১৪ বছর বয়সে এত সুন্দর গান গাইছেন কী করে, শ্রেয়ার জবাব জিতে নিল শ্রোতাদের মন

স্টেজে গান গাইছেন ১৪ বছরের শ্রেয়া, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল শ্রেয়া ঘোষালের পুরনো ভিডিও

বাংলা তথা সারা ভারতবর্ষের গর্ব শ্রেয়া ঘোষাল (Shreya Ghoshal)। খুব ছোট্ট বয়স থেকেই সংগীতের দুনিয়ায় তার যাত্রা শুরু হয়। মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই তিনি সংগীতের দুনিয়ার নক্ষত্র হয়ে ওঠেন। আজ টলিউড তথা বলিউডের প্রথম সারির গায়িকাদের প্রসঙ্গ উঠলে সবার আগে উঠে আসে তার নাম। তার মিষ্টি গলার সুরের জাদু মুগ্ধ করে রেখেছে সারা বিশ্বকে।

এক দশকের বেশি সময় ধরে ইন্ডাস্ট্রিতে গান গাইছেন শ্রেয়া। হিন্দি, বাংলা এবং আরও অন্যান্য ভাষা মিলিয়ে মিশিয়ে ১১টি ভাষায় মোট ২৪০০ টিরও বেশি গান গেয়ে ফেলেছেন শ্রেয়া। সংগীতের অনুরাগীদের একাংশ মনে করেন লতা মঙ্গেশকরের যোগ্য উত্তরসূরী হলেন শ্রেয়া। গানের দুনিয়াতে শেয়ার সফল যাত্রা শুরু হয়েছিল মাত্র ১৪ বছর বয়সে। ওই বয়সে তিনি হয়েছিলেন সারেগামাপার একটি সিজনের উইনার।

আজ এত বছর বাদে সারেগামাপার ওই প্রতিযোগিতার মঞ্চ থেকে শ্রেয়ার একটি গানের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল এই ভিডিওতে শোনা যাচ্ছে শ্রেয়া একটি রাজস্থানী ফোক গান গেয়ে শোনাচ্ছেন। তার পাশে দাঁড়িয়ে মুগ্ধ হয়ে গান শুনছেন সোনু নিগম। একজন বাঙালি হয়ে শ্রেয়া রাজস্থানী ভাষায় এমন সুন্দর গান গাইলেন কী ভাবে! শ্রেয়ার গায়কীতে রীতিমতো অবাক হয়েছেন সোনু।

সোনুর প্রশ্নের জবাবে শ্রেয়া উত্তর দিলেন তিনি দেশের সব ভাষাকে ভালোবাসেন। তাই তিনি এই গান গাইতে পারেন। তার জবাব শুনে রীতিমত মুগ্ধ হলেন বিচারকরা। রাজস্থানি ভাষায় তার দক্ষতার পেছনে আরও বড় কারণ হল বাবার কাজের সূত্রে তিনি রাজস্থানের রাওয়াতভাতারে বড় হয়েছেন।

উল্লেখ্য, শ্রেয়া ঘোষাল তার প্রথম প্লেব্যাক গেয়েছিলেন মারাঠি ভাষায় ‘Ganraj Rangi Nachato’ গানে। বলিউডে তার ডেবিউ হয়েছিল ‘দেবদাস’ সিনেমাতে গান গেয়ে। ‘পারো’ চরিত্রের জন্য ৫ টি গান গেয়েছিলেন তিনি। তারপর তাকে আর পেছনে ঘুরে তাকাতে হয়নি।