টলিউডে নেই কাজ, প্রথমবার বাংলা টেলিভিশনে পা রাখছেন ঋতুপর্ণা, আসছে দারুন চমক

টলিউডে নেই কাজ, বাংলা টেলিভিশনে পা রাখছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, আসছে দারুন চমক

Rituparna Sengupta Is Going To Debut On Bengali Telivision With Mahalaya

আর মাত্র হাতে গোনা কিছুদিনই রয়েছে, বাঙালির মনে এখন উৎসবের আমেজে চলছে। দুর্গাপূজো (Durgapuja) বাঙালির কাছে শুধুই একটা উৎসব নয়, একটা বছরের বেঁচে থাকার রসদ। দুর্গাপূজার আগে পিতৃপক্ষের অবসান ঘটিয়ে দেবীপক্ষের সূচনায় আসে মহালয়া (Mahalaya)। তার জন্য টেলিভিশনের বাংলা চ্যানেলগুলোতে ভোরবেলায় সম্প্রচারিত হয় মহালয়া স্পেশাল বিশেষ আধ্যাত্মিক অনুষ্ঠান।

প্রধানত স্টার জলসা, জি বাংলা, কালার্স বাংলা (Colours Bangla) এবং দূরদর্শনে সম্প্রচারিত হয় মহালয়ার এই বিশেষ অনুষ্ঠান। দেবী দুর্গার ভূমিকায় নামিদামী অভিনেত্রীরাই থাকেন। এই বছরেও তার অন্যথা হবে না। এই বছর যেমন কালার্স বাংলাতে পিতৃ পক্ষের অবসান ঘটিয়ে দেবীপক্ষের সূচনা ঘটাতে আসছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত (Rituparna Sengupta)।

ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত টলিউডের A লিস্টেড অভিনেত্রী। তবে তার সমকালীন সময়ের এবং জুনিয়র অভিনেত্রীদের মধ্যে অনেককেই মহালয়াতে মা দুর্গার ভূমিকাতে দেখা গেলেও ঋতুপর্ণা কখনও মহালয়াতে অভিনয় করেননি। তার সমসাময়িক ইন্দ্রানী হালদার থেকে শুরু করে কোয়েল মল্লিক, মিমি চক্রবর্তী, শ্রাবন্তী চ্যাটার্জীরা, শুভশ্রী গাঙ্গুলীরাও মুখ দেখিয়েছেন মহালয়াতে।

তবে ঋতুপর্ণা কখনও ছোট পর্দায় নারী শক্তির প্রতীক হিসেবে আসেননি। কিন্তু এই প্রথমবার বাংলা টেলিভিশনের পর্দাতে পা রাখলেন ঋতুপর্ণা। তাও আবার মহালয়াতে দেবী দুর্গার ভূমিকায়। ইতিমধ্যেই চ্যানেলের তরফ থেকে দেবী দুর্গার সাজে ঋতুপর্ণার প্রথম ছবি আনা হয়েছে প্রকাশ্যে।

মাথায় মুকুট, হাতে ত্রিশূল, কপালে উজ্জ্বল ত্রিনয়ন, লাল বেনারসী এবং ভারী গয়নার সাজে ঋতুপর্ণাকে বেশ মানিয়েছে। গত বছর এই ভূমিকাতে দেখা গিয়েছিল অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিককে। ২০২২ শে কালার্স বাংলা ‘দেবী দশমহাবিদ্যা’কে উপস্থাপন করতে চলেছে। সেই বেশে ঋতুপর্ণার এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে।

তবে চ্যানেল অবশ্য ঋতুপর্ণা ছাড়া আর কারও কাস্টিংয়ের কথা প্রকাশ করেনি। আনন্দবাজার অনলাইনের কাছে চ্যানেল জানিয়েছে চ্যানেলেরই অন্যান্য ধারাবাহিকের সহ অভিনেতাদের পাশাপাশি সব মাধ্যমের জনপ্রিয় তারকা থাকবেন এই অনুষ্ঠানে। তাই এই বছর কালার্স বাংলার কাছে কিন্তু বেশ চাপে পড়ে যেতে পারে জি বাংলা এবং স্টার জলসা।