দুহাতে বিদেশিদের লুটছেন দেশি গার্ল, জিনিসের দাম জেনেই ছুটে পালাচ্ছেন গ্রাহকরা

থালা-বাটি, টেবিল ক্লথের এত দাম, প্রিয়াঙ্কার দোকানের জিনিসের দাম জেনেই ভিরমি খাচ্ছেন নেটিজেনরা

Priyanka Chopra launches her own houseware brand ‘Sona Home’

বিয়ের পর এখন মার্কিন প্রদেশে চুটিয়ে সংসার করছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া (Priyanka Chopra)। স্বামী এবং কন্যাসহ এখন তার জীবনে শুধুই খুশির আবহ। তারই মাঝে আবার নতুন ব্যবসার দায়িত্ব কাঁধে নিয়েছেন দেশি গার্ল। অভিনয় ছেড়ে এখন নিউইয়র্কের মত শহরে নিজের রেস্তোরা এবং দোকান সুপ্রতিষ্ঠিত করতে উঠেপড়ে লেগেছেন প্রিয়াঙ্কা। বিদেশের মাটিতে বসেও যাতে দেশের খাবারদাবারের স্বাদ পাওয়া যায় সেজন্যই এই ব্যবস্থা।

নিউইয়র্কে ‘সোনা’ রেস্তোরাঁর উদ্বোধন হয়েছে বহু আগেই। আপাতত নতুন ব্যবসায় মন দিয়েছেন তিনি। গত মাসেই নিজস্ব হোমওয়্যার লাইন ‘সোনা হোম’ চালু করেছেন প্রিয়াঙ্কা। সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে নিয়েছেন নানা ছবি। ওয়েবসাইটে পাওয়া যাচ্ছে প্রিয়াঙ্কার ‘সোনা হোম’ এর নানা সামগ্রী।

Priyanka Chopra and Nick Jonas

তবে প্রিয়াঙ্কার রেস্তোরাঁ ‘সোনা’র খবর প্রকাশ্যে আসার পর এই রেস্তোরাঁর বিভিন্ন খাবার সামগ্রীর আকাশ ছোঁয়া দাম নিয়ে ট্রোল করেছিলেন নেটিজেনরা। সামান্য সিঙ্গারার দাম দিতে গিয়েই কার্যত ফতুর হওয়ার জোগাড় গ্রাহকরা। এখন আবার ‘সোনা হোম’ নিয়েও তুঙ্গে উঠেছে জল্পনা। বিতর্কের বিষয়বস্তু সেই একই, জিনিসপত্রের অসম্ভব দাম!

প্রিয়াঙ্কার কাছ থেকে একটা টেবিল ক্লথ নিতে গেলে দাম পড়বে প্রায় ৩১ হাজার টাকা! চায়ের কাপ এবং প্লেট কিনতে গেলে খরচ হবে ৫ হাজার ৩০০ টাকা! আরও জানবেন? চাটনি রাখার জন্য ছোট ছোট ৬টি পাত্র যদি প্রিয়াঙ্কার থেকে নিতে চান তাহলে দাম পড়ছে ১৫ হাজার টাকা! থালা কিনতে গেলে খরচ হবে ১৬ হাজার!

স্বভাবতই এই দামের লিস্ট দেখে নেটিজেনরা নানাভাবে প্রিয়াঙ্কাকে ট্রোল করছেন। সকলেই জানতে চান প্রিয়াঙ্কার থালা-বাটি, টেবিল ক্লথের মধ্যে কী এমন মহামূল্যবান জিনিস রয়েছে যার জন্য এমন আকাশ ছোঁয়া দাম নিচ্ছেন?

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Priyanka (@priyankachopra)

নেটিজেনদের মধ্যে কেউ কেউ ট্রোল করে লিখছেন, “মিসেস চোপড়া পাগল হয়ে গেছেন নাকি! একটা টেবিল ক্লথ ৩০ হাজার টাকায়!” কেউ কটাক্ষ করছেন, “আপনি ভুল মানুষদের লুটছেন। ইংল্যান্ডে এই দোকান খুলে লুট শুরু করুন।” যদিও প্রিয়াঙ্কার দাবি, “ভারতে আমাদের সংস্কৃতির মধ্যে অন্যতম হল পরিবার, সম্প্রদায়, মানুষকে একত্রিত করছে এবং এটাই আমার কাছে সোনা হোমের নীতি”।