বিশ্বের প্রথম শব্দ দূষণবিহীন গান গেয়ে রেকর্ড গড়লেন মিমি, হাসতে হাসতে ভেঙ্গে গেল দাঁত

Riya Chatterjee

Updated on:

টলিউড অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী (Mimi Chakraborty) পুজোতে গেয়েছেন উৎসবের গান। সোশ্যাল মিডিয়াতে মিমি তার গানের একটি ভিডিও (Durga Puja Music Video) শেয়ারও করেছেন। একে তো পুজোর গান, তার উপর আবার টলিউডের অভিনেত্রী গেয়েছেন বলে কথা! অতি উল্লাসেই ভিডিওর প্লে বাটনে ক্লিক করেছিলেন নেটিজেনরা। আর তাতেই কার্যত সেপ্টেম্বর মাসে এপ্রিল ফুল হয়ে বসলেন সকলে! ভাবছেন এটা আবার কীভাবে সম্ভব? সম্প্রতি মিমি তো এরকমটাই করে দেখলেন।

পুজোর আগেই আসছে তারকা সাংসদের পুজোর নতুন গান। একটি টিজার ভিডিও তিনি সম্প্রতি শেয়ার করেছিলেন ফেসবুকে। তার ক্যাপশনের লেখা ছিল, “এবার আমাদের পুজো শুরু একটু আগে থেকেই… আসছি নিয়ে আমাদের পুজোর গান… বিশদে জানতে আমাদের সঙ্গে থাকুন।” মিমির কথামতো বিশদে জানতে যেই না প্লে বাটনে চাপ পড়লো অমনি তাজ্জব হয়ে গেলেন ভক্তরা।

মিমি গান গাইছেন, কাঁধে ঢাক নিয়ে জমিয়ে নাচছেন, সবই ঠিক আছে, তবে মিমির গলায় নেই কোনও স্বর! এমন একটি ভিডিও দেখে তো চক্ষু চড়কগাছ হয়ে বসেছে নেটিজেনদের। তারা ভাবছেন পুজোর আগেই কি গলার স্বর খুইয়ে বসলেন অভিনেত্রী? মিমি গান গাইলেও তা শোনা যাচ্ছে না কেন? সোশ্যাল মিডিয়াতে চলছে জোর জল্পনা। তবে কেউ কেউ ভাবছেন হয়তো বা এটা কোনও যান্ত্রিক গোলযোগ।

এদিকে কমেন্ট বক্সে বেশ মজার মজার মন্তব্য জমা পড়ছে। কেউ লিখছেন, “গানটা এতটাই ভাল ছিল যে আমার শ্রবণশক্তির মধ্যেই এল না। আমি চাই এমন গান যেন টোনি কক্কর, হিরো আলম, রানু মন্ডলও গাইতে পারে।” কেউ আবার লিখছেন, “প্রথমে ভাবছি মোবাইলের স্পিকার খারাপ হয়ে গিয়েছে।” কেউ লিখছেন, “শব্দ দূষণবিহীন গান… আহা! এনভারমেন্ট ফ্রেন্ডলি…”।

মিমির এমন শব্দ ছাড়া গান শুনে অনেকেরই আবার মন ভরে গিয়েছে! কেউ লিখলেন, “প্রতিটা অনুষ্ঠানে এমন গান বাজানো হোক। শব্দ দূষণ হবে না। দারুণ উদ্যোগ মিমি চক্রবর্তী। হ্যাটস অফ।” কেউ লিখছেন, “এত সুন্দর গান যারা শুনতে পাওনি তাদের মনে প্যাঁচ আছে।” কেউ মজা করে লিখলেন, “মিমি চক্রবর্তীর কন্ঠে অসাধারণ নৃত্য দেখে মন শিহরিত হয়ে উঠল।”

সোশ্যাল মিডিয়াতে আবার মিমির এই ভিডিও নিয়ে অনেক মজার মজার ঘটনা ঘটছে। কেউ মিমির কন্ঠে নিজেদের কথা বসিয়ে দিয়ে ভিডিওটা আবার আপলোড করছেন। তবে কেউ কেউ ভাবছেন এটা হয়তো ইচ্ছে করেই করা হয়েছে। মিমি হয়তো তার আসন্ন গানে এভাবে পাবলিসিটি স্টান্ট দিতে চেয়েছিলেন। হয়তো বা এটা হতে পারে নেগেটিভ প্রচার। কারণ ভিডিওটি এখনও ডিলিট করেননি অভিনেত্রী।