টাকার লোভে এমন ‘কুচুটে’ চরিত্রে অভিনয় করছেন! মুখ খুললেন শিমুলের শাশুড়ি মধুবালা

Rita Dutta Chakraborty Exclusive Interview : টাকার লোভে কুচুটে শাশুড়ির অভিনয় করছেন! জবাব দিলেন শিমুলের শাশুড়ি

রীতা দত্ত চক্রবর্তী (Rita Dutta Chakraborty), এই নামটার সঙ্গে বেশ পরিচিত বাংলা সিরিয়াল (Bengali Mega Serial) -র দর্শকরা। বর্তমানে তাকে জি বাংলা (Zee Bangla) -তে কার কাছে কই মনের কথা (Kar Kache Koi Moner Kotha) সিরিয়ালে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে। তবে যে চরিত্র তিনি অভিনয় করছেন তেমন চরিত্রে এর আগে কখনো তাকে দেখা যায়নি। রীতা নায়িকা শিমুলের দজ্জাল শাশুড়ি মা মধুবালার ভূমিকায় অভিনয় করছেন এখানে।

এক বিধবা মায়ের ভূমিকাতে এখানে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে রীতাকে। যার তিন ছেলে-মেয়ে, পরাগ, পলাশ এবং পুতুল। শাশুড়ি মা হিসেবে তিনি ভীষণ কুচুটে। উঠতে বসতে বৌমাকে কথা শোনান। বাড়ি থেকে বের করে দেন। তবে বাস্তবে রীতা মোটেও এমন মানুষ নন। মধুবালার চরিত্রটি জন্য তাকে বাস্তবে অনেক সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে।

KAR KACHE KOI MONER KOTHA

সম্প্রতি নিজের কাজ নিয়ে একটু সংবাদ মাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে মুখ খুললেন শিমুলের শাশুড়ি মা। একটি ইউটিউব চ্যানেলকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় রীতা বলেছেন শিমুলের উপর অত্যাচার করার সময় তার নিজেরও ভীষণ কষ্ট হয়। তবে পর্দায় এটাই তার কাজ।

রীতার কথায় এমন চরিত্রদের পর্দায় দেখতে কষ্টকর বলে মনে হলেও বাস্তবেও মধুবালার মত মানুষেরা রয়েছেন। আসলে মধুবালা নিজেও যখন শ্বশুরবাড়িতে এসেছিলেন তখন তাকেও এরকম অত্যাচারের মুখে পড়তে হয়েছিল। এখন তিনি তার শোধ তুলছেন শিমুলের উপর। কিছুটা মধুবালার স্বপক্ষেই কথা বলতে শোনা গেল রীতাকে।

Kar Kache Koi Moner Kotha

অভিনেত্রীর কথায় মধুবালার নিজের জীবনের না পাওয়ার যন্ত্রনা এবং মান অভিমান তাকে এতটা কঠোর করে তুলেছে। তবে এমন চরিত্রের জন্য সোশ্যাল মিডিয়াতে কিছু কম কথা শুনতে হয় না রীতাকে। এমনকি ছেলেবৌমার ফুলশয্যার রাতে মধুবালা এসে ছেলেকে নিয়ে ফুলশয্যার খাটে শুয়ে পড়েন। এই নিয়েও অনেক সমালোচনা হয়েছিল।

আরও পড়ুন : ১০ লাখের ৮০ টা ঘর, ১৭০ লাক্সারি গাড়ি! পরিণীতির বিয়ের এক রাতের খরচ শুনলে আঁতকে উঠবেন

Kar Kache Koi Moner Kotha

আরও পড়ুন : দাদাগিরি আসতেই উলটপালট সব সিরিয়ালের টাইম স্লট! রইল নতুন সময়সূচী

যদিও এই প্রসঙ্গে রীতা বলেছিলেন তার ছেলেও থাকে বাইরে। কলকাতায় এলে তিনিও এখনো তার ছেলের সঙ্গে একই বিছানায় ঘুমান। যে বা যারা মা এবং ছেলেকে ফুলশয্যার খাটে দেখে নোংরা কথা বলছেন এগুলো আসলে তাদের নোংরা মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ, এমনটাই বলেছেন তিনি।