বামাক্ষ্যাপার ‘তারা মা’কে খুন-ধর্ষণের হুমকি! পুলিশ থানাতেও চূড়ান্ত হেনস্থার শিকার, বিস্ফোরক অভিনেত্রী

দুর্ঘটনার পর খুন-ধর্ষণের হুমকি নবনীতাকে, পুলিশ স্টেশনেও জুটলো অপমান, বিস্ফোরক জিতু-নবনীতা

Jeetu Kamal and Nabanita Das faced an accident and alleged police as they didn't help them

একে তো মালবাহী গাড়ির সঙ্গে প্রাইভেট গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষ, তার উপর আবার পুলিশ থানাতেও জুটলো অপমান! এমনকি থানার বাইরেও অপরাধীরা খুন-ধর্ষণের হুমকি দিচ্ছে! সম্প্রতি এমনই এক ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার স্বীকার হতে হল টলিউডের জনপ্রিয় জুটি জিতু কমল (Jeetu Kamal) এবং নবনীতা দাসকে (Nabanita Das)। বৃহস্পতিবার বিরাটি থেকে সোদপুর যাওয়ার পথে একটি লরির সঙ্গে তাদের গাড়ির দুর্ঘটনা হয়। এরপর আরও ভয়ংকর অভিজ্ঞতার শিকার হতে হয়েছে তাদের।

নবনীতা এবং জিতুর অভিযোগ, এদিন রাতে মাজেরহাটি ক্রসিংয়ের কাছে একটি মালবাহী লরি তাদের গাড়িতে ধাক্কা দেয়। অভিযুক্ত ওই লরির চালককে দাঁড় করানো হলে তিনি পাল্টা জিতুর গাড়ি চালকের উপরেই দোষারোপ করেন। এরপর নিমতা থানায় অভিযোগ জানাতে যান জিতু এবং নবনীতা। সেখানে গিয়েও খুব খারাপ অভিজ্ঞতা হয়েছে তাদের। বেশ কয়েক ঘন্টা তাদের থানাতে বসিয়ে রাখা হয়েছিল কিন্তু অভিযোগ নেওয়া হয়নি।

জিতু-নবনীতা থানার বাইরে বেরোতেই অভিযুক্তরা তাদের উপর চড়াও হয়। নবনীতাকে রীতিমত অশালীন ভাষায় আক্রমণ করে তারা। এমনকি তাদের প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনাতেও পুলিশ নিষ্ক্রিয় ছিল বলে অভিযোগ করছেন তারা। নিমতা থানার পুলিশ তাদের সঙ্গে কোনও সহযোগিতা করেনি। উপরন্ত তাদের গাড়ি বাজেয়াপ্ত করে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেছেন এই তারকা দম্পতি।

অবশেষে জিতু এবং নবনীতার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। তারা শেষমেষ অভিযুক্ত ওই গাড়ির চালক শিবাশিস দাসকে গ্রেফতার করে। সেই সঙ্গে চালকের তিনজন সঙ্গীকেও গ্রেফতার করা হয়। অভিযুক্তদের মধ্যে একজনের নাম আদিত্য প্রামানিক। এই অভিযুক্তদের পাশাপাশি যে পুলিশকর্মী জিতু-নবনীতার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন তার বিরুদ্ধেও বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ প্রশাসন।

এদিকে টলিউডের তারকা দম্পতির সঙ্গে এত বড় ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে বিভিন্ন মহলে। শেষমেষ একদিনের মাথায় শুক্রবার ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের তরফ থেকে একটি সাংবাদিক বৈঠকের আয়োজন করে এই বিষয়ে মুখ খোলেন সহকারী পুলিশ কমিশনার সুবীর রায়। এই ঘটনা প্রসঙ্গে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন নবনীতা।

ঘটনার পর মানসিক উদ্বেগের জেরে অসুস্থ হয়ে পড়েন নবনীতা। সোশ্যাল মিডিয়াতে লাইভে এসে তিনি সম্পূর্ণ ঘটনাটি জানিয়েছেন। এই ঘটনার কথা বলতে বলতে কান্নায় ভেঙেও পড়েন অভিনেত্রী। গাড়ি চালককে থানায় আটক করা হলে তার সঙ্গীদের থেকে খুনের হুমকিও পেয়েছেন তারা। এই ঘটনায় ভীষণ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন নবনীতা।