মাথায় ব্যান্ডেজ নিয়ে জীবনের সেরা অভিনয়টা করলেন ঊর্মি! অভিনয় দেখে স্তম্ভিত দর্শকরা

‘উর্মির মত অভিনয় মিঠাই পারবে না’, ঊর্মির অভিনয় দেখে চোখের জল ধরে রাখতে পারছেন না দর্শকরা

মিঠাই (Mithai) নাকি খড়ি? কিংবা মিঠাই নাকি উর্মি? বাংলা টেলিভিশনের দর্শকরা মাঝেমধ্যেই মিঠাই রানীর সঙ্গে অন্যান্য নায়িকাদের তুলনা টেনে নিয়ে আসেন। বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে মিঠাইয়ের সঙ্গে অন্যান্য নায়িকাদের তুলনা হয়। মিঠাই ভক্তদের কাছে তো তুফান মেইলই সেরা। তবে দর্শকরা কিন্তু এখন উর্মি ওরফে অন্বেষা হাজরাকেই (Anwesha Hazra) সেরা অভিনেত্রী মানছেন। কারণ জানেন?

জি বাংলার (Zee Bangla) অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’ (Ei Poth Jodi Na Sesh Hoye) ধারাবাহিকের নায়িকা হল উর্মি। এই চরিত্রে প্রাণ ঢেলে অভিনয় করছেন অন্বেষা হাজরা। তার অভিনয় এতটাই প্রাণবন্ত এবং বাস্তবসম্মত যেন মনে হয় উর্মি চরিত্রটা এর সঙ্গে মিলেমিশে গিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি ধারাবাহিকের একটি এপিসোড দেখে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছেন দর্শকরা।

ধারাবাহিকে এসেছে এখন টানটান উত্তেজনাময় মোড়। প্রাণঘাতী আক্রমণের সম্মুখীন হয়ে উর্মি এবং সাত্যকি দুজনেই এখন হাসপাতালে ভর্তি। সাত্যকি এতটাই আঘাত পেয়েছে যে সে কোমায় চলে গিয়েছে। আর কোনদিনও স্বাভাবিক জীবনে সে ফিরবে কিনা সন্দেহ। এদিকে উর্মিও গুরুতর অসুস্থ। মাথায় চোট পেয়েছে সে।

যখন উর্মিকে সাত্যকির ব্যাপারে জানানো হয় তখন সে পাগলের মত আচরণ করতে শুরু করে। প্রথমে কাঁদতে শুরু করে সে। তারপর কাঁদতে কাঁদতে আচমকা হাসিতে ফেটে পড়ে। মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলার যে অভিনয় অন্বেষা করেছেন তা এককথায় অতুলনীয়। তার এই অভিনয়, দুর্দান্ত এক্সপ্রেশন দর্শকদেরও চোখে জল এনে দিতে বাধ্য করেছে।

এই এপিসোড দেখে পরিচালক কৃষ বসুও অন্বেষার প্রশংসা করে লিখেছেন, “অসাধারণ কিছু বলার ভাষা নেই।” অন্বেষার মত অভিনয় হালফিলের কোনও নায়িকাই করতে পারবেন না বলে দাবি করছেন দর্শকরা। ফ্যানেরা লিখছেন অন্বেষার এই অভিনয় তাদের চোখের পলক ফেলতে দেয়নি। উর্মির মনের অনুভূতির সঙ্গে তারা যেন একাত্ম হয়ে গিয়েছিলেন!

অন্বেষাও বলেছেন কাঁদতে কাঁদতে একসময় সত্যিই পাগলের মত অবস্থা হয়ে গিয়েছিল তার। ভাবছিলেন আর কতক্ষণ তাকে এভাবে কাঁদতে হবে। এই অভিনয়টা তার কাছে সত্যিই অনেক কঠিন ছিল। তবে কঠিন পরীক্ষায় সফলভাবেই পাশ করে বেরিয়েছেন অন্বেষা। সোশ্যাল মিডিয়াতে উপচে পড়ছে প্রশংসা।