‘কথা বলতে পারে না, অভিনয় জানে না, তারাও লিড রোল পাচ্ছে’, বিস্ফোরক দেবযানী 

যমুনা ঢাকির পর আর সিরিয়ালে ফিরবেন না, হতাশা নিয়ে অভিনয় ছাড়লেন দেবযানী

দীর্ঘ ১৮-১৯ বছর একটানা বাংলা টেলিভিশনের (Bengali Telivision) সঙ্গে যুক্ত তিনি। গত দুই দশকে তাকে কখনও বসে থাকতে হয়নি। অভিনয়টা তিনি বেশ ভালই পারেন সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। হালফিলে ‘যমুনা ঢাকি’ (Jamuna Dhaki) ধারাবাহিকে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে তাকে। তবে শীঘ্রই এই ধারাবাহিক শেষ হয়ে যাবে। তারপর আবার নতুন করে কোন ধারাবাহিকে দেখা যাবে দেবযানী চ্যাটার্জিকে (Debjani Chatterjee)? সম্প্রতি টিভি নাইন বাংলার কাছে মনের কথা জানালেন অভিনেত্রী।

এত বছর ধরে অভিনয় করার পরেও আজ এক বুক হতাশা জমে রয়েছে তার মনের মধ্যে। এতগুলো সিরিয়ালে কাজ করার পরেও মনের মতো চরিত্র পাননি তিনি। পাননি টলিউডে সেভাবে নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগও। এখন বাংলা মেগা ধারাবাহিকও তাকে শাশুড়ির টাইপ কাস্টে ফেলে দিয়েছে। তাই এখন আর ধারাবাহিকে ফেরার ইচ্ছা নেই তার মনে। এই একঘেয়েমি কাটিয়ে ওঠার জন্য আপাতত কয়েক মাসের বিরতি নিচ্ছেন দেবযানী।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Debjani Chatterjee (@debjani_majo)

আপাতত তার নজরে রয়েছে ওটিটি এবং সিনেমা। তিনি দেখছেন তার বয়সের মহিলারা এখন ওয়েব সিরিজে এবং সিনেমাতে ভালো ভালো কাজ করছেন। তবে বাংলা ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে তিনি বেশ হতাশ। তাই প্রয়োজনে বলিউডে ভাগ্য পরীক্ষা করেও দেখতে পারেন দেবযানী। কারণ এতগুলো বছর পরে এত কাজ করার পরেও তার শিল্পীসত্তা তাকে প্রশ্ন করে। একজন শিল্পী হিসেবে তিনি কতটুকু কাজ করতে পেরেছেন? এই প্রশ্নের জবাবে আত্মতুষ্টি পান না তিনি।

বিগত ১০ বছর ধরে একটানা শাশুড়ি-বৌমার টাইপ কাস্টে অভিনয় করতে করতে তিনি ক্লান্ত। এর বাইরে তিনি বের হতে চান। বর্তমানে মেগা সিরিয়ালে ভালো আর খারাপের বাইরে কিছুই হয় না বলে জানাচ্ছেন দেবযানী। গল্পের মধ্যেও কোনও বৈচিত্র্য খুঁজে পান না তিনি। যার ফলে কাজের প্রতি তার আকর্ষণ আর ইচ্ছেটাই যেন কোথাও হারিয়ে যাচ্ছে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Debjani Chatterjee (@debjani_majo)

এছাড়া এখন ইন্ডাস্ট্রিতে যারা কাজ করছেন তাদের দেখেও বেশ হতাশ তিনি। তার আক্ষেপ, “যারা কিছুই জানেন না, কথাও বলতে পারেন না, উচ্চারণ স্পষ্ট নয়, অভিনয় কোনওদিন করেননি, তারাও লিড রোল পেয়ে যাচ্ছেন। আর যারা অভিনয় এত বছর ধরে করে আসছেন, কাজটা জানেন, তারা নাকি পিছনে পড়ে থাকছেন!”