত দুঃখপ্রকাশ করছি। এখানে পৌঁছনোর আগে পোস্ট ডিলিট করেছি। মুম্বইবাসী পরিবারের কাছে জানাচ্ছি আন্তরিকভাবে দুঃখিত”। কিন্তু এতে অবশ্য কে কে ভক্তদের মন গলানো সম্ভব হয়নি।

বিতর্কিত লাইভ ভিডিওতে বাংলার শিল্পীদের হয়ে সওয়াল করতে গিয়ে রূপঙ্কর বলেন, “হু ইজ কে কে? আমরা কেকের থেকে ভালো গাই”। এই বক্তব্যের মাধ্যমে রূপঙ্কর এক নিমেষের মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়াতে যেন ভিলেন হয়ে দাঁড়ান। মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কেকের আচমকা প্রয়াণ বিষয়টির গুরুত্ব আরও বাড়িয়ে দেয়। রূপঙ্করের প্রতি নেটিজেনদের ক্ষোভ আরও বাড়ে। এখন রূপঙ্কর নিজের ‘ঔদ্ধত্য’ মেনে নেওয়ার পর নেটিজেনরা আবার তাকে আপন করে নেন কিনা সেটাই এখন দেখার।