শাড়ি-ব্লাউজ খুলে খোলামেলা পোশাক পড়ায় অশ্লীল মন্তব্য, বিপাকে বাংলা টেলিভিশনের নায়িকারা

খড়ি থেকে সহচরী, শাড়ি ছেড়ে খোলামেলা পোশাক পরলেই অশ্লীল মন্তব্য, সপাটে জবাব দিলেন নায়িকা

Koneenica Banerjee and Solanki Roy Gets Trolled for Posting Bold Picture Online

বাংলা টেলিভিশনের (Bengali Telivision) নায়িকাদের নিয়ে আবারও সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়েছে কটাক্ষ। সোশ্যাল মিডিয়াতে এই ট্রেন্ড নতুন কিছু নয়। নায়িকাদের চেহারা, পোশাক-আশাক থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত জীবনে তারা কার সঙ্গে কীভাবে মিশছেন, সেই নিয়ে তাদের অশ্লীল কটাক্ষ করতে বাঁধে না কিছু মানুষের। সদ্য যেমন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস, সোলাঙ্কি রায় (Solanki Roy) এবং কনীনিকা ব্যানার্জিকে (Koneenica Banerjee) নিয়েও সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়েছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।

‘গাঁট ছড়া’ (Gantchhora) ধারাবাহিকের খড়ি ওরফে সোলাঙ্কি এবং ‘আয় তবে সহচরী’ (Aay Tobe Sohochori) ধারাবাহিকের সহচরী ওরফে কনীনিকা, উভয়কেই তাদের পোশাক নিয়ে বিঁধেছেন নেটিজেনরা। সম্প্রতি ব্লাউজ ছাড়া শাড়ি পরে সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি ছবি শেয়ার করতেই নেটিজেনদের প্রবল আক্রোশের মুখে পড়ে যান সোলাঙ্কি। একই ঘটনা ঘটে গিয়েছে কনীনিকার  সঙ্গেও।

মঙ্গলবার নিজের ফেসবুক পেজে গোপালপুর ট্রিপের একটি ছবি শেয়ার করে ছিলেন অভিনেত্রী। শুটিং ফ্লোর থেকে ছুটি নিয়ে নিজের একরত্তি মেয়ে এবং মেয়ে বন্ধুদের সঙ্গে সমুদ্র ঘুরতে গিয়েছিলেন কনীনিকা। সেখানে বিকিনি পোশাক পরে কনীনিকা এবং তার সঙ্গী গার্লস গ্যাংয়ের একটি ছবি ফেসবুকে আপলোড হতেই ধেয়ে আসে কটাক্ষ। রীতিমতো নোংরা ট্রোলিং শুরু হয়ে যায় কমেন্ট বক্সে।

কমেন্ট বক্সে তাদের উদ্দেশ্য করে ‘বিশ্রী’, ‘ভয়ঙ্কর লাগছে’, ‘মহিষের পাল’, ‘জলহস্তী’র মত কুৎসিত মন্তব্য লক্ষ্য করা যায়। এই মন্তব্য কনীনিকার নজরেও পড়েছে। প্রবল বডি শেমিংয়ের মুখে পড়ে কিন্তু চুপ করে থাকেননি অভিনেত্রী। পালটা জবাবে ধুয়ে দিলেন তিনি।

কনীনিকাও তার কমেন্ট বক্সে লিখেছেন, “কী হাসি পাচ্ছে কিছু অশিক্ষিত মানুষ দেখতে, যারা লুকিয়ে সবকিছু করে…নাইটি আর সায়া পরে সমুদ্রে নামে…সভ্যতার মুখোশ পরে আমাদের মধ্যে ঘুরে বেড়ায়…এরাই হল তারা যারা কথা বলার সময় বুকের দিকে তাকিয়ে কথা বলে…শেম… সমুদ্র দেখলো না, দেখলো শুধু চেহারা!! অশিক্ষিত বলা ভুল…এরা হল সেই খরগোশ যারা সবকিছু করে আর ভাবে কেউ দেখছে না।”

উল্লেখ্য কিছুদিন আগে মিঠাইখ্যাত অভিনেত্রী সৌমিতৃষাকেও পুরুষ বন্ধুর সঙ্গে দেখে কটাক্ষ করেছিলেন এই নেটিজেনরা। অভিনেত্রী শ্রুতি দাসকেও তার চেহারা নিয়ে কটাক্ষ করা হয় হামেশাই। নায়কদের তুলনায় নায়িকারাই কার্যত একদল নিন্দুকের সফট টার্গেটে পরিণত হয়েছেন। দর্শকদের এই অন্যায়কে কখনও প্রশ্রয় দিতে রাজি নয় টেলিপাড়া। তাই নিজেদের সম্মানের লড়াই লড়ছেন বাংলা টেলিভিশনের নায়িকারা।