মিঠাই নয়, খড়িও ফেল, এই কারণেই পুরনো ধারাবাহিকগুলো আজও সেরা দর্শকদের কাছে

মিঠাই-খড়ির চেয়ে পুরনো এই সিরিয়ালগুলোই বাংলা টেলিভিশনে সেরা, দর্শকরা জানালেন কারণ

ইদানিং বাংলা টেলিভিশন (Bengali Telivision) চ্যানেলগুলোতে নিত্যনতুন ধারাবাহিকের (Bengali Mega Serial) অভাব নেই কোনও। একটি সিরিয়াল বন্ধ হতে না হতেই তার জায়গা নেওয়ার জন্য চলে আসছে নতুন সিরিয়াল। কিন্তু এই আসা-যাওয়ার মাঝে তারা দর্শকদের মনের মধ্যে ছাপ ফেলে যেতে পারছে কি? হালফিলের বেশিরভাগ ধারাবাহিকের ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে এটা এক মাস পরেই দর্শকদের আগ্রহ ক্রমশ নীচের দিকে নামছে।

কয়েক বছর আগের পুরনো ধারাবাহিকগুলোকে এখনও মনে রেখে দিয়েছেন দর্শকরা। অথচ টিআরপির অভাবে মার খাচ্ছে হালফিলের প্রায় প্রতিটি সিরিয়াল। সোশ্যাল মিডিয়াতে মাঝেমধ্যেই পাঁচ-দশ বছরের পুরনো সিরিয়াল ফিরিয়ে আনার ডাক দেন দর্শকরা। দর্শকদের দাবি মেনে ইতিমধ্যেই স্টার জলসা (Star Jalsha) বেশকিছু পুরনো সিরিয়ালের সম্প্রচার করছে নতুনভাবে।

স্টার জলসার অফিশিয়াল ফেসবুকের পাতায় ইতিমধ্যেই ‘ইচ্ছেনদী’ এবং ‘গানের ওপারে’ আবার দেখানো শুরু হয়েছে। শোলাঙ্কি রায় ও বিক্রম চ্যাটার্জীর ‘ইচ্ছে নদী’ পাঁচ বছর আগে সম্প্রচারিত হত। ওই সময় অনুরাগ-মেঘলার যে জনপ্রিয়তা ছিল তা আজও অটুট। অন্যদিকে মিমি চক্রবর্তীর ‘গানের ওপারে’তেও গোরা-পুপের জনপ্রিয় তাকে হারাতে পারে এমন সিরিয়াল এখন প্রায় নেই।

দেখা যাচ্ছে আজও পুরনো সিরিয়ালগুলো নতুনদের টেক্কা দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। লকডাউনে যখন পুরনো সিরিয়ালের সম্প্রচার শুরু হয় বাংলা চ্যানেলগুলোতে তখনও তাদের জনপ্রিয়তা ছিল চোখে পড়ার মত। এই প্রসঙ্গে আনন্দবাজার অনলাইনের কাছে নিজের মতামত রাখলেন চিত্রনাট্যকার সাহানা দত্ত। তিনি অবশ্য প্রশ্ন তুলছেন ফেসবুকে পুরনো ধারাবাহিকের সম্প্রচার হলেও আদেও তা কতজন দেখছেন?

সাহানা দত্তের কথায়, “ধারাবাহিক বন্ধ আর নতুনদের হারিয়ে যাওয়ার প্রসঙ্গ তুললে বলব টেলিভিশন এমন একটা মাধ্যম, যেখানে দর্শকের চাহিদা প্রতি দিন বদলাতে থাকে। আমরা সেই চাহিদার সঙ্গে পাল্লা দিতে পারলে সফল হব আর না পারলে ব্যর্থ হব। কত দ্রুত আমরা শিখছি, সেটাই দেখার। দর্শককে স্বাদ না বুঝতে পারলে এমনটাই হবে। এককালীন হিট ধারাবাহিকের গল্পের ধাঁচে যদি বার বার মেগা তৈরি করা হয়, তা হলে তো দর্শকের একঘেয়েমি আসবেই।”

হালফিলের দর্শকরা তো বটেই সেইসঙ্গে এখনকার অভিনেতা-অভিনেত্রীদেরও কিন্তু পছন্দ সেই পুরনো ধারাবাহিকগুলোই। গুড্ডি অভিনেত্রী শ্যামৌপ্তি মুদলি আনন্দবাজারকে জানিয়েছেন তার বারবার ‘গানের ওপারে’ দেখতে ইচ্ছে করে। আরেক অভিনেত্রী জানিয়েছেন তার প্রিয় মৌরি-নিখিল অর্থাৎ ‘বউ কথা কও’। অন্যদিকে ‘গানের ওপারে’, ‘বউ কথা কও’, ‘এক আকাশের নিচে’র মত সিরিয়ালগুলো দর্শকদেরও পছন্দের তালিকায় প্রথম সারিতে রয়েছে।