মাত্র ১ ঘন্টায় মুকেশ আম্বানি কত টাকা উপার্জন করেন, জানলে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য

মুকেশ আম্বানির ১ ঘন্টার আয় জানলে লজ্জায় মুখ লুকোবে দেশের বড় বড় শিল্পপতিরাও

ভারতীয় ধনকুবের মুকেশ আম্বানির (Mukesh Ambani) জীবনযাপন, তার এবং তার পরিবারের ‌জীবনধারণের কৌশল ও সর্বোপরি মুকেশ আম্বানির রোজগার নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে বারবার চর্চা চলে। রিলায়েন্সের কর্ণধার মুকেশ আম্বানির মাসে রোজগার (Income) কত? তার মোট সম্পত্তির পরিমাণ কত? কোথায় কত সম্পত্তি ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে তার? এই প্রশ্ন সাধারণের মনের ঘোরে। তবে জানেন কি মুকেশ আম্বানি এক ঘন্টায় যে রোজগার করেন তাতে সাধারণ কোনও ব্যক্তির সারাজীবনের ভরণপোষণ চলে যায়?

মুকেশ আম্বানির নামে রয়েছে বিপুল সম্পত্তি। ধীরুভাই আম্বানির পর বাবার কোম্পানি দেশে-বিদেশে আরও বিস্তৃত করেছেন তিনি। তিনি এবং তার পরিবার স্বভাবতই বিলাসবহুল জীবনযাপনে অভ্যস্ত। মুম্বাই শহরের বুকে মুকেশ এবং তার পরিবার যে বাংলোতে বসবাস করছেন সেই বাংলো ভারতের সবথেকে দামি বাংলো। সেখানে সবসময় ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা জারি করা থাকে। মুকেশ আম্বানির এই বিলাসবহুল আবাসনের দামই ৬ হাজার কোটি টাকা।

মুকেশ আম্বানির নিরাপত্তা অনেক বড় ইস্যু। সেখানে কোনও গাফিলতি করা হয় না। তিনি যখন বাড়ি থেকে বাইরে বের হন তখন তার সঙ্গে দশটি গাড়ির কনভয় থাকে। আঁটোসাঁটো নিরাপত্তার মধ্যে রাখা হয় তাকে। তার গ্যারেজ নামিদামি ব্র্যান্ডের বিলাসবহুল গাড়িতে ঠাসা। দেশে ছাড়া বিদেশেও তার নামে অনেক সম্পত্তি আছে। মুকেশ আম্বানির দৈনন্দিন আয় কত জানেন? এক সংবাদপত্রে প্রকাশিত এক রিপোর্ট অনুযায়ী প্রতিদিন ১৫১.৭১ কোটি টাকা উপার্জন করেন তিনি!

বিভিন্ন রিপোর্ট থেকে জানা যায় মুকেশ আম্বানি ৭,৭৪,৬২৫০ কোটি টাকার মালিক। দিন প্রতিদিন তার সম্পত্তি বাড়ছে। এখন তার দৈনিক আয় অনেকটাই বেড়েছে। রিলায়েন্স কোম্পানিতে মুকেশ আম্বানির ৪২ শতাংশ শেয়ার আছে। চলতি বছরে কোম্পানি থেকে মুকেশের আয় ৬০৮ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৪৫১৯.৬ কোটি টাকা বেড়েছে।

এই মুহূর্তে রিলায়েন্স কোম্পানির দৈনন্দিন লাভ হচ্ছে ৭২.৭৪ কোটি টাকা। রিলায়েন্স কোম্পানির ৫৬,১৫৬ কোটি টাকার রফতানি হয়েছে। গড় হিসেবে দৈনন্দিন ‌রফতানি হয়েছে ৬১৭ কোটি টাকা এবং প্রতি ঘন্টায় ২৫.৭১ কোটি টাকা রফতানি হয়। বর্তমানে ভারতের বাজারে রিলায়েন্স রিটেল এবং জিও প্ল্যাটফর্ম সর্বাধিক জনপ্রিয়। এই দুই ক্ষেত্রে তাই বড় অঙ্কের অর্থ উপার্জন করছে কোম্পানি। ভারতে বর্তমানে প্রতি ঘন্টায় জিওর উপার্জন ১০.১৯ কোটি টাকা এবং রিটেল থেকে উপার্জন হচ্ছে ১৭.৬৪ কোটি টাকা।

আরও পড়ুন : মুকেশ আম্বানির ড্রাইভারের বেতন লজ্জায় ফেলে দিচ্ছে বড় কর্পোরেট সংস্থার কর্মীদেরও

শুধু জিও প্ল্যাটফর্ম থেকেই সংস্থার দৈনন্দিন উপার্জন হয় ২৪৪.৬৯ কোটি টাকা এবং রিটেল থেকে দৈনন্দিন উপার্জন হচ্ছে ৪২৩.৫৯ কোটি টাকা। সেই হিসেবে জিও এবং রিটেল থেকে কোম্পানির দৈনন্দিন লাভ হচ্ছে ৪০.১৩ কোটি টাকা এবং ১০.৫৭ কোটি টাকা। প্রত্যেক ঘন্টায় জিও থেকে রিলায়েন্সের লাভ ১.৬৭ কোটি টাকা এবং রিটেল থেকে লাভ ৪৪ লক্ষ টাকা। এছাড়াও অয়েল টু কেমিক্যাল ব্যবসা থেকে কোম্পানি প্রতিদিন ১১৩৪.২ কোটি টাকা এবং প্রতি ঘন্টায় ৪৭.২৫ কোটি টাকা উপার্জন করছে।

আরও পড়ুন : মাত্র ৫জনের জন্য ২৭তলা বাড়ি, ৬০০কাজের লোক : ঘুরে দেখুন মুকেশ আম্বানির বাড়ির অন্দরমহল