দর্শক না দেখলেও সিরিয়ালের গল্প বদলাবে না, সাফ জানিয়ে দিলেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়

দর্শক তিতিবিরক্ত হলেও সিরিয়ালের গল্প বদলাবেন না, স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়

Leena Gangopadhyay Opens up About Changing the Storyline of Her Serials

বাংলা ধারাবাহিক (Bengali Mega Serial) নিয়ে এই মুহূর্তে দুই দলে বিভক্ত টলিউড। একদিকে রয়েছেন অভিনেত্রী কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায় (Koneenica Banerjee)। তিনি সম্প্রতি খাসখবর পোর্টালের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে বলেন দর্শকের চাহিদা মেনে ধারাবাহিকে পরকীয়া এবং কুটকাচালির ট্র্যাক ঢোকাতে বাধ্য হচ্ছেন নির্মাতারা। অন্যদিকে বাংলার জনপ্রিয় চিত্রনাট্যকার লীনা গাঙ্গুলী (Leena Ganguly) টিভি নাইন বাংলার কাছে সাক্ষাৎকারে সম্পূর্ণ উল্টো মত পোষণ করলেন।

স্টার জলসার ‘আয় তবে সহচরী’ ধারাবাহিকটিকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়াতে বিতর্কের ঝড় ওঠে। নেটিজেনদের একাংশের দাবি ধারাবাহিকটি তার মূল স্রোত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। সহচরীর কলেজ যাওয়ার বদলে টিআরপি টানতে ধারাবাহিকের গল্পে পরকীয়া ঢোকানো হয়। এতে একদল দর্শক বেজায় চটেছেন। তবে টিআরপি যে বেড়েছে সে সম্পর্কে সন্দেহের অবকাশ নেই। এর আগের সাক্ষাৎকারে দর্শকদের রুচিই গল্প বদলে যাওয়ার কারণ বলে দাবি করেছিলেন কনীনিকা। তার দাবি ছিল দর্শক দেখেন বলেই ধারাবাহিকে পরকীয়া দেখানো হয়। ভাল কিছু দেখালে টিআরপি আসে না। টিভি নাইন বাংলার কাছেও একই কথা বলেছেন অভিনেত্রী।

তার কথায়, “মানুষ দেখেন না। যতদিন পড়াশোনার ট্র্যাক চলছিল, ৫.২, ৫.৪, ৫.৬ টিআরপি ছিল। যেই দেবিনার ট্র্যাক ঢুকেছে, ৯-এর উপর টিআরপি, ৮-এর উপর টিআরপি। কী করা যাবে। চ্যানেলকে তো ব্যবসা করতে হবে। মুনাফা না হলে চ্যানেল চলবে কীভাবে।” কনীনিকা বলেছেন, “শিক্ষিত সিরিয়াল মানুষ দেখেন না। সিরিয়ালটি খারাপভাবে তৈরি করা হচ্ছিল, তেমনটাও কিন্তু নয়। খুব সুন্দর করেই তৈরি হচ্ছিল। তারপর দেখলাম কনটেন্ট বদলে গেল। অধিকাংশ দর্শকই ঝগড়া দেখতে চান। আমি অভিনয় করতে পারি, আর সেটা আমি জানি। সাহানাদি কতখানি ভাল লেখেন, সেটা আর নতুন করে প্রমাণ করার দরকার নেই। স্টারের মতো চ্যানেল। তারপরেও কেন চলবে না!”

তবে বাংলা ধারাবাহিকের বিষয়ে একেবারেই উল্টো মত পোষণ করলেন লেখিকা লীনা গাঙ্গুলী। তার পাল্টা দাবি, “আমার ধারাবাহিকের গল্পগুলোর ক্ষেত্রে এরকমটা কোনওদিনও ঘটেনি। এমনটা হয়েছে, মূল অভিনেত্রী ভাল করেননি। সে জন্য ধারাবাহিকের অন্য অভিনেত্রীকে বেশি প্রাধান্য দিয়েছি। এছাড়া, দর্শকের চাহিদা প্রথমেই ওরকমভাবে বোঝা যায় না। ‘আয় তবে সহচরী’র মতো অভিজ্ঞতা সত্যিই আমার হয়নি। আমাকে চ্যানেলের কথা শুনেও চলতে হয়নি।

Leena Gangopadhyay

দর্শকের কথা ভেবেও কাহিনি পাল্টাতে হয়না। আমি আমার গল্পের উপর বিশ্বাস রেখেই কাজ করি। যদি মনে হয় কোনও অভিনেতা-অভিনেত্রী ভাল করছেন, তাঁর উপর নির্ভর করে অনেক সময়তেই আমি গল্প এগিয়ে নিয়ে গিয়েছি। সেই কারণে গল্পের সাবট্রেকও অনেক সময় হিট করেছে। সেটা আমি নিজে সিদ্ধান্ত নিয়ে করি। দর্শকের ভাল লাগে না বলে পাল্টেছি, এমনটা কিন্তু কখনও করিনি।”